ঢাকা, বুধবার, ১ কার্তিক ১৪২৫, ১৭ অক্টোবর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

যে ৮ বিষয় গুগলে খুঁজবেন না

মোহাম্মদ আসিফ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৭-১৭ ৪:৪৩:৫২ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৭-২৭ ৮:০৮:৩৮ পিএম
প্রতীকী ছবি

মোহাম্মদ আসিফ : প্রথমেই খটকা লাগতে পারে। মানে কি? গুগল তাহলে কিসের জন্য? সার্চ ইঞ্জিনে যদি খুঁজতেই না পারলাম তাহলে এই সার্চ ইঞ্জিনের স্বার্থকতা কই রইল?

কিন্তু না, সার্চ ইঞ্জিনে সব কিছুই সার্চ করতে হবে এমন কোনো নিয়ম নীতি নেই। বরঞ্চ কিছু বিষয়ে সার্চ থেকে বিরত থাকাটাই মঙ্গলজনক বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। চলুন জেনে নেওয়া যাক, গুগলে কোন ৮ বিষয়ে সার্চ না করাই ভালো।

* সার্চের পর যা বিজ্ঞাপন হিসেবে দেখতে চান না : বন্ধুর বাচ্চার ডায়াপার এলার্জির মলম বিষয়ে আপনার মনে প্রশ্ন উদয় হতে পারে। কিন্তু এ বিষয়ে গুগলে সার্চ করতে যাওয়া মোটেও বুদ্ধিমানের কাজ নয়। কেননা সার্চ করার পরবর্তীতে হয়তো দেখা যাবে, যতবারই আপনি নতুন কোনো অনলাইন পেজ ওপেন করবেন, ততবারই ডায়াপার এলার্জি নির্মূলের মলমের বিজ্ঞাপন আপনার সামনে ভেসে উঠবে।

* বিব্রতকর বিষয় : নিষিদ্ধ বা বিব্রতকর বিষয়ে অনেকেরই আগ্রহ থাকে। কিন্তু আপনি যদি চিন্তিত থাকেন রাজনৈতিক ক্ষেত্রে এ বিষয়গুলোকে আপনার বিপক্ষে ব্যবহার করা সম্ভব, তাহলে এসব সম্পর্কে গুগলে সার্চ করা থেকে বিরত থাকুন।

নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ এসভিয়া এক্কার্ট এবং আন্দ্রেজ ডিউয়েজের মতে, আপনি যদি ব্রাউজিং শেষে পুরো হিস্টোরি মুছে দেন তারপরেও রেহাই পাবেন না। তাঁরা প্রায় ৩০ লাখ জার্মান নাগরিকের ব্রাউজিং হিস্টোরি তাদের অজান্তেই সংগ্রহ করেছেন। এমনকি বিখ্যাত সেলিব্রেটি ও বিচারকদের প্রাইভেট ব্রাউজিং হিস্টোরিও সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়েছেন।

এছাড়া, আপনি নিশ্চয় কখনোই চাইবেন না আপনার কাজের সময়ে এসব বিষয় সংক্রান্ত বিজ্ঞাপন আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপের পর্দায় ভেসে উঠুক।

* আপনি দোষী হতে পারেন এমন যেকোনো বিষয় :  আপনি যদি নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ না হয়ে থাকেন, তাহলে আইনের বিপরীতে থাকা কোনো কাজ বা বিষয়ে গুগলে সার্চ না করাটাই আপনার জন্য মঙ্গলজনক।

ক্রিমিনাল ডিফেন্সের একজন আইনজীবি ব্রায়ান ম্যাককোনিকিউসি বলেন, ‘বর্তমান সময়ে টেলিফোনের পাশাপাশি কম্পিউটারের যাবতীয় বিষয় তথ্যও যাচাই বাছাই করা হয়।’ তিনি আরো বলেন, ‘যদি আপনার খোঁজা এমন কোন বিষয় এখানে থেকে যায় তাহলে সেটা আপনাকে চরম শাস্তির বা জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি সময় প্রমাণ হিসেবে যথেষ্ট।’

* ত্বকের সমস্যা : মুখে বা গালে নতুন করে বেড়ে উঠা ব্রণের মতো জিনিসটা আসলে কি? এমন চিন্তা আপনার মনে আসতেই পারে। কিন্তু এর জন্য কি আপনি গুগলের সার্চবারে যেতে চাচ্ছেন? তাহলে এখনি থেমে যান। আপনি যখন গুগলে বৃত্তাকার লালচে আচিঁল বিষয়ে সার্চ করবেন, তখন গুগল আপনার সামনে প্রচুর তথ্য ও ছবি হাজির করবে, যা ত্বকের সমস্যাটির ব্যাপারে আপনার আতঙ্ক বাড়াবে। সুতরাং গুগলে সার্চের পরিবর্তে ত্বক বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হোন।

* কেঁচো : আপনার বাগানের উর্বরতা বাড়ানোর জন্য কোন ধরনের কেঁচো বা ওয়ার্ম প্রয়োজন, তা নির্দিষ্ট জানা থাকলে গুগলে সার্চ করুন। অন্যথায় আপনি যখন গুগলে ওয়ার্মস লিখে সার্চ দিবেন তখন কিছু বিরক্তিকর এবং ভয়ঙ্কর তথ্য ও ছবির মুখোমুখি হবেন।

* পণ্যের গুণগত মান : ইন্টারনেট অসংখ্য মতামত রয়েছে এবং সবকিছুরই বিশেষজ্ঞের অভাব নেই ইন্টানেটে। উদাহরণস্বরুপ: একটি নির্দিষ্ট কসমেটিক্সের ব্যাপারে আপনি জানতে আগ্রহী যে, সেটি আপনার ত্বকের জন্য ভালো হবে নাকি খারাপ? কিন্তু ইন্টারনেটে দেখা যাবে এক পক্ষ ভালো বলবে, আবার আরেক পক্ষ খারাপ বলবে। দুই পক্ষের মতামতে আপনি বিভ্রান্তিতে পড়বেন। সুতরাং মেডিক্যাল বা প্রফেশনাল পরামর্শের জন্য সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক বা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যোগাযোগ করাটাই ভালো।

* রোগের উপসর্গ : জ্বর বেশি হওয়ার কারণ কি? কেন মাথাব্যথা করে? ব্রণ দূর করার উপায়? পেটে ব্যথার কারণ?- এসব বিষয়ে গুগলে সার্চ করা থেকে বিরত থাকাটাই ইতিবাচক। কারণ এর ফলাফলে যা আসবে তা আপনাকে আরো চিন্তিত করে তুলবে। এর থেকে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়াটাই ভালো।

* আপনার পছন্দের বিষয় + ক্যানসার : ক্যানসার মারাত্মক ব্যাধি এবং অনেক কারণেই এটি হতে পারে। কিন্তু আপনি জানেন কি পোষা কুকুর থাকাকেও ক্যানসারের কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে? হ্যাঁ, এ ব্যাপারে গবেষণাও রয়েছে। যেখানে আপনার আদরের কুকুরকে এই রোগের সংক্রমণ এর কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

কিন্তু এর জন্য আপনি আপনার পোষা কুকুরকে পরিত্যাগ করবেন সেটা বলা হচ্ছে না। কেন এ রোগ হয় বা কি কারণে হয়, এ সংক্রান্ত তথ্য খোঁজার পরিবর্তে আপনার পোষা কুকুরটির জন্য সুন্দর বাড়ির খোঁজ করুন। এতে আপনার আদরের বন্ধুর সুন্দর ঘরও হয়ে যাবে, আর আপনিও চিন্তামুক্ত হবেন।

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৭ জুলাই ২০১৮/ফিরোজ

Walton Laptop
 
     
Walton