ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৪, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

বিশ্ব ইমোজি দিবসে চমকপ্রদ তথ্য

মনিরুল হক ফিরোজ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-০৭-১৭ ৪:০৪:৪০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-০৭-১৭ ৪:০৯:২০ পিএম

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : বিভিন্ন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট এবং মেসেঞ্জার ব্যবহারকারীদের কাছে ইমোজি বেশ জনপ্রিয়। কেননা অনেক সময় নিজের মনের ভাব লিখে প্রকাশের চেয়ে ইমোজি দিয়ে প্রকাশ করাটা বেশ সহজ এবং মজাদারও বটে। এতে সময়ও অনেক কম লাগে।

বর্তমানে শুধু এক ফেসবুকেই প্রতিদিন ৫ কোটি ইমোজি ব্যবহার হয়ে থাকে এবং ফেসবুক মেসেঞ্জারে ইমোজির ব্যবহার প্রতিদিন ৫০০ কোটি। আজ ১৭ জুলাই বিশ্ব ইমোজি দিবস। দিবসটি উদযাপন করতে ফেসবুকে কোন ইমোজি সবচেয়ে বেশি ব্যবহার হয়, তার একটি তালিকা প্রকাশ করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

প্রকাশিত তালিকায় দেখা গেছে, বিশ্বজুড়ে ফেসবুকে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ইমোজি হচ্ছে লোল (ফেস উইথ টিয়ার্স অব জয়) ইমোজি। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে হার্ট আইস ইমোজি এবং তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে কিসিং ইমোজি।  



তবে দেশ ভেদে পছন্দের ইমোজির ব্যাপক পার্থক্য রয়েছে। যেমন জার্মানি ও থাইল্যান্ডের ফেসবুক ব্যবহারকারীরা সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করে স্মাইলি ফেস ইমোজি। স্পেন আর ইতালিতে কিসিং ইমোজি জনপ্রিয়। ব্রাজিল ‌ও ম্যাক্সিকোতে প্রথম স্থানে রয়েছে হার্ট আইস ইমোজি।

ডিজিটাল ট্রেন্ডস তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, বিশ্বব্যাপী ইমোজির ব্যাপক জনপ্রিয়তার কারণে সনি পিকচার্স অ্যানিমেশন ‘দ্য ইমোজি মুভি’ নামক একটি সিনেমা তৈরি করেছে। সিনেমাটি ২৮ জুলাই মুক্তি পেতে যাচ্ছে।



২০১৪ সাল থেকে ১৭ জুলাই বিশ্ব ইমোজি দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। ১৭ জুলাই তারিখটি বেছে নেওয়ার কারণ- ক্যালেন্ডার ইমোজিতে সবসময় জুলাই ১৭ লেখা থাকে। ২০০২ সালের এই দিনেই অ্যাপলের ম্যাকের জন্য আই-ক্যাল ক্যালেন্ডার অ্যাপ্লিকেশন বাজারে এসেছিল। ফলস্বরূপ অ্যাপলের কিছু পণ্য ব্যবহারকারীরা ১৭ জুলাই দিনটিকে ‘আন্তর্জাতিক ইমোজি ক্যালেন্ডার দিবস’ ডাকনাম দেয়। পরবর্তীতে দিনটিকে বিশ্ব ইমোজি দিবস হিসেবে মেনে নেওয়া হয়।

১৯৯০-এর দশকে জাপানি মোবাইল ফোনে ইমোজির প্রথম আবির্ভাব হয়। জাপানি শব্দ ‘ইমোডজি’ থেকে ‘ইমোজি’ শব্দটির উৎপত্তি। এর অর্থ ‘স্মাইলি’ অর্থাৎ ‘হাসিমুখ’। এরপর ২০১২ সালে অ্যাপেল তাদের আইফোনে প্রথম ইমোজি ব্যবহার করলে ইমোজির দিগ্বিজয় শুরু হয়। ২০১৪ সাল থেকে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে ইমোজির দাপট শুরু হয়। সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে প্রথম ইমোজি ব্যবহার করে টুইটার। ২০১৫ সালে অক্সফোর্ড ডিকশনারি ‘ফেস উইথ টিয়ার্স অব জয়’ বাক্যটিকে ওয়ার্ড অব দ্য ইয়ার ঘোষণা করেছিল।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৭ জুলাই ২০১৭/ফিরোজ/তারা

Walton Laptop