ঢাকা, বুধবার, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

স্ত্রীর ওয়ালটন টিভিতে ছেলের মোটরসাইকেলের আবদার পূরণ

জাকির হুসাইন : রাইজিংবিডি ডট কম
 
   
প্রকাশ: ২০১৭-১২-০৫ ৫:৫০:২৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৭-১২-০৫ ৭:৫০:০৩ পিএম
আব্দুল মান্নানের (বাঁয়ে) হাতে লাখ টাকার ওয়ালটন মোটরসাইকেল তুলে দিচ্ছেন লাবিব মার্কেটিং কোম্পানির স্বত্ত্বাধিকারী মো. সাখাওয়াত হোসেন

নিজস্ব প্রতিবেদক : ২০ বছর ধরে মধ্যপ্রাচ্যে কাজ করেন আব্দুল মান্নান। প্রতিবার ছুটিতে বাড়ি এলেই ছেলে আবদার করে  মোটরসাইকেল কিনে দিতে হবে। অন্যদিকে স্ত্রীর দাবি বড় পর্দার এলইডি টিভির। ছেলের চাওয়াকে আপাতত ভবিষ্যতের জন্য তুলে রেখে স্ত্রীর জন্য ওয়ালটন টেলিভিশন কেনেন মান্নান। কিন্তু কী সৌভাগ্য তার! সেই টিভিতেই পূরণ হলো ছেলের মোটরসাইকেলের আবদার।

চলমান ওয়ালটন ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার প্রাপ্তদের একজন মান্নান। তার বাড়ি চট্টগ্রামের রাউজান থানার উরকিরচরে। গত ৩০ নভেম্বর ওয়ালটন এলইডি টিভি কিনে এই ক্যাশ ভাউচার পান তিনি।

মান্নান জানান, দুই ভাই ও তিন বোনের মধ্যে তিনি তৃতীয়। বাবা মারা গেছেন অনেক আগে। বর্তমানে এক ছেলে-এক মেয়ে, স্ত্রী ও মাকে নিয়ে ৫ সদস্যের পরিবার তার। জীবিকার তাগিদে প্রায় ২০ বছর আগে দুবাইয়ে যান। এখন পর্যন্ত সেখানেই কাজ করছেন। দুই বছর পরপর এক থেকে দুই মাসের জন্য দেশে আসেন। এ ধারাবাহিকতায় গত ২৫ নভেম্বর বাড়িতে আসেন তিনি।

বাড়িতে আসার পরপরই তার একমাত্র ছেলে বরাবরের মতো এবারও বাবাকে মনে করিয়ে দেয় মোটরসাইকেলের কথা। কিন্তু এবারও তিনি ছেলেকে বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে ও বুঝিয়ে পার পেয়ে যান। তবে স্ত্রীর আবদার ফেলতে পারেননি। স্ত্রীর আবদার ছিল একটি বড় সাইজের এলইডি টিভি।

মান্নান বলেন, ‘আমাদের এলাকায় সবচেয়ে বড় অনুষ্ঠান ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.)। গত ৪৩ বছর ধরে এ অনুষ্ঠান চলে আসছে। তিন দিনব্যাপী ওই অনুষ্ঠানে ৫০ হাজারের বেশি মানুষের সমাগম হয়। শেষদিন আখেরি মোনাজাতে মানুষের ঢল নামে। স্থানীয় ক্যাবল অপারেটররা এ অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করে। বাসায় বসেই অনুষ্ঠানটি দেখতে স্ত্রী আবদার করে এবার একটি বড় সাইজের এলইডি টিভি কিনে দিতে হবে। তাছাড়া বাসার টিভিটি ছোট ও অনেক পুরাতন হওয়ায় তার এ দাবি ফেলতে পারিনি। ঈদে মিলাদুন্নবীর দুই দিন আগে টিভি কেনার সিদ্ধান্ত নিই।’

তিনি জানান, স্ত্রীর আবদার মেটাতে গত ৩০ নভেম্বর চট্টগ্রামের চান্দগাঁওয়ের ওয়ালটনের পরিবেশক লাবিব মার্কেটিং কোম্পানির শোরুমে যান। সেখান থেকে দেখে-শুনে ১৮ হাজার টাকা দিয়ে ৩২ ইঞ্চির একটি এলইডি টিভি কেনেন। তার মোবাইল নাম্বার নিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে দেন শোরুমের বিক্রয়কর্মীরা।


লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পাওয়া আব্দুল মান্নানকে নিয়ে ওয়ালটন শোরুমের সামনে তার আত্মীয়-স্বজন ও বিক্রয়কর্মীরা


তিনি বলেন, ‘ওয়ালটনের এ ধরনের অফার সম্পর্কে আগে থেকে জানতাম না। টিভি নিয়ে বাসায় যাওয়ার আগেই পথে একটি এসএমএস আসে। পড়ে দেখি এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার। বিষয়টি জানার জন্য শোরুমে ফোন দেই। তারা আমাকে উপহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তাদের কথা শোনা মাত্রই আমার বুকের মধ্যে কেঁপে ওঠে। লাখ টাকার পুরস্কার পেয়েছি বিশ্বাসই করতে পারছিলাম না। মনে হয় আল্লাহ আমার ভাগ্যে রেখেছিল তাই আমিই পুরস্কারটি পেয়েছি। এর থেকে ভালো সংবাদ আমার জীবনে আর কখনো আসেনি। আমার মা, স্ত্রী ও ছেলে-মেয়ে এমনকি আত্মীয় স্বজনেরা সবাই খুব খুশি হয়েছে।’

এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার দিয়ে কী পণ্য কিনেছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ছেলের অনেক দিনের স্বপ্ন ছিল একটি মোটরসাইকেলের। প্রতিবার ছুটিতে বাড়ি আসলেই ছেলেটি সে দাবি তুলে ধরে। প্রতিবারই তার সে দাবি নানা কারণ দেখিয়ে বাতিল করে দেই। তবে পরিবারের প্রয়োজন ও স্ত্রীর আবদার মেটাতে গিয়ে যখন সুযোগ পেলাম, তখন ছেলের অনেক দিনের স্বপ্ন পূরণের সিদ্ধান্ত নিই। এক লাখ টাকার এ ভাউচার দিয়ে নতুন কিছু না কিনে ছেলের জন্য ১০০ সিসির একটি মোটরসাইকেল নিয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘এক টিভি কিনেই স্ত্রীর আবদার ও ছেলের আশা সবই পূরণ হলো। এর থেকে ভালো সংবাদ আমার জীবনে দ্বিতীয়টি নেই।’

ওয়ালটনের ফ্রিজ কেনার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমি বিদেশে থাকি তারপরেও দেশের খবর রাখি। ওয়ালটন দেশীয় কোম্পানি। তাদের পণ্যের মান খুবই ভালো। আমাদের বাড়ির বেশির ভাগ পণ্যই ওয়ালটনের। আমি দুবাই থাকা অবস্থায় আমার স্ত্রী নিজেই গত ৭ মাস আগে একই শোরুম থেকে ওয়ালটনের একটি বড় সাইজের ফ্রিজ কিনেছিল। যা খুব ভালো চলছে। তাছাড়া আত্মীয়-স্বজন সবাই ওয়ালটন সম্পর্কে ভালো বলে। তাই ওয়ালটনই আমার ও আমার পরিবারের পছন্দ। আমি চাই ওয়ালটন অনেক ওপরে যাক। আমরা তাদের সঙ্গে আছি।’

উল্লেখ্য, ক্রেতাদের দোরগোড়ায় অনলাইনে দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা দিতে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম চালু করেছে ওয়ালটন। এই কার্যক্রমে ক্রেতাদের অংশগ্রহণকে উদ্বুদ্ধ করতে প্রতিদিন দেওয়া হচ্ছে নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার। ওয়ালটন প্লাজা এবং পরিবেশক শোরুম থেকে ১০ হাজার টাকা বা তার বেশি মূল্যের পণ্য কিনে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন করে সর্বনিম্ন ২০০ থেকে সর্বোচ্চ এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার পাচ্ছেন ক্রেতারা। ক্যাশ ভাউচার পাওয়ার এই সুযোগ থাকবে আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত।




রাইজিংবিডি/ঢাকা/৫ ডিসেম্বর ২০১৭/জাকির হুসাইন/সাইফ

Walton
 
   
Marcel