ঢাকা, বুধবার, ১৩ বৈশাখ ১৪২৪, ২৬ এপ্রিল ২০১৭
Risingbd
Risingbd
সর্বশেষ:

১০ হাজার ডার্ক ওয়েবসাইট অচল

মনিরুল হক ফিরোজ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০২-১৬ ৪:৫৭:১৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০২-১৬ ৫:১২:০৯ পিএম

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : ভার্চুয়াল দুনিয়ার ত্রাস হিসেবে পরিচিত বিশ্বের এক নম্বর হ্যাকিং গ্রুপ ‘অ্যানোনিমাস’ এর এক সদস্য অন্তত ১০ হাজার ডার্ক ওয়েবসাইট অচল করে দিয়েছে শিশু পর্নোগ্রাফির কারণে এবং সাইটগুলো থেকে ব্যক্তিগত তথ্য চুরি করেছে।

আমরা যে ইন্টারনেট জগতে বাসিন্দা, এই ইন্টারনেট জগতের অন্তরালে রয়েছে আরো একটি জগত। যার নাম ডার্ক ওয়েব। এটি হচ্ছে, ইন্টারনেটের অন্ধকার জগত, যা সাধারণ ব্যবহারকারী কখনোই জানেন না। কেননা গুগল সার্চে এসব ওয়েবসাইটগুলো প্রদর্শিত হয় না। এগুলোতে বেআইনি ওষুধ ও মাদক, আগ্নেয়াস্ত্র, নকল বা জাল অর্থ, চুরি করা জিনিসপত্র, নকল বিভিন্ন সার্টিফিকেট ও অবৈধ পাসপোর্ট প্রভৃতি অবৈধ কর্মকাণ্ড পরিচালিত হয়।

ডার্ক ওয়েবসাইটের অ্যাডমিনরা তাদের পেজ ইনডেক্স না করায় গুগল এসব সাইট খুঁজে বের করতে পারে না। সাধারণ ব্রাউজার দিয়ে ডার্ক ওয়েবে প্রবেশও করা যায় না। ডার্ক ওয়েবে প্রবেশের জন্য টর ব্রাউজারের মতো বিশেষ নেটওয়ার্কের সাহায্য নিতে হয়।

ডার্ক ওয়েবসাইট হোস্টিংয়ের সবচেয়ে বড় প্লাটফর্ম ‘ফ্রিডম হোস্টিং ২’ এর সার্ভারে এবার আক্রমন চালিয়েছে অ্যানোনিমাস হ্যাকার গ্রুপের এক হ্যাকার। এবং অন্তত ১০ হাজার ডার্ক ওয়েবসাইট অচল করে দিয়েছে।

এই সাইবার আক্রমনের দায় স্বীকারকারী হ্যাকার সংবাদমাধ্যম মাদারবোর্ডকে জানিয়েছেন, ফ্রিডম হোস্টিং ২ এ থাকা ৫০ শতাংশের বেশি ওয়েবসাইট শিশু পর্নোগ্রাফির সঙ্গে জড়িত।

এই সাইবার আক্রমনের ঘটনাটি আলোচনার সৃষ্টি করেছেন, কারণ এটি ডার্ক ওয়েবের প্রায় ২০ শতাংশে প্রভাব ফেলেছে। তাছাড়া সফলভাবে ভেঙে ফেলা গেছে এমন একটি ইন্টারনেট সিস্টেম, যা খুবই গোপনীয় ও সুরক্ষিত হিসেবে পরিচিত।

‘ফ্রিডম হোস্টিং ২’ সার্ভার হ্যাক করে অ্যানোনিমাসের এই সদস্য তাদের বার্তায় উল্লেখ করেছে, ‘হ্যালো ফ্রিডম হোস্টিং ২, আপনারা হ্যাকিংয়ের স্বীকার হয়েছেন। আমরা খুবই হতাশ। শিশু পর্নোগ্রাফির ব্যাপারে আমাদের জিরো টলারেন্স নীতি রয়েছে। তাই আপনাদের সব ফাইল কপি করা হয়েছে এবং সাইটগুলো অচল করে দেওয়া হয়েছে।’

বার্তার শেষে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘আমরা অ্যানোনিমাস। আমরা ভুলে যাই না, আমরা ক্ষমা করি না। এটাই আপনারা আমাদের কাছ থেকে আশা করতে পারেন।’

বার্তায় হ্যাকার গ্রুপের পক্ষ থেকে ০.১ বিট কয়েন (যার মূল্য ১০০ ডলার) দাবি করা হয়েছে ৪ লাখ ব্যবহারকারীর ইমেইল আইডিসহ চুরিকৃত তথ্যগুলো ফেরত দেওয়ার ক্ষেত্রে। যেহেতু দাবিকৃত অর্থের পরিমাণ খুবই সামান্য, তাই এটা পরিষ্কার ছিল না যে, এটা তাদের সিরিয়াস দাবি কিনা।

মাদারবোর্ডকে এই হ্যাকার জানান, এটা তার প্রথম অপারেশন। তিনি শুধুমাত্র ফ্রিডম হোস্টিং ২ এর সার্ভারে প্রবেশ করতে চেয়েছিলেন, কিন্তু যখন দেখলেন ব্যাপক শিশু পর্নোগ্রাফির ঘটনা, তখন সাইটগুলো অচল করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

এর আগে ২০১১ সালেও হ্যাকার গ্রুপ অ্যানোনিমাস ডার্ক ওয়েবের ৪০টি শিশু পর্নোগ্রাফির সাইট অচল করে দিয়েছিল এবং সাইটগুলোর ব্যবহারকারীর পরিচয়ও ফাঁস করেছিল অরিজিনাল ফ্রিডম হোস্টিং সার্ভার প্রবেশ করে, যা তাদের অপারেশন ডার্ক লর্ড এর অংশ ছিল। সে সময় ডার্ক ওয়েবে এই সাইবার আক্রমন, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর কাছে আলোড়ন তুলে, ফলে তারাও শিশু পর্নোগ্রাফি প্রতিরোধের ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়।

গুরুত্বপূর্ণ সরকারি এবং কর্পোরেট ওয়েবসাইট হ্যাকিংয়ের জন্য অ্যানোনিমাস পরিচিতি হলেও ২০১৪ সালে তারা শিশু পর্নোগ্রাফি রোধে অপারেশন ডেড ইটার্স নামে বিশেষ কার্যক্রম শুরু করে।

গত মাসে এই হ্যাকার গ্রুপটি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকেও হুমকি দিয়েছে, ট্রাম্পের গোপন তথ্য ফাঁস করা হবে বলে। এবং আগামী চার বছর ট্রাম্পকে ভুগতে হবে বলেও জানিয়েছে।

তথ্যসূত্র: হাফিংটন পোস্ট



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/ফিরোজ

Walton Laptop