ঢাকা, শনিবার, ২ পৌষ ১৪২৪, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

শেষ চার ওভারে জিতল রংপুর

ইয়াসিন : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-১১-২০ ১০:২৮:৩৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-১১-২১ ১১:৫৩:৩৯ এএম

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ১৭০ রানের লক্ষ্যে ১৬ ওভারে সিলেট সিক্সার্সের রান ১৩৫। হাতে ৭ উইকেটে। উইকেটে দুই সেট ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান ও নাসির হোসেন। তাদের নামের পাশে রান যথাক্রমে ৬৭ ও ৪০।

শেষ ২৪ বলে সিলেটের দরকার ৩৫ রান। দলের দায়িত্ব নিজ কাঁধেই নিলেন মাশরাফি। ১৭তম ওভারে মাশরাফি দিলেন মাত্র ২ রান। সব মিলিয়ে ৪ ওভারে ১ উইকেটে মাশরাফি রান দেন ১৮। পুরো চাপে সিলেট। পরের ওভারে বোলিংয়ে এসে থিসারা পেরেরা নিলেন সাব্বিরের উইকেট। ৭ রানের বিনিময়ে ১ উইকেট পেয়েও স্বস্তিতে রংপুর।

কারণ শেষ ১২ বলে দারকার ২৬ রান। আগের ৩ ওভারে ২৩ রান দেওয়া রুবেল চতুর্থ ওভার করলেন দূর্দান্ত। ৭ রান দিয়ে নিজের স্পেল শেষ করেন ৩০ রানে। শেষ ওভারে সিলেটের দরকার ১৯ রান। এর আগে শেষ ওভারে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে হারালেও এবার আর পারেনি সিলেট। পরাজয়ের ব্যবধান কমিয়ে ৭ এ নামিয়ে আনেন নাসির হোসেন ও টিম ব্রেসনান।

সব মিলিয়ে ১৭০ রানের লক্ষ্যে সিলেট করতে পারল ১৬২ রান।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ২৫ রান তুলতেই ৩ উইকেট হারায় সিলেট। ১৫ রানে ফিরেন গুনাথিলাকা। ব্রেক থ্রু এনে দেন সোহাগ গাজী। পাকিস্তান থেকে উড়িয়ে আনা বাবর আজম নিজের প্রথম ম্যাচে সুবিধা করতে পারেননি। মাশরাফির বলে ২ রানে ফিরেন বোপারার হাতে ক্যাচ দিয়ে। ২ বাউন্ডারিতে ঝড়ো শুরু করা ফ্লেচারকে ফিরিয়ে রংপুরকে এগিয়ে নেন রুবেল হোসেন।



এরপর রংপুরের থেকে ম্যাচ বের করে নেন নাসির হোসেন ও সাব্বির রহমান। বাউন্ডারি, ওভার বাউন্ডারি যখন যেটা প্রয়োজন সেটা আদায় করেন জাতীয় দলের এ দুই ক্রিকেটার। আগের ম্যাচে ফর্ম পাওয়া সাব্বির এ ম্যাচেও ছিলেন দূর্দান্ত। পেরেরার লো ফুলটস বলে ছক্কা মেরে ৩২ বলে হাফ সেঞ্চুরি তুলে নেন সাব্বির। এরপর দ্রুতই দলকে টেনে নেন জয়ের পথে। কিন্তু সেই পেরেরার বলেই আউট সাব্বির। তাও আবার জয় থেকে ২৮ রান দূরে থেকে। ৪৯ বলে ৭০ রানে লং অফে ম্যাককালামের হাতে ক্যাচ দেন সাব্বির।

হার্ডহিটার এ ব্যাটসম্যান আউট হওয়ার পর সিলেটের হাত থেকে ম্যাচ ফসকে যায়। নাসির ৫০ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছাড়েন। কিন্তু দলকে না জেতানোর আক্ষেপে পুড়ছেন মিস্টার ফিনিশার।

টস হেরে আগে ব্যাটিং করতে নেমে গেইল ও ম্যাককালামের ঝড় ঠিকই উপভোগ করে মিরপুরের দর্শকরা। প্রথম ৬ ওভারেই দলকে ৫০ রান এনে দেন বিস্ফোরক এ জুটি। দারুণ ধারাবাহিকতায় দুজন দলের রান বাড়াতে থাকেন আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে। রানের চাকা থামাতে সিলেটের প্রয়োজন ছিল একটি উইকেটের। সিলেটের হয়ে কাজটা করে দেন অধিনায়ক নাসির হোসেন। ব্রেন্ডান ম্যাককালাম নাসিরের বলে ৩৩ রানে ক্যাচ দেন লং অফে।

সঙ্গী হারানোর পর গেইল একাই লড়ে যান। শুরুর দিকে ভুগতে থাকা গেইল ৩৮ বলে তুলে নেন ফিফটি। কিন্তু ওখানেই থেমে যান গেইল। ৩৯ বলে ২ চার ও ৫ ছক্কায় ৫০ রান করে গেইল ফিরেন আবুল হাসান রাজুর বলে বোল্ড হয়ে।অথচ প্রথম রানের জন্য গেইলকে অপেক্ষা করতে হয় ১২তম বল পর্যন্ত!

শুরুটা ভালো হলেও দুই বিস্ফোরক ব্যাটসম্যানের বিদায়ে থমকে যায় রংপুরের রানের চাকা। গেইল ১১তম ওভারে ফিরে যাওয়ার পর রংপুরকে পরবর্তী ছক্কার জন্য অপেক্ষা করত হয় ১৯তম ওভার পর্যন্ত! মূলত মিডল অর্ডারে শাহরিয়ার নাফিস, থিসারা পেরেরা ও মোহাম্মদ মিথুনের ব্যাটিং ব্যর্থতা পিছিয়ে দেয় রংপুরকে। শেষ দিকে রবি বোপারার ২৮ রানে ১৬৯ রানের পুঁজি পায় রংপুর।

সিলেটের আবুল হাসান ২৪ রানে নেন ২ উইকেট। ১টি করে উইকেট নেন নাসির হোসেন, টিম ব্রেসনান ও লিয়াম প্লাঙ্কেট।

গেইল, ম্যাককালাম, পেরেরা কিংবা মাশরাফি, মিথুন, শাহরিয়ার নাফিসদের নিয়ে বিগ বাজেটের দল গড়েছে রংপুর রাইডার্স। আইপিএল জয়ী কোচ টম মুডিকেও দলে ভিড়িয়েছে তারা। প্রথম জয়ের পর টানা তিন ম্যাচের হার পিছিয়ে দিয়েছিল তাদেরকে। আজকের জয়ে আবারও স্বরূপে শিরোপা প্রত্যাশীরা। অন্যদিকে ঘরের মাঠে তিন জয়ের পর চতুর্থ পরাজয়ের স্বাদ নিতে হল নাসির-সাব্বিরদের।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/২০ নভেম্বর ২০১৭/ইয়াসিন/আমিনুল

Walton
 
   
Marcel