ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৪ মে ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

শান্তি সমাবেশ, জ‌ঙ্গিবা‌দের বিরু‌দ্ধে ঐক্যবদ্ধ লড়াইয়ের আহ্বান

রেজা পারভেজ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৪-৩০ ৪:০৬:৩৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৫-০৪ ৬:০০:২৮ পিএম
ছবি : এস কে রেজা পারভেজ
Walton AC

‌জ্যেষ্ঠ প্র‌তি‌বেদক : দলমত নির্বিশেষে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন ১৪ দলের নেতারা।

মঙ্গলবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে ১৪ দলের ‘শান্তি সমাবেশ’ থেকে এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

সভাপতির বক্তব্যে ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম জঙ্গিবাদ মোকাবিলায় শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বিএনপির সাংসদদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, সারা দুনিয়ার মানুষের কাছে আমাদের একটাই আওয়াজ, একটাই স্লোগান শ্রীলঙ্কা, নিউজিল্যান্ডসহ এসব জঘন্য সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সবাইকে দাঁড়াতে হবে। এদের কোনো ধর্ম নাই, বর্ণ নাই, দেশ নাই, দল নাই।

‘আমরা খুশি হয়েছি, ধন্যবাদ জানাই বিএনপির বন্ধুদের।  অনেক দেরিতে হলেও তারা সংসদে শপথ নিয়ে যোগদান করেছেন। আমরা আহ্বান করব শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে আপনারাও এগিয়ে আসুন। শেখ হাসিনার এ লড়াইয়ে আপনারাও এগিয়ে আসুন। আপনাদের ব্যর্থতাকে কাটিয়ে উঠে শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে এই অভিযাত্রায় অংশগ্রহণ করুন।’

সমাবেশে জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেন, জাত ধর্ম সব ভুলে গিয়ে আমরা মুক্তিযুদ্ধে যেমনভাবে যুদ্ধ করেছিলাম, তেমনিভাবে বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক শক্তি, জঙ্গিবাদী শক্তিকে প্রতিহত করতে হবে।

‘জঙ্গিবাদের প্রধান পৃষ্টপোষক, রাজনৈতিকভাবে যারা আশ্রয় প্রশ্রয় দিচ্ছে তাদের প্রতিহত করতে হবে। এখনও ধর্মের মুখোশধারীরা, হিন্দু ধর্মের প্রতি বিদ্বেষ ছড়াচ্ছে, নারীদের প্রতি বিদ্বেষ ছড়াচ্ছে, জঙ্গি সন্ত্রাসীদের উস্কানি দিচ্ছে। এরকম পরিস্থিতিতে রাজনৈতিকভাবে আমাদের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা দরকার।’

তি‌নি ব‌লেন, সিদ্ধান্ত হচ্ছে গণতন্ত্রের মধ্যে মাদ্রাসা শিক্ষা থাকবে। কিন্তু তেঁতুল তত্ব থাকবে না। বিভিন্ন ধর্মের উপাশানালয় থাকবে, মসজিদ মন্দির থাকবে কিন্তু সাম্প্রদায়িক তৎপরতা থাকতে পারবে না। এটা একটি রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত, এই রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে হলে, আমরা মুখোশধারীদের এক চুলও ছাড় দেব না। এই সিদ্ধান্ত রাজনৈতিক ভাবেই মোকাবিলা করতে হবে।

সমাবেশে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেন, আমাদের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বিভিন্ন ধর্মসভার নামে বিভিন্ন কার্যক্রম চালাচ্ছে। এখানে জঙ্গি আসবে না, এটা না আসার কোনো কারণ নেই।

‘আজকে আমাদের সরকারের মধ্যে আমাদের জননেত্রী শেখ হাসিনা সুস্পষ্ট নির্দেশ দিচ্ছে, দাঁড়িয়ে থেকে দৃড়ভাবে ভুমিকা পালন করছেন। অথচ আমাদের প্রশাসনের ভিতর থেকে এই যে সহযোগিতাগুলো হচ্ছে এটা যদি নির্মূল করা না যায় তাহলে, জঙ্গিবাদকে কার্যকরভাবে দমন করা যাবে না।’

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, সাবেক মন্ত্রী শাজাহান খান, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সাংসদ শফিকুর রহমান, লেখক আবুল মকসুদ, আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক আব্দুস সবুরসহ ১৪ দলের নেতারা সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।

 

 

রাই‌জিং‌বি‌ডি/ঢাক‌া/৩০ এ‌প্রিল ২০১৯/‌রেজা/সাইফ

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge