ঢাকা, রবিবার, ৭ কার্তিক ১৪২৪, ২২ অক্টোবর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

‘রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিএনপি-জামায়াত প্রাণ ফিরে পেয়েছে’

নৃপেন রায় : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৯-১৯ ৭:০৮:২১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৯-১৯ ৭:০৮:২১ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিএনপি-জামায়াত প্রাণ ফিরে পেয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী।

মঙ্গলবার রাজধানীর খিলগাঁও ত্রিমোহনী কবরস্থান সংলগ্ন মাঠে যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ৭৫ নং ওয়ার্ডের (প্রাক্তন নাসিরাবাদ ইউনিয়ন) ত্রিবার্ষিক কাউন্সিলে তিনি এ মন্তব্য করেন।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূমিকা উল্লেখ করে ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, ১৯৭১ সালে কোটি বাঙালি শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়ে ভারতের তৎকালীন নেত্রী ইন্দিরা গান্ধী বিশ্বনন্দিত নেত্রী হয়েছিলেন। আর ২০১৭ সালে মিয়ানমারের লাখ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়ে বিশ্ববাসীর কাছে মানবতাবাদী নেত্রী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। আর পরাস্ত হয়েছেন নোবেলজয়ী মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি।

তিনি আরো বলেন, শেখ হাসিনা প্রমাণ করেছেন, মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য নোবেল লরিয়েট নয়, দরকার নোবেল ওয়ার্কার। এ কারণে ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রীকে মাদার অব হিউম্যানিটি খেতাবে ভূষিত করেছে ব্রিটিশ মিডিয়া। অপরদিকে শান্তিতে নোবেল জয়ী অং সান সু চি প্রমাণ করেছেন যে, তিনি মানুষ হত্যার মহানায়ক। আর আমাদের দেশের নোবেলজয়ী ড. ইউনুস প্রমাণ করেছেন, দেশের কোনো সমস্যায় কোনো দিন তাকে পাওয়া যাবে না। দেশে বন্যার্তদের জন্য এক টাকা না দিলেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হিলারি ক্লিন্টনের নির্বাচনী ফান্ডে কোটি কোটি ডলার দিয়ে আসেন।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে বিএনপি-জামায়াত আবারও প্রাণ ফিরে পেয়েছে, দাবি করে যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, আজকে চীন, রাশিয়া, ভারতের মতো দেশের বিরোধিতা সত্বেও শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান ও তার স্ত্রী খালেদা জিয়ার সরকারের ব্যর্থতার কারণে লাখ লাখ রোহিঙ্গা আজ মিয়ানমারের নাগরিকত্ব থেকে বঞ্চিত। কারণ, সৌদি আরবের সাহায্য লাভের আশায় ১৯৭৮ সালে রোহিঙ্গাদের জন্য প্রথম সীমান্ত খুলে দেন জিয়াউর রহমান। এর পর খালেদা জিয়া ১৯৯২ ও ২০০৪ সালে সেই ধারা অব্যাহত রাখেন। জিয়াউর রহমান রোহিঙ্গা সলিডারিটি অর্গানাইজেশন পর্যন্ত গঠন করে দেন। বাংলাদেশের পাহাড়ি এলাকায় একসময় এই রোহিঙ্গারা অস্ত্র প্রশিক্ষণও নিতেন।

সম্মেলনের উদ্বোধন করেন ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট। আরো বক্তব্য রাখেন- যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ, যুবলীগ দক্ষিণের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা, দপ্তর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমান, শিক্ষা ও গবেষণা সম্পাদক মিজানুল ইসলাম মিজু, সোহরাব হোসেন স্বপন, যুগ্ম সম্পাদক এ কে এম মোমিনুল হক সাঈদ, সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী সারোয়ার হোসেন বাবু প্রমুখ।

সম্মেলনে নাসিরাবাদ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মনির হোসেন মোল্লা সভাপতিত্ব করেন। সভা পরিচালনা করেন প্রচার সম্পাদক আরমান হক বাবু।

সম্মেলন শেষে নাসিরাবাদ ইউনিয়ন যুবলীগ কমিটি বিলুপ্ত করে নতুন কমিটি গঠন করা হয়। সভাপতি হিসেবে মনির হোসেন মোল্লা, সহ-সভাপতি পদে আমজাদ হোসেন, মো. জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক পদে মাহবুবুল ইসলাম রাসেল, যুগ্ম সম্পাদক পদে আব্দুল্লাহ আল মোমেনকে নির্বাচিত করা হয়।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭/নৃপেন/রফিক

Walton
 
   
Marcel