ঢাকা, বুধবার, ৩ আশ্বিন ১৪২৫, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

উইডোমেকার হার্ট অ্যাটাক প্রতিরোধের ৭ উপায়

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৮-১৬ ২:৪৮:২৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৮-১৬ ২:৪৮:২৩ পিএম
প্রতীকী ছবি

এস এম গল্প ইকবাল : হার্ট অ্যাটাকের মধ্যে সবচেয়ে মারাত্মক হচ্ছে, উইডোমেকার। জীবনহুমকিমূলক এই হার্ট অ্যাটাক প্রতিরোধে আপনাকে কিছু বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। এ প্রতিবেদনে উইডোমেকার হার্ট অ্যাটাক প্রতিরোধের ৭ উপায় আলোচনা করা হলো।

* হার্টের শত্রু চিনুন

অ্যাথোরোস্ক্লেরোসিসের কারণে কোনো আর্টারিতে ব্লকেজ হলে হার্ট অ্যাটাক হয়ে থাকে। অ্যাথেরোস্ক্লেরোসিস হচ্ছে এমন একটি প্রক্রিয়া যেখানে আর্টারির দেয়ালে চর্বি জমে বা প্লেক সৃষ্টি হয়। কিন্তু আর্টারিতে চর্বি থাকলেই যে আপনি অবধারিতভাবে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকিতে আছেন তা নয়। ইউনিভার্সিটি অব পেনসিলভানিয়ার অন্তর্গত পেরেলম্যান স্কুল অব মেডিসিনের ক্লিনিক্যাল কার্ডিওভাস্কুলার মেডিসিন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক হেলেন গ্লাসবার্গ বলেন, ‘হৃদপিণ্ড ৪০ থেকে ৫০ শতাংশ ব্লকেজ সহ্য করতে পারে।’ ৭০ শতাংশ বা তার বেশি ব্লকেজের ক্ষেত্রে আপনি বুকে ব্যথা অনুভব শুরু করবেন। ৪০ থেকে ৯০ শতাংশ ব্লকেজ জীবনহুমকিমূলক হার্ট অ্যাটাক সৃষ্টি করতে পারে। প্লেক অধিকাংশ ক্ষেত্রে সফট ও আনস্টেবল। প্রায় ২৫ শতাংশ হার্ট অ্যাটাক হয় ধীরে ধীরে চর্বি জমা থেকে, যা ক্যালসিফায়েড প্লেক উৎপাদন-প্রবণ। প্লেকের ওপরের পাতলা ও ফাইব্রাস ক্যাপ ছিঁড়ে যায় এবং ফ্যাটি ম্যাটারিয়াল রক্তনালীতে ছড়িয়ে পড়ে। আপনার শরীর এটাকে কোনো ইনজুরি বলে ধরে নেয় এবং ক্ষতটি ঢাকার জন্য ক্লটিং ফ্যাক্টর ও প্লেটলেটস রিলিজ করে। এক মিনিটের মধ্যেই ব্লাড ক্লট বা রক্ত জমাটবদ্ধতা গঠিত হয়। হঠাৎ করে সহনীয় ৪০ বা ৫০ শতাংশ ব্লকেজ বড় ধরনের প্রতিবন্ধকতায় রূপ নেয়। স্ট্যাবল প্লেক ও আনস্ট্যাবল প্লেক উভয় ধরনের প্লেকের ভেতরের কোষগুলো ইনফ্ল্যামেটরি, যার মানে হচ্ছে তারা চালু ইমিউন-সিস্টেম অ্যাটেনশনকে আকর্ষণ করতে পারে। ডা. গ্লাসবার্গ বলেন, ‘ধূমপান, প্রক্রিয়াজাত খাবার ভোজন, অতিরিক্ত ওজন এবং উচ্চ কোলেস্টেরলের মতো রিস্ক ফ্যাক্টর এসব কোষকে আরো উত্তেজিত করতে পারে এবং অধিক বিদারণ-প্রবণ করতে পারে।’ এসব রিস্ক ফ্যাক্টর এড়িয়ে চলে আপনি প্লেক গঠনের ঝুঁকি হ্রাস করতে পারেন।

* আপনার হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি গণনা করুন

কোনো ওয়েব ব্রাউজারে এএসসিভিডি রিস্ক ইস্টিমিটর (এএসসিভিডি’র পূর্ণরূপ হলো, অ্যাথেরোস্ক্লেরোসিস কার্ডিওভাস্কুলার ডিজিজ) লিখে সার্চ দিন এবং আমেরিকান কলেজ অব কার্ডিওলজির এএসসিভিডি রিস্ক ইস্টিমিটর প্লাসে ক্লিক করুন। আপনার বয়স, কোলেস্টেরল (এইচডিএল এবং এলডিএল) ও রক্তচাপের সংখ্যা লিখুন এবং কিছু প্রশ্নের হ্যাঁ/না উত্তর দিন। এটি আগামী দশ বছরে আপনার অ্যাথেরোস্ক্লেরোসিস ঝুঁকি কত শতাংশ তা পরিমাপ করবে। যদি আপনার স্কোর ৭.৫ শতাংশ বা তার বেশি হয়, তাহলে আপনার চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলুন যে ঝুঁকি কিভাবে কমানো যায়। তবে স্কোর এর চেয়ে কম হলেও চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া ভালো, যিনি আপনার সার্বিক ঝুঁকি নিয়ে কথা বলবেন। আপনার ঝুঁকি নির্ণয় করতে আপনার কোলেস্টেরল ও রক্তচাপের সংখ্যা জানতে হবে, তাই ৩৫ বছর বয়স থেকেই প্রতি চার থেকে ছয় বছর পরপর ব্লাড ওয়ার্ক গুরুত্বপূর্ণ।

* অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ টেস্ট সম্পর্কে জানুন

করোনারি-আর্টারি ক্যালসিয়াম স্ক্যান হচ্ছে একটি ননইনভেসিভ টেস্ট, যা প্রকৃত প্লেক অনুসন্ধান করতে করোনারি আর্টারির ভেতরটা দেখে। এটি হচ্ছে আপনার সার্বিক প্লেক রিস্ক জানার সবচেয়ে ভালো উপায়। এরকম স্ক্যান শুধুমাত্র শক্ত, পুরোনো ও স্ট্যাবল প্লেক শনাক্ত করতে পারে, তাই এটি অবধারিতভাবে আসন্ন হার্ট অ্যাটাক অনুমান করতে পারে না। ডা. গ্লাসবার্গ বলেন, ‘কিন্তু যদি আপনার প্রচুর ক্যালসিয়াম থাকে, আপনার সম্ভবত নরম প্লেক থাকবে।’ অনেক চিকিৎসক ইনফ্ল্যামেশনের ব্লাড-কম্পোনেন্ট ইন্ডিকেটর হাই-সেনসিটিভিটি সি-রিঅ্যাক্টিভ প্রোটিন পরিমাপ করতে টেস্ট করতে বলেন, যার উচ্চমাত্রা হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকির সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। যদি আপনি ইতোমধ্যে এই প্রোটিনের পরিমাণ জেনে থাকেন, তাহলে রেইনল্ডস রিস্ক স্কোর ডট অর্গে ভিজিট করুন এবং রেইনল্ডস রিস্ক ইস্টিমেটর পূরণ করুন, যা আগামী ১০ বছরে আপনার কার্ডিওভাস্কুলার রোগের ঝুঁকি হিসাব করবে। যেসব রোগী ইনভেসিভ কার্ডিয়াক টেস্টিং (করোনারি অ্যানজিওগ্রাম, ক্যাথেটারাইজেশন) প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে গেছেন তাদের এটি প্রয়োজন নেই, কারণ তাদের উল্লেখযোগ্য আর্টারিয়াল অবস্ট্রাকশন বা ধমনীয় প্রতিবন্ধকতা পাওয়া গেছে। একটি নতুন টেকনোলজি হচ্ছে হার্টফ্লো, যা অনুমানভিত্তিক ঝুঁকির ক্যালকুলেশন হ্রাস করে এবং রোগীর অভিজ্ঞতা উন্নত করে। ননইনভেসিভ সিটি স্ক্যানের ডাটা নিয়ে হার্টফ্লো আপনার করোনারি আর্টারির একটি কালার-কোডেড থ্রিডি মডেল তৈরি করে এবং কোনো ব্লকেজ কতটুকু রক্তপ্রবাহ ব্যাহত করছে তা ক্যালকুলেট করে। এটি কার্ডিওলজিস্টকে অধিক নির্ভুলভাবে মূল্যায়ন করতে সাহায্য করে।

* হৃদরোগের পারিবারিক ইতিহাস বিবেচনা করুন

ঝুঁকির হিসেবকে উপেক্ষা করা যাবে না। জার্নাল অব আমেরিকান কলেজ অব কার্ডিওলজিতে প্রকাশিত একটি সাম্প্রতিক গবেষণা অনুসারে, কার্ডিওভাস্কুলার রিস্ক ফ্যাক্টর নেই এমন লোকদের অর্ধেকের অন্ততপক্ষে প্রাথমিক পর্যায়ের অ্যাথেরোস্ক্লেরোসিস রয়েছে। তাই হৃদরোগের পারিবারিক ইতিহাস বিবেচনা করা ভালো। ডা. গ্লাসবার্গ বলেন, ‘আমাদের অনেকেই হৃদরোগের জেনেটিক্স সম্পর্কে জানে না। যদি আপনার পরিবারে সম্প্রতি কারো হার্ট অ্যাটাক হয়ে থাকে, রিং বসানো হয়ে থাকে অথবা ৫৫ (পুরুষের ক্ষেত্রে) এবং ৬৫ (নারীর ক্ষেত্রে) বছর বয়সের পূর্বে কারো মধ্যে অ্যাথেরোস্ক্লেরোসিস নির্ণীত হয়ে থাকে, তাহলে আপনার চিকিৎসককে জানান।’

* ফ্যাড ডায়েটকে না বলুন
ফ্যাড ডায়েট (দ্রুত ওজন কমানোর ডায়েট) মেনে চলার মতো ব্যর্থ প্রচেষ্টা থেকে দূরে থাকুন। এই ডায়েট খুব একটা কাজ করে না, কারণ এটি টেকসই নয়। এর পরিবর্তে এটি স্মরণ করুন: তিন জনগোষ্ঠীর ওপর পরিচালিত গবেষণার একটি বিশ্লেষণে নিম্নমান ও অস্বাস্থ্যকর খাবার ভোজনের তুলনায় উচ্চমান ও স্বাস্থ্যকর খাবার ভোজনের সঙ্গে করোনারি-আর্টারি রোগের ঝুঁকি হ্রাসের সংযোগ খুঁজে পেয়েছে। তাই নির্দিষ্ট পুষ্টির জন্য আপনার দুশ্চিন্তা করার প্রয়োজন নেই এবং এমনকি প্রধানত শাকসবজি, ফল, হোলগ্রেন, বাদাম, লেগিউম, দই এবং পরিমিত পরিমাণে রেড মিট ও প্রসেসড মিট, রিফাইনড গ্রেন, মিষ্টান্ন খাবার, মাখন ও শুকনো খাবার খাওয়ার সময় ক্যালরি কাউন্ট করা নিয়ে মাথা ঘামানোর প্রয়োজন নেই। ড্যাশ ডায়েট আপনার জন্য অধিক কার্যকর হবে, এ ডায়েটে উপরে উল্লেখিত খাবারসমূহ আছে। এ ডায়েট যেকোনো অ্যান্টি-হাইপারটেনসিভ ড্রাগের তুলনায় রক্তচাপ বেশি হ্রাস করে।

* সঠিক উপায়ে ব্যায়াম করুন

ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিকের কার্ডিওভাস্কুলার মেডিসিনের সভাপতি স্টিভেন নিসেন বলেন, ‘আমি জিমে ভারী ওজন উত্তোলন করে এমন পুরুষদের দেখেছি, যাদের পেটে এখনো চর্বি বাড়ছে। তারা মনে করে যে তারা ফিট, কারণ তারা স্ট্রং, কিন্তু আসলে তা নয়। আপনার অ্যারোবিক্যালি ফিট হওয়ার প্রয়োজন আছে।‘ স্ট্রেংথের ভারসাম্য রক্ষা করা এবং কার্ডিও অনুশীলন হচ্ছে আদর্শ, কিন্তু রেজিস্ট্যান্স ট্রেনিং সাধারণত দীর্ঘসময় ধরে আপনার হার্ট রেট বৃদ্ধি করবে না, যা কার্ডিও ওয়ার্কআউট করে। প্রতি সপ্তাহে সিডিসি (যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংস্থা) সুপারিশকৃত ১৫০ মিনিট মডারেট ইন্টেনসিটি (অথবা ৭৫ মিনিট ভিগোরাস ইন্টেনসিটি) কার্ডিও করার চেষ্টা করুন। এমনকি যেসব লোকেরা অর্ধেক করেছে (প্রতিদিন প্রায় ১৫ মিনিট মডারেট অ্যাক্টিভিটি) তাদের নিষ্ক্রিয় লোকদের তুলনায় মরটালিটি রিস্ক হ্রাস পেয়েছে এবং জীবনে গড়ে ৩ বছর যোগ হয়েছে, তাইওয়ানীজ গবেষণা অনুসারে।

* প্রেসক্রাইবড ওষুধ সেবন করুন

যদি আপনার ঝুঁকি মারাত্মক হয়, চিকিৎসক আপনাকে কোলেস্টেরল-হ্রাসকারী ওষুধ স্ট্যাটিন প্রেসক্রাইব করতে পারেন, এমনকি আপনার মধ্যে হৃদরোগ নির্ণীত না হলেও। নর্থওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির ফেইনবার্গ স্কুল অব মেডিসিনের অন্তর্গত মেডিসিন অ্যান্ড প্রিভেনটিভ মেডিসিনের সহকারী অধ্যাপক ম্যাথু ফেইনস্টেইন বলেন, ‘দেখা গেছে যে স্ট্যাটিন আনস্টেবল প্লেক জমা সীমিত করে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি ২৫ থেকে ৩৩ শতাংশ কমিয়ে ফেলে।’ এই ওষুধ প্রদাহও হ্রাস করে। যদি স্ট্যাটিন অকার্যকর প্রমাণিত হয় অথবা পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কারণে অসহনীয় হয়, তাহলে নতুন পিসিএসকে৯ ইনহিবিটর (প্রালুয়েন্ট, রেপাথা) এলডিএল কোলেস্টেরল ও হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমাতে পারে, বলেন ডা. বেইলি। এছাড়া আপনার চিকিৎসক দৈনিক ৮১ মিলিগ্রাম অ্যাসপিরিন দিতে পারেন, যদি আপনার ঝুঁকি মধ্যম বা উচ্চ হয় অথবা প্লেক বার্ডেন উল্লেখযোগ্য হয়।

তথ্যসূত্র : ম্যান’স হেলথ

পড়ুন : উইডোমেকার কেন সবচেয়ে মারাত্মক হার্ট অ্যাটাক




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৬ আগস্ট ২০১৮/ফিরোজ

Walton Laptop
 
     
Walton