ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ আশ্বিন ১৪২৫, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

নতুন তিন আইফোন

মনিরুল হক ফিরোজ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৯-১৩ ৫:৫৫:১৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৯-১৭ ৮:৫২:০২ পিএম

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : বিশ্বের সবচেয়ে কাঙ্ক্ষিত স্মার্টফোন হিসেবে খ্যাতি রয়েছে আইফোনের। ২০০৭ সাল থেকে অ্যাপল তাদের আইকনিক স্মার্টফোন ‘আইফোন’ বিক্রি শুরু করে, যা বর্তমানে অ্যাপলকে বিশ্বের অন্যতম ধনী প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরিত করেছে।

প্রতি বছরই অ্যাপল নতুন মডেলের আইফোন বাজারে নিয়ে আসে। তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল ১২ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার কুপারটিনোতে স্টিভ জবস থিয়েটারের অডিটোরিয়ামে আয়োজিত জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অ্যাপল কর্তৃপক্ষ আইফোন ভক্তদের জন্য চমক হিসেবে ২০১৮ সালের ৩টি নতুন মডেলের আইফোন বাজারে ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছে।

নতুন আইফোনগুলো হচ্ছে- আইফোন এক্সএস, এক্সএস ম্যাক্স ও এক্সআর। ২১ সেপ্টেম্বর থেকে আইফোন এক্সএস ও এক্সএস ম্যাক্স বাজারে পাওয়া যাবে। দাম শুরু হবে ৯৯৯ মার্কিন ডলার ও ১,০৯৯ মার্কিন ডলার থেকে। আইফোন এক্সআর বাজারে পাওয়া যাবে ২৬ অক্টোবর থেকে। দাম শুরু হবে ৭৪৯ মার্কিন ডলার থেকে।

আইফোন এক্সএস এবং এক্সএস ম্যাক্স-এর আকর্ষণীয় কিছু ফিচার
*
আইফোন এক্সএস এবং এক্সএস ম্যাক্স হচ্ছে, এখন পর্যন্ত অ্যাপলের তৈরি সবচেয়ে উন্নত ফোন। এক্সএস মডেলের স্ক্রিন সাইজ ৫.৮ ইঞ্চি এবং এক্সএস ম‍্যাক্স মডেলের স্ক্রিন সাইজ ৬.৫ ইঞ্চি। উভয় ফোন ৪৫৮ পিপিআই এবং কিউএলইডি এইচডিআর (সুপার রেটিনা) ডিসপ্লে সম্পন্ন।

* উভয় ফোনে রয়েছে টেলিফোটো লেন্স সমৃদ্ধ ১২ মেগাপিক্সেলের ডুয়াল রিয়ার ক্যামেরা। সেলফি তোলার জন্য রয়েছে ৭ মেগাপিক্সেলের একটি ট্রু ডেপথ ফ্রন্ট ক্যামেরা।

* প্রসেসর হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে নতুন ৬ কোরের এ১২ বায়োনিক চিপ, ৭ ন্যানোমিটারের এই প্রসেসর আগের চেয়ে ৩০ শতাংশ দ্রুতগতিতে অ্যাপস চালু করতে পারে। যা বর্তমানে সবচেয়ে শক্তিশালী মোবাইল প্রসেসর।

* রয়েছ ডুয়াল সিম সাপোর্ট সুবিধা। যার মধ্যে একটি ই-সিম, আরেকটি ন্যানো সিম।

* ফোন আনলকে রয়েছে আগের চেয়ে দ্রুতগতির ফেস আইডি প্রযুক্তি।

* সর্বাধুনিক টাচ প্রযুক্তি হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে থ্রিডি টাচ।

* অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে আইওএস ১২।

* ৬৪ জিবি, ২৫৬ জিবি এবং ৫১২ জিবি- এই তিন ধরনের স্টোরেজ ভার্সনে পাওয়া যাবে।

* উভয় ফোন আইপি-৬৮ রেটিংয়ের। অর্থাৎ ধুলা ও পানিরোধী। পানির নিচে ২ মিটার গভীরে ৩০ মিনিট পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে আইফোন এক্সএস এবং এক্সএস ম্যাক্স।

*  অ্যাপল কর্তৃপক্ষের দাবী, গত বছরের সাড়া জাগানো আইফোন এক্সের তুলনায় নতুন এক্সএসের ব্যাটারি লাইফ ৩০ মিনিট এবং এক্সএস ম্যাক্সের ব্যাটারি লাইফ ৯০ মিনিট বেশি হবে।

* আইফোন এক্সএসের ৬৪ জিবি ভার্সনের মূল্য ৯৯৯ মার্কিন ডলার, ২৫৬ জিবির মূল্য ১১৪৯ মার্কিন ডলার এবং ৫১২ জিবির মূল্য ১৩৪৯ মার্কিন ডলার। এক্সএস ম্যাক্সের ৬৪ জিবি ভার্সনের মূল্য ১০৯৯ মার্কিন ডলার, ২৫৬ জিবির মূল্য ১২৪৯ মার্কিন ডলার এবং ৫১২ জিবির মূল্য ১৪৪৯ মার্কিন ডলার।

আইফোন এক্সআর-এর আকর্ষণীয় কিছু ফিচার
এক্সএস কিংবা এক্সএস ম্যাক্সের মতো উচ্চ মূল্যের আইফোন যাদের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে, তাদের জন্য অ্যাপল এনেছে সহজলভ্য মূল্যের আইফোন এক্সআর।

আইফোন এক্সএস কিংবা এক্সএস ম্যাক্সে কিউএলইডি এইচডিআর ডিসপ্লে ব্যবহার করা হলেও, আইফোন এক্সআর-এ ব্যবহার করা হয়েছে সাধারণ এলসিডি ডিসপ্লে। এছাড়া ফোনটি থেকে বাদ গেছে থ্রিডি টাচ সুবিধাও। তাই তুলনামূলক কম দামেই এই আইফোনটি কেনা যাবে।

* আইফোন এক্সএস ও এক্সএস ম্যাক্সে স্টেইনলেস স্টিল বডি থাকলেও আইফোন এক্সআরে ব্যবহৃত হয়েছে অ্যালুমিনিয়াম বডি।

* আইফোন এক্সআর ৬.১ ইঞ্চি স্ক্রিন এবং ৩২৬ পিপিআই সম্পন্ন।

* ফোনটিতে রয়েছে ১২ মেগাপিক্সেলের সিঙ্গেল রিয়ার ক্যামেরা। সেলফি তোলার জন্য রয়েছে ৭ মেগাপিক্সেলের ট্রু ডেপথ ফ্রন্ট ক্যামেরা।

* অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে আইওএস ১২।

* ৬৪ জিবি, ১২৮ জিবি এবং ২৫৬ জিবি- এই তিন ধরনের স্টোরেজ ভার্সনে পাওয়া যাবে।

* প্রসেসর হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে নতুন ৬ কোরের এ১২ বায়োনিক চিপ, ৭ ন্যানোমিটারের এই প্রসেসর আগের চেয়ে ৩০ শতাংশ দ্রুতগতিতে অ্যাপস চালু করতে পারে। যা বর্তমানে সবচেয়ে শক্তিশালী মোবাইল প্রসেসর।

* রয়েছ ডুয়াল সিম সাপোর্ট সুবিধা। যার মধ্যে একটি ই-সিম, আরেকটি ন্যানো সিম।

* ফোন আনলকে রয়েছে আগের চেয়ে দ্রুতগতির ফেস আইডি প্রযুক্তি।

* আইফোন এক্সএস ও এক্সএস ম্যাক্স আইপি-৬৮ রেটিংয়ের হলেও, আইফোন এক্সআর আইপি-৬৭ রেটিংয়ের। তবে এটিও ধুলা ও পানিরোধী।

* গত বছরের আইফোন ৮ প্লাসের তুলনায় আইফোন এক্সআর-এর ব্যাটারি লাইফ ৯০ মিনিট বেশি হবে।

* ফোনটির ৬৪ জিবি ভার্সনের মূল্য ৭৪৯ মার্কিন ডলার, ১২৮ জিবির মূল্য ৭৯৯ মার্কিন ডলার এবং ২৫৬ জিবির মূল্য ৮৯৯ মার্কিন ডলার।

তথ্যসূত্র : সিনেট



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮/ফিরোজ

Walton Laptop
 
     
Walton