ঢাকা, বুধবার, ১০ মাঘ ১৪২৫, ২৩ জানুয়ারি ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

রোমার ঐতিহাসিক জয়, বার্সেলোনার বিদায়

আমিনুল ইসলাম : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৪-১১ ৯:২১:৩৬ এএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৪-১১ ১২:২২:২৮ পিএম

ক্রীড়া ডেস্ক : রেফারি যখন যোগ করা সময় শেষে বাঁশিতে ফুঁক দিলেন, অমনি গোটা স্টেডিয়াম গর্জন দিয়ে উঠল। চারদিকে কেবল উল্লাস আর হর্ষধ্বনি। তার মধ্যে মুষড়ে পরা বার্সেলোনার খেলোয়াড়রা যেন নিজেদের বড্ড ক্লান্ত শরীরটাকে মাঠ থেকে টেনে নিয়ে ড্রেসিং রুমে ফিরতে পারছেন না। এ যে অবিশ্বাস্য! ঐতিহাসিক ঘটনা।

প্রথম লেগে ৪-১ গোলে এগিয়ে থেকেও উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায় নিতে হয়েছে বিশ্বের অন্যতম সেরা দল বার্সেলোনাকে। প্রথম লেগে দানিয়েলে ডি রোসি ও মোনালেস দুই দুটি আত্মঘাতি গোল করেছিলেন রোমা। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে তারা দুজনই দ্বিতীয়ার্ধে গোল করে রোমাকে জেতান। বার্সেলোনাকে ঘরের মাঠে একেবারে তুলোধুনো করে ছাড়ল রোমা। ৩-০ গোলে হারিয়ে দিল ভালভার্দের শিষ্যদের। দুই লেগ মিলিয়ে ৪-৪ গোলের সমতা হলেও অ্যাওয়ে ম্যাচে রোমা একটি গোল করার সুবাদে বার্সাকে পেছনে ফেলে সেমিফাইনালে ওঠে যায় ইতালির ক্লাবটি। ১৯৮৪ সালের পর এই প্রথম সেমিফাইনালে খেলতে যাচ্ছে রোমা।

৩৪ বছর পর সেমিফাইনালে উঠতে পেরে রোমানের আকাশে-বাতাসে উল্লাস আর উচ্ছ্বাস। ম্যাচ শেষ হওয়ার ২০ মিনিট পর্যন্ত রোমার সমর্থকরা মাঠ ছাড়েনি। জাতীয় সঙ্গীত গাইছিল তারা। লাল সমুদ্রের মধ্যে সাদা ও হলুদ রঙের পতাকা উড়িয়ে জানান দিচ্ছিল তাদের শ্রেষ্ঠত্বের কথা। হর্ষধ্বনি আর উল্লাসে একটু পর পরই প্রকম্পিত হচ্ছিল স্টেডিয়াম ও তার আশ-পাশ। অপরিচিত সমর্থকরাও একে অন্যকে খুশিতে আলিঙ্গন করেছিলেন। এ উল্লাস, উচ্ছ্বাস আর আনন্দ যেন শেষ হবার নয়।

এএস রোমার এমন ঘুরে দাঁড়ানোয় বিস্মিত নয় ফুটবল বিশ্ব। যোগ্য দল হিসেবেই তারা বার্সেলোনাকে হারিয়ে দিয়ে সেমিফাইনালে এসেছে। ঘরের মাঠে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করেছে তারা। অবশ্য রোমার মাঠের মান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন কেউ কেউ। সেই মাঠে ম্যাচের ৬ মিনিটেই এগিয়ে যায় রোমা। এ সময় ডি বক্সের মধ্যে উড়ে আসা বল পেয়ে যান ইডেন জেকো। তিনি বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সামনে এগিয়ে গিয়ে বার্সেলোনার গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে বল জালে জড়ান (১-০)। প্রথমার্ধে এই একটি গোলই হয়।

বিরতির পর ৫৮ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন প্রথম লেগে প্রথমেই আত্মঘাতি গোল করে বার্সাকে এগিয়ে দেওয়া দানিয়েলে ডি রোসি। এ সময় ডি বক্সের মধ্যে ইডেন জেকোকো ফাউল করেন জেরার্ড পিকে। রেফারি পিকেকে হলুদ কার্ড দেখিয়ে সতর্ক করেন। আর রোমাকে পেনাল্টি উপহার দেন। পেনাল্টি থেকে রোসি গোল করে ব্যবধান ২-০ করেন। ম্যাচের ৮২ মিনিটে হেডে অসাধারণ এক গোল করেন আগের ম্যাচে ম্যাচে আত্মঘাতি গোল করে বার্সাকে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে দেওয়া মানোলেস। এ সময় কর্নার কিক থেকে উড়ে আসা বলে কোনোরকমে মাথা লাগিয়ে বামপ্রান্তের কোণা দিয়ে জালে জড়িয়ে দেন মানোলোস। বার্সার গোলরক্ষক আন্দ্রে টার স্টেগানের চেয়ে চেয়ে দেখা ছাড়া কোনো উপায় ছিল না। এই গোলই যে রোমাকে বিজয়ী করে দেয়। বার্সাকে ছিটকে দেয় চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/১১ এপ্রিল ২০১৮/আমিনুল

Walton Laptop
 
     
Marcel
Walton AC