Breaking News
এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় পাসের হার ৭৩.৯৩
X
ঢাকা, বুধবার, ২ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৭ জুলাই ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

চাকরির বয়স ৩৫ প্রত্যাশীদের নেতৃত্বের দ্বন্দ্ব

মশিউর রহমান : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৪-১১ ২:২২:০২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৪-১১ ২:২৪:৩১ পিএম
চাকরির বয়স ৩৫ প্রত্যাশীদের নেতৃত্বের দ্বন্দ্ব
Voice Control HD Smart LED

মশিউর রহমান : সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ বছর করার দাবিতে আন্দোলন চলছে বিগত সাত বছর। দাবিটি আজও বাস্তবায়িত হয়নি। এক্ষেত্রে এই আন্দোলন যতোটা জোরদার হওয়া উচিত ছিলো, ততোটা হয়নি। এর অন্যতম কারণ আন্দোলনকারীদের অভ্যন্তরীণ এবং নেতৃত্ব সংক্রান্ত দ্বন্দ্ব। দীর্ঘদিন এই আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন মো. ইমতিয়াজ হোসেন এবং এম এ আলী। তারা ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র পরিষদ’ নামক সংগঠনের ব্যানারে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। অন্যদিকে একই দাবিতে সঞ্জয় দাস ও হারুনুর রশিদ নেতৃত্ব দিচ্ছেন অনুরূপ নামের আরেকটি সংগঠনের ব্যানারে। পাশাপাশি আল-আমিন রাজু ও আমিরুল ইসলাম সেলিম নেতৃত্ব দিচ্ছেন ‘বাংলাদেশ ছাত্র পরিষদ’ সংগঠনের ব্যানারে। এই তিনটি গ্রুপ একসময় একসঙ্গে সম্মিলিতভাবে কাজ করতো। বর্তমানে তিনটি গ্রুপেরই নিজস্ব আলাদা ফেসবুক গ্রুপ বা পেইজ রয়েছে। সেখানে তারা ভিন্ন এবং বিক্ষিপ্তভাবে কর্মসূচী ঘোষণা করে প্রচার-প্রচারণা চালায়। এক গ্রুপ একটা কর্মসূচীর তারিখ ঘোষণা করলে দেখা যায় সেটি সফল হতে না দেয়ার উদ্দেশ্যে অন্য গ্রুপ কর্মসূচী হাতে নেয়। তারা ঘোষিত তারিখের ২/৪ দিন আগে বা পরে তাদের কর্মসূচীর তারিখ ঘোষণা করে। এতে সারাদেশের ৩৫ প্রত্যাশীরা দ্বিধায় পড়ে যায়। তারা কোন কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করবে সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। ফলে এই জাতীয় বিক্ষিপ্ত কর্মসূচীতে জনসমাগম খুব একটা চোখে পড়ে না। যে কারণে সরকারের কাছে আন্দোলনটি এখন অবহেলিত ও দুর্বল মনে হতে পারে। দাবি আদায় করার পথে এটিও একটি বড় প্রতিবন্ধকতা। অথচ সেদিকে নেতাদের ভ্রূক্ষেপ নেই। উল্টো তারা আজও নেতৃত্বের দ্বন্দ্বের মধ্যে পড়ে রয়েছেন। এ কারণে সাধারণ ৩৫ প্রত্যাশী ছাত্রছাত্রীরা দিশেহারা ও রীতিমত হতাশ। তাছাড়া ঢাকার বাইরের অর্থাৎ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে এমন অর্থহীন প্রতিটি কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করতে বেকার ছাত্রদের পকেটের টাকা জলে যায়।

চলতি বছরের মাঝামাঝি সরকার ৩ লাখ শূন্য পদ পূরণের লক্ষ্যে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সরকারের এই সিদ্ধান্ত ৩৫ প্রত্যাশীদের নতুন করে বাঁচার স্বপ্ন দেখাচ্ছে। তারা চায় না এভাবে বছরের পর বছর আন্দোলন চালিয়ে যেতে। ইতোমধ্যে উক্ত তিনটি গ্রুপের নেতাদের ডাকা আগামী ২০ এপ্রিল ও ২৬ এপ্রিলের কর্মসূচীকে তারা বর্জন করেছে। তারা এমন বিক্ষিপ্ত ও পরিকল্পনাহীন কর্মসূচীতে অংশগ্রহণ করতে ইচ্ছুক নয়। আন্দোলনকারী নেতাদের নিকট তাদের এখন একটাই অনুরোধ, হয় তিনটি গ্রুপের নেতারা এক হয়ে সম্মিলিতভাবে বৃহৎ কর্মসূচীর ডাক দিবেন, যেখানে সারাদেশের ৩৫ প্রত্যাশীরা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করবে, অথবা তাদের সবাই মিলে বয়কটের পাশাপাশি প্রতিহত করা হবে। ৩৫ প্রত্যাশী অনেকেই ফেসবুকে এমন হুঁশিয়ারির কথা শুনিয়েছেন।

লেখক: সাবেক শিক্ষার্থী, সরকারি তিতুমীর কলেজ, ঢাকা।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১১ এপ্রিল ২০১৯/তারা

Walton AC
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন
       

Walton AC
Marcel Fridge