RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শুক্রবার   ২২ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ৮ ১৪২৭ ||  ০৭ জমাদিউস সানি ১৪৪২

ইউএনওর কাছে নালিশ দেওয়ায় বৃদ্ধাকে পেটানোর অভিযোগ

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৪৭, ১৪ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ২২:০০, ১৪ জানুয়ারি ২০২১
ইউএনওর কাছে নালিশ দেওয়ায় বৃদ্ধাকে পেটানোর অভিযোগ

টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে অবৈধভাবে বাড়ি দখলের পায়তারা বন্ধ এবং জানমালের নিরাপত্তা চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে অভিযোগ দিয়েছিলেন সোনা ভানু (৬৫)।

এতে ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিবেশী তোফাজ্জল হোসেন ভূইয়ার বিরুদ্ধে। 

বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) সকালে এ ঘটনা ঘটে। 

আহত বৃদ্ধাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি উপজেলার পাইকড়া গ্রামের মৃত আব্দুল হামিদ ভূইয়ার স্ত্রী।

অভিযোগের বিবরণে জানা যায়, সোনা ভানুর ছেলে আবুল হাশেম ভূইয়া তার স্বত্ব দখলীয় জমিতে সাত মাস আগে গাছ রোপন করে। গত ২৭ নভেম্বর সকালে ২২টি আকাশমনিসহ প্রায় ৪০টি গাছ কেটে ফেলে তোফাজ্জল ভূইয়া ও তার লোকজন। সে সময় তারা সোনা ভানুকেও দেখে নেওয়ার হুমকি দেয়। 

ভয়-ভীতি দেখানোর এক পর্যায়ে জোরপূর্বক তাদের জমি দখলের পাঁয়তারা করতে থাকে। দিশেহারা হয়ে পরিবারটি জানমালের নিরাপত্তা চেয়ে সরজমিনে তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে অভিযোগ করেন। 

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বৃহস্পতিবার সকালে তোফাজ্জল হোসেনের নেতৃত্বে তার স্ত্রী রাহেলা বেগম, ছোট ভাই শামসুল ভূইয়া, তার স্ত্রী নিলুফা, বোন নূরজাহান দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আবুল হাসেমের মা সোন ভানুর ওপর হামলা চালায়। 

হামলায় গুরুতর আহত হন সোনা ভানু। পরে স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

ভূক্তভোগী আবুল হাশেম ভূইয়া বলেন, ‘উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে অভিযোগ করায় ক্ষিপ্ত হয়ে আমার বাড়িতে হামলা করে। আমার বৃদ্ধা মা তাদের হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন। এছাড়া চারাগাছ ভেঙে, ঘরবাড়ি ভাঙচুর করে এবং দুটি গরুসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র লুট করে নিয়ে গেছে তারা। এ ঘটনায় কালিহাতী থানায় অভিযোগ করেছি।’

অভিযুক্ত তোফাজ্জল হোসেন ভূইয়া বলেন, ‘জমি নিয়ে তাদের সঙ্গে আমার বিরোধ রয়েছে। বিষয়টি বসে সমাধানের কথা ছিল কিন্তু সময় হয়ে ওঠেনি।’

কালিহাতী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সওগাতুল আলম বলেন, ‘এ ব্যাপারে এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রুমানা তানজিন অন্তরা বলেন, ‘আমাকে ফোন করেছিলেন ভুক্তভোগী পরিবারের সদস‌্য আবুল হাশেম। আমি তাকে আইনি পরাপর্শ দিয়েছি।’

কাওছার/সনি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়