ঢাকা, বুধবার, ২ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৭ জুলাই ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

এক সাকিবেই পুড়ল ওয়েস্ট ইন্ডিজ

ইয়াসিন : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৬-১৮ ১:০৪:২২ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৭-০৭ ৫:৫২:২৫ পিএম
এক সাকিবেই পুড়ল ওয়েস্ট ইন্ডিজ
বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় আবারো শীর্ষে উঠেছেন সাকিব আল হাসান
Voice Control HD Smart LED

টনটন থেকে ইয়াসিন হাসান : নায়ক একজনই থাকেন। সাইড ক্যারেক্টারে থাকেন অনেকজন। নায়কের কারিশমাতে তারা আড়াল হয়ে যান।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টনটনে জয়ের আনসং হিরোর তালিকাটা লম্বা। মুস্তাফিজের নাম আসবে। মাশরাফি, মিরাজ থাকবেন। থাকবেন লিটন, তামিম, সৌম্যও।

কিন্তু তাদের সবাইকে ছাপিয়ে একজন অনন্য, অসাধারণ, অতিমানবীয়। তিনি আর কেউ নন- সাকিব আল হাসান। বিশ্বকাপে তার দাপুটে আরেকটি দিন। ব্যাট হাতে আরেকটি সেঞ্চুরি। এর আগে বোলিংয়ে দুই উইকেট। তিনি যে অবধারিত নায়ক, তা কি নতুন করে বলতে হবে?

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করে দলকে জেতাতে পারেননি। আক্ষেপ করেছিলেন। সেই আক্ষেপ এবার মুছে গেল। সোমবার তার সেঞ্চুরিতে দল গুরুত্বপূর্ণ সময়ে পেয়েছে সবচেয়ে প্রত্যাশিত জয়। বিশ্বকাপে তিন শর বেশি রান কীভাবে তাড়া করবে সেই চিন্তা দেশ থেকে করেছিল বাংলাদেশ। টনটনে ওয়েস্ট ইন্ডিজ যখন ৩২১ রানের লক্ষ্য দিল, তখনো হয়তো কেউ চিন্তা করতে পারেনি বাংলাদেশ অনায়াস জয় তুল নেবে।

বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে বাংলাদেশ ৩৯.১ ওভারে ছুঁয়ে ফেলে তিনশ। বাকিটা পথ পাড়ি দেয় পরবর্তী ১৪ বলে। ৫১ বল আগে ৭ উইকেট হাতে রেখে বিশ্বকাপে দ্বিতীয় জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। মাশরাফির দল জয়ের বন্দরে পৌঁছার আগেই হার্শা ভোগলের টুইট, ‘আমার দেখা বাংলাদেশের সবচেয়ে পাওয়ারফুল ব্যাটিং পারফরম্যান্স এটি।’



সাকিবের ব্যাট থেকে এলো অপরাজিত ১২৪ রান। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলতে নামা লিটন করলেন অপরাজিত ৯৪। দুজনের চতুর্থ উইকেটের জমাট জুটিতে বাংলাদেশ পায় ১৮৯ রান, যা চতুর্থ উইকেটে বাংলাদেশের নতুন রেকর্ড। ২০০৬ সালে ফতুল্লাতে হাবিবুল বাশার ও রাজীন সালেহ কেনিয়ার বিপক্ষে করেছিলেন ১৭৫ রান।

সাকিবের ব্যাটিং কারিশমার আগে দলের বোলিং নিয়ে প্রশংসা করতেই হবে। গেইল, হোপ, রাসেল, হেটমায়ার ও পুরানদের থামিয়ে বাংলাদেশ লক্ষ্য নাগালে রেখেছিল।  মাশরাফির শুরুর আক্রমণ ছিল চমকপ্রদ। অধিনায়কের প্রথম স্পেল ছিল ৭-১-২৪-০।  মাশরাফি একদিকে চাপে রাখায় অন্যপ্রান্তে উইকেট পেয়েছেন সাইফউদ্দিন। তার সুইং করা ডেলিভারিতে উইকেটের পেছনে মুশফিকের কাছে ক্যাচ দেন গেইল। বিশ্বকাপে গেইলের মাত্র দুটি ডাক। ২০০৩ সালে, ২০১৯ সালে। দুটিই বাংলাদেশের বিপক্ষে! 

দ্বিতীয় উইকেটে ১১৬ রানের জুটি গড়েছিলেন হোপ ও লুইস। দুজন উইকেটে থিতু হয়ে রান বাড়াচ্ছিলেন। হাফ সেঞ্চুরির স্বাদ পাওয়া লুইস হাত খুলে মারা তখন শুরু করেছিলেন। ওভারের প্রথম বলে ছক্কা হজমের পর সাকিব ফিরিয়ে দেন লুইসকে (৭০)।  তামিমের পরিবর্তে ওই সময়ে ফিল্ডিং করা সাব্বির লং অফে দারুণ ক্যাচ দেন।

হোপ আশা বাড়াচ্ছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের। তাকে সঙ্গ দেন পুরান ও হেটমায়ার।  পুরানকে ২৫ রানে সাকিব আটকে দিলেও হেটমায়ার ছিলেন আগ্রাসী। ২৫ বলে তুলে নেন হাফ সেঞ্চুরি। ৩৫তম ওভারে মুস্তাফিজ নিজের তৃতীয় স্পেলে এসেছিলেন। এসেই বেদম মার খান। ওভারে খরচ করেন ১৯ রান। মিডিয়া প্রান্ত বদলে ৪০তম ওভারে আবার বোলিংয়ে আসেন বাঁহাতি পেসার। ওই ওভারেই ম্যাচে ফেরে বাংলাদেশ।



দারুণ স্লোয়ারে প্রথমে হেটমায়ারকে আউট করেন। তুলে মারতে গিয়ে ডিপ স্কয়ারে ক্যাচ তুলেন। লং অন থেকে দৌড়ে ডিপ স্কয়ারে গিয়ে ড্রাইভ দিয়ে বল তালুবন্দি করেন তামিম। এক বল পর মুস্তাফিজের আরেকটি স্লোয়ারে রাসেল উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন। ওই সময়ে মুস্তাফিজের এক ওভারে দুই উইকেটে ম্যাচে ফেরে বাংলাদেশ। ৪০ ওভারে ওয়েস্ট ইন্ডিজের রান ছিল ৫ উইকেটে ২৪৩। পরের ১০ ওভারে তারা তোলে ৭৮ রান।  আরো ভেঙে বললে শেষ ৫ ওভারে মাত্র ৩৩।

শাই হোপ বাংলাদেশের বিপক্ষে আরেকটি সেঞ্চুরি পান কি না, সেটাই ছিল দেখার।  পাননি। মুস্তফিজের তৃতীয় শিকারে পরিণত হন লিটনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ৯৬ রানে। তবুও শেষ ৬ ইনিংসে বাংলাদেশের বিপক্ষে তার রান, ১৪৬*, ১০৮*, ১০৯, ৮৭, ৭৪ ও ৯৬।

হ্যামস্ট্রিংয়ে টান লাগায় মাশরাফি ওভার শেষ করতে পারেননি। ৮ ওভারে ১ মেডেনে দিয়েছেন ৩৭ রান। মুস্তাফিজ দারুণভাবে ফিরেছেন শেষ স্পেলে। ৯ ওভারে ৫৯ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। সাইফউদ্দিন ৭২ রানে পেয়েছেন ৩ উইকেট। ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরির আগে সাকিব বল হাতে ৫৪ রানে পেয়েছেন ২ উইকেট।

বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরুর চাপ সামলে নেন তামিম ও সৌম্য। ৫২ রানের জুটি গড়েন তারা। রাসেলকে আপার কাট করতে গিয়ে দ্বিতীয় স্লিপে গেইলের হাতে ক্যাচ দেওয়ার আগে সৌম্য ২৩ বলে করেন ২৯ রান। ব্যাটিংয়ে নেমেই আত্মবিশ্বাসী সাকিব। গত দুদিনের অনুশীলনে যেরকম প্রানবন্ত ছিলেন, এদিন ২২ গজেও ছিলেন একইরকম। কোনো জড়তা নেই। কোনো পিছুটান নেই। ব্যাটিংয়ে নেমেই উইকেটের চারপাশে একের পর এক শট।



শেষ তিন ম্যাচে বড় ইনিংস খেলতে না পারা তামিম এদিন সেই পথেই ছিলেন। কিন্তু বোলার কটরেলের এক থ্রোতে তাকে রান আউট হয়ে ফিরতে হয় হাফ সেঞ্চুরি থেকে ২ রান আগে। মুশফিক চারে নেমে দলের প্রয়োজন মেটাতে পারেননি। লেগ স্টাম্পের বাইরের বল তার গ্লাভসে চুমু খেয়ে যায় হোপের হাতে।

দ্রুত ২ উইকেট তুলে বাংলাদেশকে চাপে ফেলতে চেয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জয়ের থেকে ১৮৯ রানে পিছিয়ে ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু লিটন ও সাকিব যেভাবে ব্যাটিং করেছেন, তা ছিল মনোমুগ্ধকর। ক্যারিবীয় পাঁচ পেসার একে একে আসছিলেন বোলিংয়ে। প্রত্যেকেই খেয়েছেন বেধড়ক মার। কোনো বোলারকে টিকতে দেননি দুই ব্যাটসম্যান। স্পিনার গেইলকে বোলিংয়ে এনেও কোনো লাভ হয়নি।

৪০ বলে হাফ সেঞ্চুরি পাওয়া সাকিব সেঞ্চুরিতে পৌঁছান পরবর্তী ৪৩ বলে। ওয়ানডে ক্যারিয়ারে এটি তার নবম সেঞ্চুরি।  এই ইনিংস খেলার পথে সাকিব ৬ হাজার রানের মাইলফলকে পৌঁছান। বাংলাদেশের দ্বিতীয় ক্রিকেটার হিসেবে পৌঁছান এই ল্যান্ডমার্কে।  পাশাপাশি এবারের বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় আবার শীর্ষে উঠেছেন সাকিব। এদিনের ১২৪ রানসহ সাকিবের মোট রান ৩৮৪। বিশ্বকাপে টানা দুই সেঞ্চুরির রেকর্ডে মাহমুদউল্লাহকে স্পর্শ করার পাশাপাশি মাহমুদউল্লাহর এক বিশ্বকাপে করা ৩৬৫ রানের রেকর্ডও নিজের করে নিয়েছেন সাকিব।



অন্যদিকে লিটনকে দেখে মনেই হয়নি প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে খেলতে নেমেছেন।  ৪৩ বলে ৫০ রানের পর ৬৯ বলে ৯৪ রান করেছেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। ৮ চার ও ৪ ছক্কায় সাজান ইনিংসটি। ৩৮তম ওভারে গ্যাব্রিয়েলকে পরপর তিন ছক্কা মেরে বুঝিয়েছেন, বিশ্বকাপে বড় কিছু করতেই এসেছেন তিনি। জয়সূচক শেষ ৪ রানও এসেছে তার ব্যাট থেকে। গ্যাব্রিয়েলের শর্ট বল ফাইন লেগ দিয়ে বাউন্ডারিতে পাঠিয়ে বাংলাদেশের প্রত্যাশিত জয় নিশ্চিত করেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান।

নায়ক সাকিব সেঞ্চুরির পর তেমন উদযাপন করেননি। কিন্তু জয়ের পর তার উদযাপন ছিল বাঁধনহারা। ব্যাট উঠিয়ে, শূন্যে ঘুষি দিয়ে সাকিব ফেরেন বীরেরবেশে। নায়কের খেতাব হাতে নিয়ে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রত্যাশিত জয় তুলে নিজেদের শক্তির জানান দিয়েছে মাশরাফির দল। এবার সামনে এগিয়ে যাওয়ার পালা। ৫ ম্যাচে ৫ পয়েন্ট নিয়ে বাংলাদেশ রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের পাঁচে। সেমিফাইনাল নিশ্চিত করতে বাকি চার ম্যাচের তিনটিতে জয় লাগবেই মাশরাফিদের। নটিংহামের ট্রেন্ট ব্রিজে বাংলাদেশের পরবর্তী ম্যাচ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে।

 

 

রাইজিংবিডি/টনটন/১৮ জুন ২০১৯/ইয়াসিন/পরাগ

Walton AC
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন
       

Walton AC
Marcel Fridge