ঢাকা, মঙ্গলবার, ৪ আষাঢ় ১৪২৬, ১৮ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

গোপালগঞ্জের ৫টি উপজেলায় নির্বাচিত হলেন যারা

বাদল সাহা : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৩-২৫ ৩:১৯:৪৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৩-২৫ ৩:১৯:৪৮ পিএম
Walton AC 10% Discount

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি : তৃতীয় ধাপের উপজেলা নির্বাচনে গোপালগঞ্জের ৫টি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে সবাই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে বিজয়ী হয়েছেন।

এখানে আওয়ামী লীগ থেকে কাউকে মনোনয়ন না দেওয়ায় সবাই স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনে অংশ নেন। এ কারণে গোপালগঞ্জে নৌকা প্রতীকে কোন প্রার্থী ছিলেন না।

গোপালগঞ্জের ৫টি উপজেলায় যারা বিজয়ী হলেন, তারা হচ্ছেন-
গোপালগঞ্জ সদর: এ উপজেলায় শেখ লুৎফার রহমান বাচ্চু (দোয়াত কলম) ৩৭ হাজার ৬৫০ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মাহমুদ হোসেন দিপু (ঘোড়া) পেয়েছেন ৩৭ হাজার ৬২০ ভোট। অপর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী শাহ আলম (আনারস) পেয়েছেন ৩৪ হাজার ভোট।

টুঙ্গিপাড়া:  এ উপজেলায় মোঃ সোলায়মান বিশ্বাস (আনারস)) ২৭ হাজার ৬০ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মোঃ বাবুল শেখ (দোয়াত কলম প্রতীক) পেয়েছেন ২৭ হাজার ৩২ ভোট।

কোটালীপাড়া: এ উপজেলায় বিমল কৃষ্ণ বিশ্বাস (দোয়াত কলম) ৬০ হাজার ২১১ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মুজিবর রহমান হাওলাদার (চিংড়ি মাছ) পেয়েছেন ৩৭ হাজার ১৪১ ভোট।

কাশিয়ানী: সুব্রত ঠাকুর (টেলিফোন) ২২ হাজার ৪১৬ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হযেছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মোঃ মোক্তার হোসেন (দোয়াত-কলম) পেয়েছেন ২১ হাজার ৭১৬ ভোট।

মুকসুদপুর: মো: কাবির মিয়া (আনারস) ৭০ হাজার ৬১৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এম এম মহিউদ্দিন আহম্মেদ মুক্ত মুন্সী (মোটর সাইকেল) পেয়েছেন ৪২ হাজার ৯৯৭ ভোট।

এছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে সদর উপজেলায় নীতিশ রায় ৩৮ হাজার ৯৫৭ ভোট, টুঙ্গিপাড়া উপজেলায় অসীম কুমার বিশ্বাস ১৭ হাজার ৬৮২ ভোট, কোটালীপাড়ায় আ: খালেক হাওলাদার ৫০ হাজার ৫৭৫, মুকসুদপুর উপজেলায় মো: রবিউল ইসলাম ৩৭ হাজার ৭৮০ ও কাশিয়ানী উপজেলায় মো: খাজা নেওয়াজ ৩৮ হাজার ১৬৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।

এছাড়া মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সদর উপজেলায় নিরুনাহার বেগম ৩৭ হাজার ২০ ভোট, টুঙ্গিপাড়া উপজেলায় সোফিদা আক্তার জোনাকী ২৯ হাজার ৪৫১ ভোট, কোটালীপাড়ায় লক্ষী রানী সরকার ৫৫ হাজার ৮৪৫ ভোট, মুকসুদপুর উপজেলায় মো: তাপসী বিশ্বাস ৪৩ হাজার ৫২ ও কাশিয়ানী উপজেলায় সোহাগী রহমান মুক্তা ২৯ হাজার ৩৯১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।

ভোট গণনা শেষে রোববার গভীর রাতে জেলা রিটার্নিং কর্তকর্তা শান্তিমনি চাকমা ও মুন্সি ওহিদুজ্জামান এই ফলাফল ঘোষণা করেন।



রাইজিংবিডি/গোপালগঞ্জ/২৫ মার্চ ২০১৯/বাদল সাহা/টিপু

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge