ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

শারীরিক উচ্চতা যেভাবে স্বাস্থ্যের ওপর প্রভাব ফেলে

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-১০-০১ ১২:১৫:৪৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-১০-০২ ১:১৭:০২ পিএম
প্রতীকী ছবি

এস এম গল্প ইকবাল : আপনি লম্বা হোন কিংবা বেঁটে, আপনার উচ্চতা আপনার জীবনে নানা উপায়ে প্রভাব ফেলবে। এ প্রভাব শুধুমাত্র অবজ্ঞাজনক উপনাম জুটে যাওয়ার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে না। আপনার স্বাস্থ্যের ওপরও প্রভাব ফেলছে আপনার উচ্চতা। কিভাবে? জানতে হলে পড়ুন-

১. লম্বা: হৃদরোগের ঝুঁকি কম
৩০ লাখ পুরুষ ও নারীর ওপর সম্পাদিত উচ্চতা বিষয়ক ৫২টি গবেষণার একটি রিভিউ ইউরোপিয়ান হার্ট জার্নালে প্রকাশিত হয়। এই রিভিউয়ের মতে, খাটো লোকেরা তাদের লম্বা সঙ্গীর তুলনায় ৫০ শতাংশ বেশি মারাত্মক হৃদরোগে ভুগে। নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিনের ২০১৫ সালের গবেষণা অনুসারে, ৫ ফুট ৩ ইঞ্চি উচ্চতার নারীদের চেয়ে ৫ ফুট ৮ ইঞ্চি উচ্চতার নারীদের মধ্যে হৃদরোগের বিকাশ ২৮ শতাংশ কম হয়। আপনি যদি সমলিঙ্গের কারো চেয়ে লম্বা হন, তাহলে বুঝবেন প্রতি ২.৫ ইঞ্চি বাড়তি উচ্চতার জন্য আপনার হৃদরোগের ঝুঁকি ১৪ শতাংশ কম।

২. লম্বা: টাইপ ২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কম
ইরানের গবেষকরা উচ্চতা সম্পর্কিত ১৮টি গবেষণা নিয়ে মেটা অ্যানালাইসিস করেন। এ বিশ্লেষণ থেকে জানা যায়, একজন নারী যত বেশি লম্বা হবে, তার মধ্যে টাইপ ২ ডায়াবেটিস বিকাশের সম্ভাবনা তত কম। এ ফলাফল লম্বা পুরুষদের ক্ষেত্রে সত্য নয়, তাদের উচ্চতার উপর টাইপ ২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি নির্ভর করে না। কেন শুধুমাত্র লম্বা নারীদের টাইপ ২ ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কম, এ ব্যাপারে গবেষকরা নিশ্চিত নন। নেদারল্যান্ডসে এক গবেষণায় পাওয়া যায়, লম্বা পুরুষরা ইনসুলিনের প্রতি বেশি সেনসিটিভ এবং তাদের লিভারে ফ্যাটের পরিমাণ কম থাকে, যা তাদের মধ্যে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি প্রতিকূলে যাওয়ার কারণ ব্যাখ্যা করতে পারে।

৩. লম্বা: ক্যানসারের ঝুঁকি বেশি
লম্বা হওয়ার নেতিবাচক দিকও আছে। লম্বা মানুষেরা প্রায় সব ধরনের ক্যানসারের বর্ধিত ঝুঁকিতে থাকে। এ কথা নারী-পুরুষ উভয়ের জন্য প্রযোজ্য। ক্যানসার এপিডেমিওলজি, বায়োমার্কারস অ্যান্ড প্রিভেনশনে প্রকাশিত এক গবেষণার মতে, উচ্চতায় প্রতি ৪ ইঞ্চি বৃদ্ধির জন্য নারীদের মধ্যে ১৯ ধরনের ক্যানসার বিকাশের সম্ভাবনা ১৩ শতাংশ বেশি। বিশেষ করে লম্বা পা-ওয়ালা নারীদের মেলোনোমা এবং ব্রেস্ট, ওভারি, এন্ড্রোমেট্রিয়াম ও কোলন ক্যানসার হওয়ার সম্ভাবনা ১৭ শতাংশ পর্যন্ত বেশি ছিল এবং কিডনি, রেক্টাম, থাইরয়েড ও ব্লাড ক্যানসার হওয়ার সম্ভাবনা ২৯ শতাংশ পর্যন্ত বেশি ছিল। ক্যানসার এপিডেমিওলজি, বায়োমার্কারস অ্যান্ড প্রিভেনশনে প্রকাশিত একটি গবেষণা অনুসারে, লম্বা পুরুষদের মধ্যে মূত্রথলির ক্যানসার বিকাশের সম্ভাবনা বেশি। লম্বা মানুষদের শরীরে অধিক কোষ থাকে, তাই এসব কোষের যেকোনোটি ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি। নেদারল্যান্ডসের সাম্প্রতিক এক গবেষণায় পাওয়া যায়, লম্বা মানুষেরা যখন মায়ের গর্ভে থাকে, তাদের ইনসুলিন লাইক গ্রোথ ফ্যাক্টর (একপ্রকার প্রোটিন, সোমাটোমেডিন সি নামেও পরিচিত) প্রক্রিয়া খাটো লোকদের আগে সক্রিয় হয়ে যায়, যা পালাক্রমে স্থায়ীভাবে কোষের বৃদ্ধিকে সক্রিয় করে কিছু ক্যানসারের ঝুঁকি বাড়াতে পারে।

৪. খাটো: রক্ত জমাটবদ্ধতার সম্ভাবনা কম
আর্টেরিওসক্লেরিওসিস, থ্রম্বসিস অ্যান্ড ভাস্কুলার বায়োলজিতে প্রকাশিত একটি গবেষণা থেকে পাওয়া যায়, আপনি যদি ৫ ফুট ৩ ইঞ্চির নিচে খাটো হয়ে থাকেন এবং আপনার ওজন যদি স্বাস্থ্যের অনুকূলে থাকে, তাহলে আপনার রক্ত জমাট বাঁধার সম্ভাবনা আপনার লম্বা বন্ধুদের থেকে তিনগুণ কম। লম্বা লোকের মধ্যে রক্ত বেশ দূরত্বে পাম্প হয় যা রক্তপ্রবাহ কমাতে পারে এবং স্ট্রোক সৃষ্টিকারী রক্ত জমাটবদ্ধতার ঝুঁকি বাড়াতে পারে। উচ্চতার চেয়েও স্থূলতা রক্ত জমাটবদ্বতার বড় ভবিষ্যতবক্তা। তাই আপনি যদি ৫ ফুট ৩ ইঞ্চির বেশি লম্বা হন এবং রক্ত জমাটবদ্ধতার ঝুঁকি কমাতে চান, তাহলে ওজনকে নিয়ন্ত্রণ করে স্বাস্থ্য অনুকূলে নিয়ে আসুন।

৫. খাটো: প্রেগন্যান্সির জন্য ঝুঁকিপূর্ণ
ডায়াবেটিক মেডিসিনের ২০১৪ সালের গবেষণা থেকে জানা যায়, সিটি ইউনিভার্সিটি অব নিউ ইয়র্কের গবেষকরা ২২০,০০০ সন্তান সম্ভাব্য নারীদের পর্যবেক্ষণ করে দেখতে পান যে, যেসব নারীরা গড় উচ্চতার (৫ ফুট ৬ ইঞ্চি) চেয়ে সামান্য লম্বা ছিল তাদের জেস্টেশনাল ডায়াবেটিস বা গর্ভাবস্থাকালীন ডায়াবেটিস (উচ্চ রক্ত শর্করার কারণে হয়ে থাকে যা শুধুমাত্র গর্ভবতী নারীদের প্রভাবিত করে) বিকশিত হওয়ার সম্ভাবনা ৫ ফুট ২ ইঞ্চি উচ্চতার সন্তান সম্ভাব্য নারীদের তুলনায় ১৮ থেকে ৫৯ শতাংশ কম ছিল। পিএলওএস মেডিসিনের গত বছেরর একটি গবেষণায় পাওয়া যায়, খুব কম উচ্চতা এবং অন্তঃসত্ত্বার সঙ্গে ত্রুটিপূর্ণ প্রেগন্যান্সি ও নির্ধারিত সময়ের পূর্বে বাচ্চা প্রসবের বর্ধিত ঝুঁকি জড়িত থাকে।

৬. লম্বা: অ্যালজেইমার’স রোগের ঝুঁকি কম
জার্নাল অব অ্যালজেইমার’স ডিজিজে প্রকাশিত এক গবেষণা অনুসারে, ৫ ফুট ৬ ইঞ্চি উচ্চতার খাটো পুরুষদের চেয়ে ৫ ফুট ১০ ইঞ্চি উচ্চতার ওপরের লোকদের মধ্যে অ্যালজেইমার’স রোগ বিস্তার লাভ করার সম্ভাবনা ৫৯ শতাংশ কম। লম্বা নারীদের ক্ষেত্রেও ফলাফল অনুকূলে ছিল। ইউনিভার্সিটি অব এডিনবার্গ’স কলেজ অব মেডিসিনের মতে, ৫ ফুট ৭ ইঞ্চি উচ্চতার নারীর ডিমেনশিয়া বা স্মৃতিভ্রংশ হওয়ার ঝুঁকি ৫ ফুট ১ ইঞ্চি উচ্চতার নারীর তুলনায় ৫০ শতাংশ কম। ব্রিটিশ বিজ্ঞানীরা বংশগত বিষয়ের চেয়ে দৈহিক উচ্চতার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত অন্যান্য পরিবেশগত বিষয়ের, যেমন- শৈশবকালীন অসুস্থতা, মানসিক চাপ ও পুষ্টিস্বল্পতা, দিকে দৃষ্টিপাত দিচ্ছেন।

৭. খাটো: স্ট্রোকের ঝুঁকি বেশি
ইসরায়েলের গবেষকরা ১০,০০০ পুরুষের ওপর গবেষণা চালিয়ে আবিষ্কার করেন যে, গবেষণায় অংশগ্রহণকারী লম্বা ব্যক্তির দলের তুলনায় খাটো ব্যক্তির দলটির মারাত্মক স্ট্রোকের ঝুঁকি ছিল ৫৪ শতাংশ বেশি। আমেরিকান জার্নাল অব এপিডেমিওলজি থেকে জানা যায়, লম্বা নারীদের চেয়ে খাটো নারীদের গুরুতর স্ট্রোকের সম্ভাবনা বেশি ছিল। দৈহিক উচ্চতার সঙ্গে স্ট্রোকের ঝুঁকিপূর্ণ সম্পর্কের কারণ কি? বিজ্ঞানীরা এ ব্যাপারে খুব একটা নিশ্চিত নন, কিন্তু তারা ধারণা করছেন যে, বেড়ে ওঠার বছরগুলোতে পুষ্টিস্বল্পতা অথবা কোনো পরিবর্তিত হরমোনগত প্যাটার্নের কারণে শারীরিক বিকাশ ও বৃদ্ধির সঙ্গে স্ট্রোকের ঝুঁকির সম্পর্ক থাকতে পারে।

৮. খাটো: দীর্ঘ জীবন
বায়োডেমোগ্রাফি অ্যান্ড সোশ্যাল বায়োলজির এক গবেষণা মতে, গবেষকরা সত্তরে পৌঁছা সৈন্যদের পর্যবেক্ষণ করে দেখতে পান যে, ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি উচ্চতার নিচের খাটো পুরুষ সৈনিকরা অন্যদের তুলনায় দুই বছর বেশি বেঁচেছিল। একই গবেষকদের অন্য এক গবেষণায় পাওয়া যায়, আমেরিকার পুরুষদের মধ্যে যারা খাটো ও হালকা ছিল, তারা লম্বা ও ভারী লোকদের চেয়ে বেশিদিন বেঁচে ছিল। গবেষকরা ইঙ্গিত করেন যে, দীর্ঘায়ু জীবনলাভের অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের (যেমন- শরীরের ওজন, জিন, মানসিক চাপ, ধূমপান, পানীয় অভ্যাস) ন্যায় উচ্চতাও দীর্ঘায়ু হওয়ার জন্য অবদান রাখে। ইউনিভার্সিটি অব হাওয়াইয়ের বিজ্ঞানীরা ২০১৪ সালে একটি বিশেষ জিন আবিষ্কার করেন, যাকে দীর্ঘায়ু জিন হিসেবে অভিহিত করা হচ্ছে। দীর্ঘ জীবনকাল ও খাটো উচ্চতা উভয়ের ওপর এ জিনের প্রত্যক্ষ প্রভাব রয়েছে।

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১ অক্টোবর ২০১৭/ফিরোজ

Walton
 
   
Marcel