ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ২১ নভেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

মশা নিধনের টাকা কোথায় গেল : রিজভী

রেজা পারভেজ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৭-১৬ ১:৪১:৫৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৭-১৬ ১:৪১:৫৩ পিএম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, রাজধানীর দুই সিটি করপোরেশনে মশা নিধনের কার্যক্রম ‘ব্যর্থ হওয়ায়’ এই খাতে ব্যয় করা টাকা কোথায় ।

রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘রাজধানীতে মশার ব্যাপকতা বেড়ে যাওয়ায় চিকুনগুনিয়া নামক রোগটি এখন মহামারী আকার ধারণ করেছে। অথচ মশা নিধনে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে শত শত কোটি টাকা ব্যয়ের কথা বলা হয়েছে। এতো টাকা ব্যয় হলেও ন্যূনতম মশা নিধন হয়নি, তাহলে টাকাগুলো গেল কোথায়?’

মশা নিধনে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ না করে দায়িত্ব এড়িয়ে যেতে লাগামহীন কথাবার্তা বলা হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন বিএনপির এই নেতা।

তিনি বলেন, ‘মশা নিধনের ব্যর্থতার কারণে ঢাকা শহরে শুরু হওয়া চিকুনগুনিয়া যেভাবে সারা দেশে মহামারী আকার ধারণ করেছে তাতে জনগণের মধ্যে চরম উদ্বেগ ও আতঙ্কের সৃষ্টি করেছে। দেশে জনস্বাস্থ্য এখন চরম হুমকির মুখে। সরকার ও দুই মেয়র এর দায় এড়াতে পারে না।’

রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলন হয়।

চিকুনগুনিয়ার মতো মহামারীর আগ্রাসন নিয়ে সরকার জনগণের দুঃখ-কষ্ট নিয়ে উপহাস করছে মন্তব্য করে রিজভী বলেন, ‘শুধু মশা নয়, জনগণ সিটি করপোরেশনের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় সেবাগুলি পাচ্ছে না, বরং তারা এখন চরম জনদুর্ভোগের মধ্যে হাবুডুবু খাচ্ছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘ঢাকা শহরে বৃষ্টির মৌসুমেই শুরু হয় খো্ড়াঁখুড়ি, বৃষ্টির পানিতে রাস্তাঘাটগুলো খাল-বিলে পরিণত হয়। চরম বিপর্যয়ের মধ্যে পড়ে মানুষ। ফলে নগরজীবন ভয়াবহ দুর্বিষহ হয়ে ওঠে। এর দায় কোনক্রমের সরকার এড়াতে পারে না।’

সারা দেশের গ্রাম-গঞ্জে, মফস্বল শহরে ভয়াবহ লোডশেডিং চলছে দাবি করে তিনি বলেন, ‘রেন্টাল ও কুইক রেন্টালে বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রকল্পের নামে দেশে হরিলুট চলছে। সরকারের ভ্রান্তনীতির কারণে স্বল্পব্যয়ে মধ্যমেয়াদী বিদ্যুৎ প্রকল্পগুলো ব্যর্থ হয়েছে। তাই এখন তারা রেন্টাল-কুইকরেন্টালের ওপর নির্ভরশীল। সরকারের এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে সুবিধাভোগী একশ্রেণির উদ্যোক্তরা বিপুল পরিমাণ অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। সর্বত্রই আলোচনা হচ্ছে রেন্টাল ও কুইকরেন্টালের নামে যারা হাজার হাজার কোটি টাকা লুট করছে তারা সরকারেরই ঘনিষ্ট লোক ও শীর্ষ নেতাদের আত্মীয়স্বজন।”

দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বন্যাদুর্গতদের কাছে এখনও সরকারি ত্রাণ পৌঁছায়নি দাবি করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘গণমাধ্যমে খবর বেরিয়েছে-বন্যা আক্রান্ত এলাকায় যতটুকু সরকারি ত্রাণ গেছে তা স্থানীয় আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা ও তাদের আত্মীয়স্বজনরাই লুটে নিচ্ছে। গরীব-অসহায় ও ক্ষুধার্ত মানুষরা কোনো ত্রাণ পাচ্ছে না।’

দলের সকল পর্যায়ের নেতা-কর্মীসহ সর্বস্তরের স্বচ্ছল মানুষকে ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে বানভাসী মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানান রিজভী।

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৬ জুলাই ২০১৭/রেজা/ইভা

Walton
 
   
Marcel