ঢাকা, সোমবার, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২৭ মে ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

যে ১৩ কারণে রক্তদান করা যায় না

এস এম গল্প ইকবাল : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০২-২৩ ১০:২৮:০১ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০২-২৪ ৬:২১:৪২ পিএম
প্রতীকী ছবি
Walton AC

এস এম গল্প ইকবাল : ব্লাড ডোনেশন বা রক্তদান একটি মহৎ কাজ। কিন্তু কিছু বিষয়ে সতর্ক না থাকলে এ মহৎ কাজটি হতে পারে রক্ত গ্রহীতার জন্য বিপজ্জনক।

আপনি চাইলেই রক্তদান করতে পারেন না, এর জন্য শারীরিকভাবে সুস্থ থাকতে হবে। নিশ্চিত হতে হবে যে আপনার এমন কোনো স্বাস্থ্য সমস্যা বা অভ্যাস নেই যা রক্ত গ্রহীতার স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এখানে আলোচিত ১৩টি কারণেও একজন ডোনার বা রক্তদাতা রক্তদানের জন্য যোগ্য বিবেচিত হবেন না।

* আপনি ওষুধ সেবন করছেন : অধিকাংশ ওষুধ আপনাকে রক্তদানে অযোগ্য করে তোলে না, কিন্তু কিছু ওষুধের চূড়ান্ত ডোজের পর একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়। অ্যাবটের অ্যাপ্লায়েড রিসার্চ অ্যান্ড টেকনোলজির ডিভিশনাল ভাইস প্রেসিডেন্ট জন আর. হ্যাকেট বলেন, ‘যদি আপনি অ্যান্টিবায়োটিকের ওষুধ গ্রহণ করেন, তাহলে সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত আপনাকে অপেক্ষা করতে হতে পারে; যদি আপনি অ্যাসপিরিন সেবন করেন ও প্লেটিলেট ডোনেট করেন, তাহলে আপনাকে অ্যাসপিরিন বা অন্য কোনো অ্যাসপিরিন সমৃদ্ধ ওষুধ সেবনের পর রক্তদানের পূর্বে পূর্ণ দুই দিন অপেক্ষা করতে হবে।’

* আপনি সম্প্রতি টিকা নিয়েছেন : এটি ফ্লু বা এইচপিভি’র (গার্ডেসিল ভ্যাকসিন) মতো কিছু কমন টিকার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়। ক্যালিফোর্নিয়ার ল্যাগুনা হিলসে অবস্থিত মেমোরিয়ালকেয়ার স্যাডলব্যাক মেডিক্যাল সেন্টারের ট্রান্সফিউশন সার্ভিসেস অ্যান্ড ব্লাড ডোনার সেন্টারের মেডিক্যাল ডিরেক্টর থমাস হিরোস বলেন, ‘কিছু টিকায় জীবন্ত ইনফেকশাস অ্যাজেন্ট থাকে। যে ব্যক্তি টিকার মাধ্যমে জীবন্ত ইনফেকশাস অ্যাজেন্ট এক্সপোজ করেছেন তার একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত রক্তদান করা উচিৎ নয়।’ উদাহরণস্বরূপ, হাম, শিনগ্লেস ও চিকেন পক্স বা জলবসন্তের টিকা নেওয়ার পর রক্তদানের জন্য অন্তত চার সপ্তাহ অপেক্ষা করা উচিৎ, শেয়ারকেয়ারের প্রতিবেদন অনুসারে। কতদিন অপেক্ষা করা উচিৎ তা চিকিৎসক বা ডোনেশন সেন্টার থেকে জেনে নিন।

* আপনি মানহীন প্রতিষ্ঠান থেকে ট্যাটু করেছেন : আদর্শ ট্যাটুর ক্ষেত্রে যন্ত্রপাতিকে সঠিকভাবে জীবাণুমুক্ত করা ও কালির পুনর্ব্যবহার এড়িয়ে চলা গুরুত্বপূর্ণ। অনিরাপদ ট্যাটুর কারণে আপনার ভাইরাল ইনফেকশন হতে পারে। ট্যাটু করার পর রক্তদানের পূর্বে নিশ্চিত হতে হবে যে আপনার কোনো ইনফেকশন নেই। যদি মানহীন প্রতিষ্ঠান থেকে ট্যাটু করে থাকেন, তাহলে রক্তদানের পূর্বে আপনাকে ১২ মাস অপেক্ষা করতে হবে।

* আপনি হেপাটাইটিস বা এইচআইভি পজিটিভ : যেহেতু এইচআইভি বা হেপাটাইটিস রক্তের মাধ্যমে ছড়াতে পারে, তাই উভয় কন্ডিশনের যেকোনোটির ক্ষেত্রে টেস্টে পজিটিভ প্রমাণিত হলে আপনি রক্তদান করতে পারেন না। বিভারলি হিলস কনসিয়ের্জের চিকিৎসক এহসান আলি বলেন, ‘যেহেতু কিছু হেপাটাইটিসের চিকিৎসা করা যায় না এবং লিভার বিকল ও লিভার ক্যানসারের মতো মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে, তাই আপনার এসব রোগ থাকলে রক্তদান অত্যধিক ঝুঁকিপূর্ণ।’

* আপনি সম্প্রতি দেশের বাইরে বেড়াতে গেছেন : রক্তদানের রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে, ব্লাড সেন্টারের কর্মকর্তারা জানতে চাইবেন যে আপনি সম্প্রতি দেশের বাইরে গিয়েছিলেন কিনা। কারণ, আপনার রক্তবাহিত কিংবা ছোঁয়াচে ইনফেকশন থাকতে পারে, বলেন ডা. হ্যাকেট। উদাহরণস্বরূপ, যদি আপনি গত তিন বছরে ম্যালেরিয়ার ঝুঁকিপ্রবণ এলাকায় গিয়ে থাকেন, তাহলে রক্তদানের পূর্বে আপনাকে একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে অথবা যদি আপনি ম্যাড কাউ রোগ পাওয়া গেছে এমন দেশে ভ্রমণ করে থাকেন, তাহলে আপনি রক্তদানে অযোগ্যও হতে পারেন। এ প্রক্রিয়াকে সহজ করতে আপনি গত তিন বছরে কোথায় কোথায় বেড়াতে বা কাজে গেছেন তার একটি তালিকা তৈরি করুন। এ বিষয়গুলো বিবেচনা করুন: কত তারিখে গিয়েছেন, কতদিন থেকেছেন, কোন ধরনের পরিবহন ব্যবহার করেছেন এবং কোন তারিখে ভ্রমণকৃত দেশটি ছেড়েছেন।

* আপনার ওজন অত্যধিক কম : যদি আপনার ওজন ১১০ পাউন্ডের নিচে হয়, তাহলে আপনি রক্তদানের জন্য যোগ্য নন। নিউ ইয়র্ক সিটিতে অবস্থিত নিউ ইয়র্ক ডায়ানামিক নিউরোমাস্কুলার রিহ্যাবিলিটেশন অ্যান্ড ফিজিক্যাল থেরাপির স্বত্ত্বাধিকারী এবং কায়রোপ্র্যাক্টিকের চিকিৎসক লেভ কালিকা বলেন, ‘কম ওজনের লোকদের থাকে নিম্ন ব্লাড ভলিউম, একারণে তারা তাদের শরীর থেকে রক্ত অপসারণ সইতে পারে না।’

* আপনি ভালো অনুভব করছেন না অথবা আপনি অসুস্থ : যদি আপনি রক্তদানের দিন ভালো অনুভব না করেন (সর্দি-জ্বর, গলাব্যথা ও তীব্র মাথাব্যথার কারণে), তাহলে শিডিউল পরিবর্তন করুন। আপনার উপসর্গ চলে না যাওয়া পর্যন্ত অন্তত ৪৮ ঘণ্টা অপেক্ষা করুন। ডা. হ্যাকেট বলেন, ‘রক্তদানের সময় আপনার শরীরকে ভালো অবস্থায় থাকতে হবে। কিন্তু অ্যালার্জি আপনাকে রক্তদান থেকে বিরত রাখতে পারে না- যদি আপনি ভালোভাবে শ্বাস নিতে পারেন এবং জ্বর না থাকে, তাহলে আপনি রক্তদান করতে পারেন।’

* আপনার আয়রনের মাত্রা অত্যল্প বা অত্যধিক : যদি নারী ও পুরুষদের যথাক্রমে ১২.৫ জি/ডিএল এবং ১৩.০ জি/ডিএল এর চেয়ে কম আয়রন থাকে, তাহলে তারা রক্তদানের জন্য অযোগ্য। এই কারণে ফ্রিকোয়েন্ট ডোনারদের (যারা ঘনঘন রক্ত দেন), বিশেষ করে নারী, তাদের আয়রন মাত্রাকে স্বাভাবিক পরিধির মধ্যে রাখতে আয়রন সাপ্লিমেন্ট ও আয়রন সমৃদ্ধ খাবার খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। তারপরও আপনার আয়রনের মাত্রা চেক করতে হবে- কারণ, অত্যধিক আয়রনও রক্তদানে অযোগ্য করে। ডা. হিরোস বলেন, ‘উচ্চ রক্ত আয়রনের মাত্রা হৃদরোগ, হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক, কিছু ক্যানসার ও অন্যান্য মারাত্মক স্বাস্থ্য সমস্যার ঝুঁকি বৃদ্ধি করে। যদি আপনার হিমোগ্লোবিনের মাত্রা ১৮ জিএম/ডিএলের ওপরে হয়, তাহলে আপনার অবস্থা মূল্যায়নের জন্য চিকিৎসকের কাছে যাওয়া উচিৎ।’

* আপনি সমকামী : যদি আপনি সমকামী হয়ে থাকেন, তাহলে রক্তদানের পূর্বে আপনার সবশেষ যৌন সম্পর্ক থেকে অবশ্যই ১২ মাস অপেক্ষা করতে হবে, বলেন ডা. আলি। অন্যান্যদের মাঝে যৌনবাহিত রোগ (যেমন- এইচআইভি) ছড়ানো প্রতিরোধের জন্য এরকম নির্দেশিকা প্রণয়ন করা হয়েছে।

* আপনার ক্যানসার ছিল : রক্তদানের মাধ্যমে ক্যানসার ছড়ানোর ঝুঁকিকে উপেক্ষা করা হলেও ক্লোভার হেলথের চিফ সায়েন্টিফিক অফিসার ও জেরিয়াট্রিশিয়ান কুমার ধর্মার্জন রক্তগ্রহীতাকে রক্ষা করতে ক্যানসার আছে এমন রক্তদাতাকে কিছু নীতি মেনে চলতে হবে বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি বলেন, ‘আপনি রক্তদান করতে পারবেন না যদি আপনার ক্যানসারের চিকিৎসা চলে, যদি আপনার ক্যানসার ছড়াতে থাকে, যদি আপনার ক্যানসার ফিরে আসে অথবা যদি আপনার রক্ত ক্যানসার থাকে বা ছিল (যেমন- লিউকেমিয়া বা লিম্ফোমা) কিংবা যদি আপনার কাপোসি সারকোমা থাকে বা ছিল।’

* আপনি গর্ভবতী : গর্ভবতী নয় এমন নারীদের তুলনায় গর্ভবতী নারীদের শরীরে রক্ত সংবহন বেশি হলেও বাচ্চা প্রসবের পর রক্তদানের জন্য তাদেরকে অবশ্যই অন্তত ছয় সপ্তাহ অপেক্ষা করতে হবে। ডা. হ্যাকেট বলেন, ‘আপনার গর্ভাবস্থায় আপনাকে যতটা সম্ভব সুস্থ থাকতে হবে।’ ১৮ গ্রাম আয়রনসহ মাল্টিভিটামিন গ্রহণের জন্য আপনার চিকিৎসকের সঙ্গে কথা বলুন, যাতে আপনি বাচ্চা প্রসব পরবর্তী নির্দিষ্ট সময়ের পর রক্তদান করতে পারেন।

* আপনি সম্প্রতি কান ফুটো বা ইলেক্ট্রোলাইসিস করেছেন : যদি আপনি পুনরায় ব্যবহারযোগ্য যন্ত্রপাতি দিয়ে কান বা শরীর ফুটো বা ইলেক্ট্রোলাইসিস করে থাকেন, তাহলে রক্তদানের পূর্বে ১২ মাস অপেক্ষা করতে হবে, বলেন ডা. হ্যাকেট। তিনি যোগ করেন, ‘যদি আপনার যন্ত্রপাতি একবার ব্যবহারযোগ্য হয়, তাহলে অপেক্ষা করার প্রয়োজন নেই, কিন্তু আপনাকে নিশ্চিত হতে হবে যে যন্ত্রপাতিগুলো নতুন ও জীবাণুমুক্ত ও পূর্বে ব্যবহার করা হয়নি।’

* আপনার সম্প্রতি সিফিলিস হয়েছে : যদি আপনার সিফিলিস হয়ে থাকে, তাহলে এ অসুস্থতার চিকিৎসার পর রক্তদানের জন্য আপনাকে অবশ্যই ১২ মাস অপেক্ষা করতে হবে। ডা. আলি বলেন, ‘সিফিলিস হলো একটি ইনফেকশন যা শরীরের সর্বত্র ছড়াতে পারে। এটির চিকিৎসা করা সত্ত্বেও কখনো কখনো পুনরায় চিকিৎসার প্রয়োজন হতে পারে।’ সিফিলিস স্থায়ী স্বাস্থ্য সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে।

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট

পড়ুন : গর্ভবতী নারীর রক্তদান গ্রহণ পুরুষের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ!




রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯/ফিরোজ

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge