ঢাকা, সোমবার, ৬ কার্তিক ১৪২৫, ২২ অক্টোবর ২০১৮
Risingbd
সর্বশেষ:

‘দেশকে এগিয়ে নিতেই মানসম্মত ওয়ালটন পণ্য ব্যবহার করছি’

মোহাম্মদ মাসুদ : রাইজিংবিডি ডট কম
 
     
প্রকাশ: ২০১৮-০৫-০৫ ৮:১২:৩৯ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৮-০৫-০৬ ১০:০৫:২২ এএম

নিজস্ব প্রতিবেদক : ‘ওয়ালটন বাংলাদেশেরই পণ্য। দামে যেমন সাশ্রয়ী, তেমনই মানের দিক থেকেও খুব ভালো। তাই বাংলাদেশে তৈরি ওয়ালটন পণ্য এখন দেশের বাইরেও যাচ্ছে। আমার দেশে তৈরি ওয়ালটন পণ্য এখন বিদেশীরাও ব্যবহার করছেন। সেক্ষেত্রে একজন বাংলাদেশি হিসেবে আমি কেন অন্য ব্র্যান্ডের পণ্য ব্যবহার করব? দেশকে এগিয়ে নিতে আমাদের সবারই উচিৎ দেশীয় ব্র্যান্ডের মানসম্মত পণ্য ব্যবহার করা। এই ধারণা থেকেই ওয়ালটন পণ্য ব্যবহারে আমি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি।’

রাইজিংবিডির কাছে ওয়ালটনের পণ্য সম্পর্কে এমন মন্তব্য করেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এনার্জি প্যাক ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিটেডে কর্মরত ডিপ্লোমা (ইলেকট্রিক্যাল) প্রকৌশলী মাহাদি হাসান সাদ্দাম।

গত ২৭ এপ্রিল রাজধানীর কুড়িল ওয়ালটন প্লাজা থেকে ৩১ হাজার টাকা দিয়ে সাড়ে ১৬ সিএফটির একটি নন-ফ্রস্ট ফ্রিজ কেনেন মাহাদি হাসান সাদ্দাম। এরপর দেশব্যাপী চলমান ওয়ালটন ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের আওতায় তিনি ফ্রিজটি রেজিস্ট্রেশন করেন। সেই সুবাদে ক্যাম্পেইনে ঘোষিত অফারের আওতায় ওয়ালটন ব্র্যান্ডেরই আরেকটি ৮ সিএফটির ফ্রিজ উপহার পান তিনি।

 



ওয়ালটনের একটি ফ্রিজ কিনে আরেকটি উপহার পাওয়ার প্রতিক্রিয়ায় মাহাদি হাসান সাদ্দাম বলেন, ‘জীবনে এই প্রথম এ ধরনের কোনো পুরস্কার পেলাম। খুব আনন্দ লাগছে। যা বলে বোঝানো যাবে না। সত্যি বলতে, কী পুরস্কার পেয়েছি তা মুখ্য নয়। পুরস্কার পেয়েছি সেটাই সবচেয়ে বড়। এরকম গ্রাহকবান্ধব কর্মসূচি চালানোর জন্য ওয়ালটন কোম্পানিকে ধন্যবাদ।’

মাহাদি হাসান সাদ্দামের গ্রামের বাড়ি জামালপুর জেলার ইসলামপুর থানায়। চার ভাই ও এক বোনের মধ্যে তিনি সবার ছোট। বিয়ে করেছেন গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে। স্ত্রী এতদিন জামালপুরেই বাবা-মা, ভাই-ভাবিসহ যৌথ পরিবারে থাকতেন। সম্প্রতি তিনি বাবা-মা ও স্ত্রীকে ঢাকায় নিয়ে এসেছেন। টিভি, ফ্রিজসহ বিভিন্ন আসবাবপত্রে সাজাচ্ছেন নতুন সংসার। নতুন সংসারের শুরুতেই ওয়ালটনের ফ্রিজ উপহার পেয়ে তিনি ব্যাপক খুশি।

উপহার পাওয়া ফ্রিজটি কী করবেন, জিজ্ঞেস করলে মাহাদি হাসান সাদ্দাম বলেন, ফ্রিজটি মাকে উপহার দিয়েছি। গ্রামের বাড়িতে মার ঘরে থাকবে এটি।

 



অন্যান্য ব্র্যান্ডের ফ্রিজ না কিনে ওয়ালটনের ফ্রিজ কেন কিনলেন? এ প্রশ্নের উত্তরে মাহাদি হাসান সাদ্দাম জানান, তার বড় ভাই ও বোনের পরিবারে রয়েছে ওয়ালটন ফ্রিজ। সেসব ফ্রিজ বছর চার-পাঁচেক আগে কেনা হলেও খুব ভালো চলছে। এখনো কোনো সমস্যা দেখা দেয়নি। ওয়ালটনের ফ্রিজ ছাড়াও টেলিভিশন, রাইস কুকার, ব্লেন্ডারসহ বিভিন্ন পণ্যও ব্যবহার করছে তারা। সবগুলোতেই ভালো সার্ভিস পাচ্ছেন।

আমার দেশেই তৈরি পণ্যের মান যদি ভালো হয়, তাহলে কেন একজন বাংলাদেশি হয়ে আমি বিদেশী ব্র্যান্ডের পণ্য ব্যবহার করব? পাল্টা প্রশ্ন করে মাহাদি হাসান সাদ্দাম বলেন, ‘তাই শুধু আমিই নই, আমার পরিবারের সব ভাই-বোনই দেশীয় প্রতিষ্ঠান ওয়ালটনের উচ্চমানের পণ্য ব্যবহার করছি। এতে করে তুলনামূলক সাশ্রয়ী দামে উচ্চ গুণগতমানের পণ্য যেমন আমরা ব্যবহার করতে পারছি, তেমনই দেশীয় পণ্য ব্যবহারে দেশীয় প্রতিষ্ঠান তথা বাংলাদেশও অনেক এগিয়ে যাচ্ছে।’

ওয়ালটন সূত্রমতে, বিক্রয়োত্তর সেবা কার্যক্রম অনলাইনের আওতায় আনতে গত ১ এপ্রিল থেকে দেশব্যাপী আবারও ডিজিটাল ক্যাম্পেইন শুরু করেছে ওয়ালটন। ক্যাম্পেইনের আওতায় একজন ক্রেতা প্রতিবার ওয়ালটনের ফ্রিজ, টিভি কিংবা এসি কিনে তা রেজিস্ট্রেশন করলেই পেতে পারেন আমেরিকা, রাশিয়া ভ্রমণের সুযোগ কিংবা ওয়ালটনেরই ফ্রিজ, টিভি ও এসি সম্পূর্ণ ফ্রি। তবে এসব সুযোগ না পেলেও ক্রেতার জন্য রয়েছে সর্বোচ্চ ২ হাজার টাকা পর্যন্ত নিশ্চিত নগদ ছাড়।

 



ডিজিটাল ক্যাম্পেইনের আওতায় গ্রীষ্মকালের জন্য ওয়ালটন ফ্রিজ ও এসিতে এবং বিশ্বকাপ ফুটবল উপলক্ষে ওয়ালটন টিভিতে এসব সুবিধা থাকবে আগামী তিন মাস অর্থাৎ ৩০ জুন, ২০১৮ পর্যন্ত।



রাইজিংবিডি/ঢাকা/৫ মে ২০১৮/পলাশ/রফিক

Walton Laptop
 
     
Walton