ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬, ২৭ জুন ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

খুলনার স্বস্তির জয়

আবু হোসেন পরাগ : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০১-২৩ ১১:০৪:৪৮ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০১-২৪ ৯:০৫:৫৪ এএম
Walton AC 10% Discount

ক্রীড়া প্রতিবেদক, মিরপুর থেকে : পয়েন্ট টেবিলের তলানির দুই দল। খুলনা টাইটান্সের সেরা চারে থেকে প্লে-অফে খেলার আশা প্রায় শেষ। সিলেট সিক্সার্সের যেটুকু আশা ছিল, সেটাও ক্ষীণ হয়ে গেল। সিলেটকে ২১ রানে হারিয়ে স্বস্তির জয় পেয়েছে খুলনা।

মিরপুরে বুধবার আগে ব্যাট করতে নেমে ৯ উইকেটে ১৭০ রান করেছিল খুলনা। জবাবে ২০ ওভারে ৭ উইকেটে ১৪৯ রানের বেশি করতে পারেনি সিলেট।

নবম ম্যাচে এটি খুলনার মাত্র দ্বিতীয় জয়। ডেভিড ওয়ার্নার চলে যাওয়ার পর সোহেল তানভীরের নেতৃত্বে প্রথম ম্যাচেই হারল সিলেট। সব মিলিয়ে অষ্টম ম্যাচে এটি তাদের ষষ্ঠ হার।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে খুলনাকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন ব্রেন্ডন টেলর ও জুনায়েদ সিদ্দিক। দুজন পাওয়ার প্লেতে বিনা উইকেটে তোলেন ৬৭ রান। সপ্তম ওভারে জুনায়েদকে (২৩ বলে ৩৩) ফিরিয়ে এ জুটি ভাঙেন লেগ স্পিনিং অলরাউন্ডার অলক কাপালি। পরের ওভারে বাঁহাতি স্পিনিং অলরাউন্ডার মোহাম্মদ নওয়াজের বলে স্টাম্পড হয়ে ফেরেন তিনে নামা আল-আমিন (২)। 

টেলর ও নাজমুল হোসেন শান্ত দলের স্কোর একশ পার করেছিলেন। এরপর দ্রতই ৪ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় খুলনা। নওয়াজের শিকার শান্ত (১৭)। কাপালি ফিরিয়েছেন টেলর (৩১ বলে ৪ চার ও ২ ছক্কায় ৪৮), আরিফুল হক (০) ও মাহমুদউল্লাহকে (৩)। ২ উইকেটে ১০৫ থেকে খুলনার স্কোর তখন ৬ উইকেটে ১১৬!

সেখান থেকে দলের স্কোর ১৭০-এ গেছে মূলত ডেভিড ভিসের ২৫ বলে ৩৮ রানের ক্যামিওতে। তাসকিন আহমেদের করা শেষ ওভারে আউট হওয়ার আগে ২টি করে চার ও ছক্কায় ইনিংসটি সাজান এই দক্ষিণ আফ্রিকান অলরাউন্ডার। 

চার ওভারে ২২ রানে ৪ উইকেট নিয়ে সিলেটের সেরা বোলার কাপালি। তাসকিন ৩৫ ও নওয়াজ ২৬ রানে নেন ২টি করে উইকেট।

লক্ষ্য তাড়ায় সিলেটের শুরুটা ভালো হয়নি। শুভাশিস রায়ের করা ইনিংসের প্রথম বলেই প্লেড-অন হয়ে ফেরেন লিটন দাস। বাংলাদেশ ওয়ানডে দলে ফেরার সুখবর পাওয়ার দিনে ভালো করতে পারেননি সাব্বির রহমানও। আগের ম্যাচে ৮৫ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলা ডানহাতি ব্যাটসম্যান এদিন একটি করে চার ও ছক্কায় ভালো শুরুর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। কিন্তু বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলামকে ছক্কায় উড়াতে গিয়ে ফেরেন ১৩ বলে ১২ রান করে।

এরপর আফিফ হোসেন (২৯) ও কাপালিও (১১) ইনিংস বড় করতে পারেননি। দুজনই ফিরেছেন তাইজুলের একই ওভারে। ৫৬ রানে ৪ উইকেট হারানোর পর পঞ্চম উইকেটে ৮১ রানের জুটি গড়েন নিকোলাস পুরাণ ও নওয়াজ। পুরাণকে (২১ বলে ২৮) ফিরিয়ে এ জুটি ভাঙেন ভিসে।

শেষ দুই ওভারে সিলেটের দরকার ছিল ৩১ রান। ১৯তম ওভারে নওয়াজ ৩৩ বলে ৫৪ (২ চার, ৪ ছক্কা) করে ফিরলে সিলেটও কার্যত ম্যাচ থেকে ছিটকে যায়। শেষ ওভারে ২৬ রানের প্রয়োজনে ৪ রানের বেশি নিতে পারেনি তারা। চার ওভারে ৩২ রানে ৩ উইকেট নিয়ে খুলনার সেরা বোলার তাইজুল। 





রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৩ জানুয়ারি ২০১৯/পরাগ   

Walton AC
     
Walton AC
Marcel Fridge