ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

মাইক্রোসফট পার্টনার অ্যাওয়ার্ড জিতেছে বাংলাদেশের ৫ প্রতিষ্ঠান

মনিরুল হক ফিরোজ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-১০-১২ ৫:১৯:৩৪ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-১০-১২ ৫:৪৩:৫২ পিএম
মাইক্রোসফট বাংলাদেশের এমডি সোনিয়া বশিরের হাত থেকে ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন অ্যাওয়ার্ড নিচ্ছেন আমরা টেকনোলজিসের এমডি ফারহাদ আহমেদ

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : সম্প্রতি মাইক্রোসফটের আয়োজনে থাইল্যান্ডের ব্যাংককে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল দ্বিতীয় বার্ষিক সাউথইস্ট এশিয়া নিউ মার্কেটস পার্টনার সামিট। উক্ত সামিটে বাংলাদেশ, ভূটান, ব্রুনাই, কম্বোডিয়া, লাওস, মালদ্বীপ, মিয়ানমার, নেপাল, শ্রীলংকাসহ মোট ৯টি মার্কেটের ১৩৮জন প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর ও থাইল্যান্ডের পার্টনার লিডাররাও এতে অংশ নিয়েছেন। মাইক্রোসফটের বিভিন্ন পণ্যের ওপর ভিত্তি করে গ্রাহকদের সঙ্গে যোগযোগ রক্ষা, কর্মীদের ক্ষমতায়ন, নিজেদের কর্ম-পরিচালনায় দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ‘কানেক্ট, কোলেবোরেট অ্যান্ড উইন টুগেদার’ শ্লোগানকে সামনে রেখে আলোচনা, জ্ঞানার্জন ও সহযোগিতা করার মাধ্যমে ব্যবসায়িক মডেল নতুনভাবে ঢেলে সাজানোর প্ল্যাটফর্ম তৈরি করেছে দিয়েছে এই সামিট।

মাইক্রোসফটের পার্টনার মিশন ‘ওয়ান টিম’ এদিন সাফল্য উদযাপন করাসহ মাইক্রোসফট সল্যুশনসের ওপর ভিত্তি করে একে অপরকে সহযোগিতায় ব্যাপক গুরুত্ব দিয়েছে, যাতে করে গ্রাহকদের কার্যকর সেবা প্রদান করা যায়। দুদিনের সেশনে পার্টনাররা মাইক্রোসফটের অ্যাপাক লিডারশিপ টিমের সঙ্গে বিভিন্ন ধারনা আদান-প্রদান করার সুযোগ পেয়েছেন।

পার্টনার সামিট আয়োজনের মূল অংশ ছিল শেরাটন গ্র্যান্ড সুখুমভিত হোটেলে পার্টনার অ্যাওয়ার্ড সেলিব্রেশন নাইট। এদিন উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার নিউ মার্কেটসের জেনারেল ম্যানেজার মাইকেল সিমন্স, ক্ষুদ্র ও মাঝারি মার্কেট পার্টনারস সল্যুশনস গ্রুপের জেনারেল ম্যানেজার ভ্যালেরি বিউলেসহ মাইক্রোসফটের আরো অনেক অ্যাপাক লিডার।

সামিটে মাইকেল সিমন্স বলেন, ‘আমাদের পার্টনারদের প্রদানকৃত সেবায় নতুনত্ব ও ইতিবাচক প্রভাব দেখে আমি সত্যিই মুগ্ধ এবং কৃতিত্বের জন্য আমি বিজয়ী সকল পার্টনারকে অভিনন্দন জানাচ্ছি। আমরা আমাদের গবেষণায় দেখেছি যে, এশিয়ার বিজনেস লিডারদের শতকরা ৪৪ ভাগ পুরো কৌশলগত পরিকল্পনায় ডিজিটালের ব্যবহার নিশ্চিত করেছে।

এছাড়া শতকরা ৯১ ভাগ লিডার মনে করেন যে তথ্যভিত্তিক ব্যবসায়িক মডেল বেশ গুরুত্বপূর্ণ। চতুর্থ শিল্প বিপ্লব দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার সার্বিক অর্থনীতিতে যুগান্তকারী পরিবর্তন নিয়ে আসবে। আর আমরা বিশ্বাস করি পার্টনারদের সঙ্গে মিলে মাইক্রোসফট বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান ও সংস্থাগুলোকে ডিজিটালে রূপান্তরের ব্যাপারে সহায়তা করার সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে। এতে করে এ অঞ্চলে বিপুল সংখ্যক মানুষের সার্বিক উন্নয়ন নিশ্চিত হবে।’

অন্যান্য দেশের পার্টনার ছাড়াও বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে বাংলাদেশের পাঁচটি মাইক্রোসফট পার্টনার উক্ত অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হয়েছে। বাৎসরিক প্রবৃদ্ধি নিশ্চিত করায় ডিস্ট্রিবিউটর অ্যাওয়ার্ড ক্যাটাগরিতে পুরস্কৃত হয়েছে মাল্টিমোড লিমিটেড, সর্বোচ্চ আয় নিশ্চিত করে রিসেলার অ্যাওয়ার্ড জিতেছে কর্পোরেট প্রযুক্তি লিমিটেড, টেলিফোন শিল্প সংস্থা (টেশিস) লি. পেয়েছে ওইএম অ্যাওয়ার্ড এবং ক্লাউড সেবা প্রদানের জন্য বেস্ট ক্লাউড সল্যুশন পার্টনার ও ডিজিটাল বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক অবকাঠামো তৈরি করায় ডিজিটাল ট্রান্সফরমেশন অ্যাওয়ার্ড ক্যাটাগরিতে পুরস্কৃত হয়েছে আমরা টেকনোলজিস লিমিটেড।

এ প্রসঙ্গে মাইক্রোসফট বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোনিয়া বশির কবির বলেন, ‘পার্টনারদের সাফল্যে আমি তাদের অভিনন্দন জানাই। মূলত বিশ্বব্যাপী মানুষ ও বিভিন্ন জনগোষ্ঠীর মধ্যে দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে পার্টনারদের সঙ্গে মিলে মাইক্রোসফটে থেকে আমরা কাজ করে থাকি। বিশ্বকে প্রযুক্তির ক্ষমতায় রূপান্তরের যে লক্ষমাত্রা মাইক্রোসফটের রয়েছে তা অর্জনে পার্টনার প্রতিষ্ঠানগুলো বিশেষ ভূমিকা রাখে, আর এভাবেই প্রতিটি পার্টনার প্রতিষ্ঠান মাইক্রোসফটকে প্রতিনিধিত্ব করে।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠানগুলোর এমন সাফল্য দেখে আমি সত্যিই গর্বিত। পার্টনারদের সঙ্গে মিলে সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে এক হয়ে কাজ করার ব্যাপারে আমরা দৃঢ়-প্রতিজ্ঞ।’




রাইজিংবিডি/ঢাকা/১২ অক্টোবর ২০১৭/ফিরোজ

Walton
 
   
Marcel