ঢাকা, রবিবার, ৪ ভাদ্র ১৪২৫, ১৯ আগস্ট ২০১৮
Risingbd
শোকাবহ অগাস্ট
সর্বশেষ:

আ.লীগের জনসমর্থন শুন্যের কোটায় : এরশাদ

মোহাম্মদ নঈমুদ্দীন : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৩-১২ ৭:৫১:৪০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৩-১২ ৭:৫১:৪০ পিএম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের কঠোর সমালোচনা করে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, রাষ্ট্র পরিচালনায় বর্তমান সরকার ব্যর্থ। উন্নয়ন হয় শুধু ঢাকা। ঢাকার বাইরে মানুষের কী অবস্থা গ্রামে গেলে বুঝা যায়। আমি উচ্চকণ্ঠে বলতে পারি, সবকিছুতে ব্যর্থতার কারণে আওয়ামী লীগের জনসমর্থন এখন শুন্যের কোটায়।

সোমবার দুপুরে মতিঝিল এজিবি কলোনী কমিউনিটি সেন্টার মিলনায়তনে জাতীয় পার্টি ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আয়োজিত প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এরশাদ বলেন, খবরের পাতা খুললে দেখা যায় খুন, গুম, হত্যা, ধর্ষণ। এটা প্রতিদিনকার ঘটনা কিন্তু কোনো প্রতিকার নেই। নারী এখন ক্ষমতায়, কিন্তু প্রতিদিনই নারী ধর্ষিত হচ্ছে, নির্যাতিত হচ্ছে। ধর্ষকেরা জানে-ধর্ষণ করলে তাদের বিচার হবে না। তাই নারী নির্যাতন ধর্ষণ বাড়ছে।

‘প্রকৃতপক্ষে দেশে আইনের শাসন নাই, দেশে সুশাসনের খুব অভাব। মানুষের জীবনের নিরাপত্তা নাই। এসবের জন্য সরকার দায়ী। এ অবস্থায় দেশ চলতে পারে না। আমরা ক্ষমতায় আসলে দেশে শান্তি, শৃঙ্খলা, আইনের শাসন কায়েম করবো-বলেন সাবেক এ রাষ্ট্রপতি।

সরকারের সমালোচনা করে জাপা চেয়ারম্যান বলেন, আওয়ামী লীগ বলে-বাংলাদেশ মধ্য আয়ের দেশ। মধ্য আয়ের দেশ থেকে উন্নত দেশে চলছি, তাহলে পানির মধ্যে বস্তি কেন? চল্লিশ লাখ গরীব লোক বস্তিতে বসবাস করে। কেন বার বার বস্তিতে আগুন লাগে? অসহায় মানুষগুলো কীভাবে জীবনযাপন করে কেউ খবর রাখে না।

তিনি বলেন, যুবসমাজ ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। পানের দোকানে, চায়ের স্টলে, এখন ইয়াবা পাওয়া যায়। দেশের লাখ লাখ শিক্ষিত যুবক-যুবতি বেকার। সংসারের বোঝা বহন করতে না পেরে মাদকাসক্ত হয়ে নেশাগ্রস্ত হচ্ছে। এই অবস্থা থেকে যুবসমাজকে বাঁচাতে হবে। দেশকে মুক্তি দিতে হবে। আর এজন্য জাতীয় পার্টির বিকল্প নাই।



‘আমি ৯ বৎসর দেশ পরিচালনা করেছি, একটি মানুষও খুন হয়নি, কোনো গাড়ি পোড়ানো হয় নি, দেশ ছিল শান্তিতে। মানুষের মুখে হাসি ছিল। অনেক উন্নয়ন করেছি। সেই উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অতীতের সরকারগুলো ধরে রাখতে পারেনি-বলেন এরশাদ।

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীর সমালোচনা করে এরশাদ বলেন, রিজভী বলেছেন জাতীয় পার্টির নাকি কোনো লোক নাই। অথচ তাদের সমাবেশ করার জন্য মাঠ বরাদ্দ দেওয়া হয়-  আমাদের লোক আছে কি না-তা প্রমাণ হবে ২৪ মার্চ। আমি দেখাতে চাই, জাতীয় পার্টির কত লোক এবং সমর্থন আছে।

তিনি বলেন, বিএনপি আমাকে, আমার দলকে ধ্বংস করে দিতে চেয়েছিল। এজন্য অনেক অত্যাচার, নির্যাতন করেছে, কিন্তু আমাদের ধ্বংস করতে পারেনি। আমরা আরো ঘুরে দাঁড়িয়েছি।

নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে এরশাদ বলেন, ২৪ মার্চ ঐতিহাসিক মহাসমাবেশের জন্য প্রস্তুত আছেন কী? উত্তরে সবাই বলেন-স্যার আমরা প্রস্তুত আছি। আমরা দেখাতে চাই সাংগঠনিকভাবে আমরা অনেক শক্তিশালী। আমরা ক্ষমতায় যেতে প্রস্তুত। সংগ্রাম করে আমাদের বিজয় অর্জন করতে হবে। তোমরা প্রস্তুত হও।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপির সভাপতিত্বে প্রতিনিধি সভায় বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যন জি এম কাদের, দলের মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এমপি, অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন খান, প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু এমপি, মীর আবদুস সবুর আসুদ, হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, অধ্যাপিকা রওশন আরা মান্নান এমপি।

মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল আলম রুবেলের পরিচালনায় প্রতিনিধি সভায় উপস্থিত ছিলেন  প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিপু, সৈয়দ মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান, মেজর খালেদ আখতার (অব.), উপদেষ্টা ক্বারী হাবিবুল্লা বেলালী, ভাইস চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম জহির, আরিফুর রহমান খান, আলমগীর সিকদার লোটন, সরদার শাহজাহান, যুগ্ম মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, আশরাফ সিদ্দিকী, ইসহাক ভুইয়া, আমির উদ্দিন আহমেদ ডালু, নির্মল দাস, খোরশেদ আলম খুশু, এম এ রাজ্জাক খান, সালাহউদ্দিন খোকা মোল্লা, হারুন অর রশিদ, সৈয়দা পারভীন তারেক, হেলাল উদ্দিন, সুজন দে, মিজানুর রহমান মিরু, মিনি খান, দ্বীন ইসলাম শেখ, মাহবুবুর রহমান খসরু প্রমুখ।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১২ মার্চ ২০১৮/নঈমুদ্দীন/সাইফ

Walton Laptop
 
     
Walton