Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শুক্রবার   ১৪ মে ২০২১ ||  চৈত্র ৩১ ১৪২৮ ||  ০১ শাওয়াল ১৪৪২

আইপিএল স্থগিতের পর বিদেশিদের দেশে ফেরার কী হবে?

ক্রীড়া ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:১৩, ৪ মে ২০২১   আপডেট: ১৬:১৮, ৪ মে ২০২১
আইপিএল স্থগিতের পর বিদেশিদের দেশে ফেরার কী হবে?

গত দুই দিনে চারটি ফ্র্যাঞ্চাইজির ৪ জন খেলোয়াড়সহ সাত জনের করোনাভাইরাস পজিটিভ হয়েছে। এই অবস্থায় খেলোয়াড়, সাপোর্ট স্টাফ ও সংশ্লিষ্ট প্রত্যেকের সুরক্ষাকে অগ্রাধিকার দিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত করা হয়েছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ। তাতে আইপিএলে জড়িত থাকা বিদেশিদের ভারত থেকে দেশে ফেরা নিয়ে তৈরি হয়েছে অনিশ্চয়তা। বিশেষ করে অস্ট্রেলিয়া খেলোয়াড়, সাপোর্ট স্টাফ ও ধারাভাষ্যকাররা উদ্বেগ নিয়ে অপেক্ষা করছেন যে কীভাবে তারা ফিরবেন ঘরে!

গত মাসে ভারতীয় ক্রিকেট নিয়ন্ত্রণ বোর্ড (বিসিসিআই) আশ্বস্ত করেছিল, আইপিএল শেষে বিদেশি খেলোয়াড়দের নিরাপদে ফেরা নিশ্চিত করা হবে। তারা বলেছিল, তাদেরকে পরিবারের কাছে নিরাপদে না ফেরানো পর্যন্ত শেষ হবে না আইপিএল। কিন্তু টুর্নামেন্ট স্থগিতের পর এখনও জানা যায়নি, কী ব্যবস্থা করতে যাচ্ছে তারা। বিশেষ করে অস্ট্রেলিয়ান সরকার ভারতের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করায় মাথায় হাত পড়েছে অস্ট্রেলিয়ার সদস্যদের।

অস্ট্রেলিয়া তাদের সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে। করোনার ঊর্ধ্বগতিতে ভারত থেকে সব ধরনের বাণিজ্যিক ফ্লাইট নিষিদ্ধ সেখানে, যা চলবে ১৫ মে পর্যন্ত। এছাড়া গত ১৪ দিন যারা ভারতে কাটিয়েছেন তাদেরও প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সরকার। এই আদেশ না মানলে হতে পারে ৫ বছরের কারাদণ্ড ও ৩৭ হাজার পাউন্ড জরিমানা।

শুক্রবারের মন্ত্রিসভায় অস্ট্রেলিয়া এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগেই অ্যাডাম জাম্পাসহ তিন খেলোয়াড় ভারত থেকে দেশে ফিরে গেছেন। এখনও ১৪ খেলোয়াড় সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে। দিল্লি ক্যাপিটালসের প্রধান কোচ রিকি পন্টিং, রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর কোচ সিমন ক্যাটিচ ও ব্রেট লির মতো ধারাভাষ্যকাররাও এখন ভারতে।

অবশ্য মঙ্গলবার আইপিএল এক ঘোষণায় বলেছে, ‘বিসিসিআই তার সামর্থ্য অনুযায়ী সব করবে। আইপিএলের সব অংশগ্রহণকারীদের নিরাপত্তা ও সুরক্ষার ব্যবস্থা করবে।’

এর আগে গ্লেন ম্যাক্সওয়েল বলেছিলেন, দেশে ফেরার ব্যবস্থা করতে ভারত ও নিউ জিল্যান্ডের সঙ্গে যুক্তরাজ্যে যেতে আপত্তি করবে না অস্ট্রেলিয়া বাহিনী। আগামী জুনে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ খেলবে ভারত ও নিউ জিল্যান্ড। তার আগে ইংল্যান্ডের সঙ্গে একটি টেস্ট সিরিজও খেলবে কিউইরা। সেখানে গিয়ে কোনোভাবে দেশে ফেরা যায় কি না সেটা বিবেচনা করতে বলেছেন ম্যাক্সওয়েল।

তবে ইংল্যান্ড ও নিউ জিল্যান্ডের খেলোয়াড়দেরও দেশে ফেরা নিয়ে অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। এই আসরে খেলছেন ইংল্যান্ডের এউইন মরগ্যান, জনি বেয়ারস্টো, জস বাটলার, মঈন আলী ও স্যাম কারানরা। গত মাসে ভ্রমণে ভারতকে লাল তালিকাভুক্ত করেছে যুক্তরাজ্য। তবে ভারত থেকে ব্রিটিশ ও আইরিশদের ফেরার ব্যাপারটি শিথিল করেছে তারা। কিন্তু নেমে সরকার নির্ধারিত হোটেলে আইসোলেশনে থাকতে হবে তাদের।

এরই মধ্যে সাকিব আল হাসান ও মোস্তাফিজুর রহমানকে ভারত থেকে বিশেষ ব্যবস্থায় দেশে ফেরানোর পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে বিসিবি।

ঢাকা/ফাহিম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়