ঢাকা, সোমবার, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

কিং খানের ৫ কুইন || আমিনুল ই শান্ত

: রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৬-০৬-২৭ ১:০৮:৪০ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৬-০৯-০৫ ৩:০৯:২৯ এএম

অলংকরণ : অপূর্ব খন্দকার

রুপালি পর্দায় নায়ক-নায়িকাদের রসায়ন দেখেই অভ্যস্ত দর্শক। কিন্তু একজন অভিনয়শিল্পী ক্যামেরার পেছনে কেমন, তা দর্শকদের অজানা। ঢাকাই চলচ্চিত্রের কিং শাকিব খান। অনেক চিত্রনায়িকার সঙ্গে জুটিবদ্ধ হয়ে অভিনয় করেছেন তিনি। বর্তমানে তিনি দুই বাংলার প্রযোজনায় তৈরি চলচ্চিত্র নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। সেখানেও তিনি আপন প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে হয়েছেন প্রশংসিত। অভিনয় প্রতিভার পাশাপাশি আরো কিছু গুণ এই তারকার রয়েছে- যেগুলো খুব কাছে থেকে দেখেছেন তারই বিপরীতে অভিনয় করা এ সময়ের তারকা নায়িকারা। তাদের কথাতেই উঠে এসেছে শাকিব খানের পরিকল্পনামাফিক জীবনযাপন, পরিবারের প্রতি শ্রদ্ধা, সহশিল্পীর প্রতি দায়িত্ববোধ, ক্যারিয়ারের প্রতি দারুণ সচেতনতা ইত্যাদি সব বিষয়। মোদ্দাকথা শিল্পী ও ব্যক্তিজীবনে শাকিব খান কেমন? এ প্রশ্নের উত্তর জানাচ্ছেন তারই পাঁচ নায়িকা।

 

 

সহশিল্পী হিসেবে সে যথেষ্ট সম্মান পাওয়ার যোগ্য : অপু বিশ্বাস

দর্শক আমার আর শাকিবের রসায়নটা খুব ভালোভাবে নিয়েছেন, তাই অনেকগুলো সিনেমায় জুটিবদ্ধ হয়ে পর্দায় হাজির হয়েছি। এ জন্য প্রয়োজকরাও আমাদের নিয়ে সিনেমা নির্মাণ করতে আগ্রহী হয়েছেন। এ ভাবেই শাকিবের সঙ্গে একাধিক সিনেমায় কাজ করেছি। কাজ করতে গিয়ে যতটুকু দেখেছি তার মধ্যে ওর সবচেয়ে বড় গুণ হলো- ও খুব বন্ধুসুলভ। আর অনেক হেল্পফুল। ও যে সিনিয়র শিল্পী, কাজ করতে গিয়ে তা কখনোই মনে হতে দেয়নি। কিছু না বুঝলে সব সময়ই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। সহশিল্পী হিসেবে সে যথেষ্ট সম্মান পাওয়ার যোগ্য।

 

 

শাকিবের সহায়তা ছাড়া ভালো কাজ করা খুব কঠিন ছিল : নিপুণ

শাকিবের সঙ্গে প্রথম কাজটিই দারুণ ছিল। সে সব সময়ই খুব সহযোগিতা করে থাকে। যা একজন সহশিল্পীর ক্ষেত্রে গুরুত্ব¡পূর্ণ। আমরা যখন কাজ করি ওই সময় বাংলা চলচ্চিত্র একটি খারাপ সময় কাটিয়ে ভালো করতে শুরু করেছে মাত্র। তখন আমরা জুটিবদ্ধ হয়ে বেশ কিছু সিনেমায় কাজ করেছিলাম। ওই সব চলচ্চিত্রে শাকিবের সহায়তা ছাড়া এত ভালো কাজ করা খুব কঠিন ছিল।

 

 

সুপারস্টাররা এতটা হেল্পফুল হয়, আগে বুঝিনি : পরীমনি

শাকিব খানের মতো একজন নায়ককে নিয়ে কিছু বলতে গেলে সত্যি অনেক ভাবতে হবে। আমি খুব সংক্ষেপে বলব, শাকিব হচ্ছে এমন একজন নায়ক, যার জন্মই হয়েছে চলচ্চিত্রের জন্য। সহশিল্পী হিসেবে শাকিব ভাই অনেক হেল্পফুল। সুপারস্টাররা এতটা হেল্পফুল হয়, তা আগে বুঝিনি। আর মানুষ হিসেবেও সে অনেক ভালো।

 

 

তার কাছ থেকে অনেক শেখার আছে : ববি

শাকিব ভাই খুবই বন্ধুসুলভ। একজন সিনিয়র মানুষ এত হেল্প করে সহশিল্পীকে এগিয়ে নিতে পারেন, এটা তাকে না দেখলে বোঝা যাবে না। তার সঙ্গে কাজ করে অনেক কিছু শিখেছি। অনেক শেখার আছে।

 

 

ইনফ্যাক্ট তিনি যা বলেন তাই করেন : শবনম বুবলি

অল্প সময়ের মধ্যে শাকিব ভাইকে যতটুকু দেখেছি, তা থেকে প্রথমে বলব, ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি যদি কলেজ বা ইউনিভার্সিটি হয় তবে শাকিব ভাই এই কলেজের প্রিন্সিপাল। কারণ উনি যে শুধু শিল্পী সমিতির সভাপতি তা নন, এই ঘরানার মানুষজন ওনার কাছে আসছেন, সাজেশন নিচ্ছেন। উনি এই কাজগুলো একজন দক্ষ মেন্টরের মতো করেন। যা খুবই ইতিবাচক। সিনেমায় উনি শুধু নায়ক নন, ক্যামেরাম্যান থেকে শুরু করে সমস্ত ম্যানেজমেন্ট হ্যান্ডেল করছেন। শুধু ক্যামেরার সামনে দাঁড়াচ্ছেন তা নয়, ডায়ালগ এমন হলো কেন, ক্যামেরার অ্যাঙ্গেলটা এ রকম কেন। কিংবা এটা কী পরিবর্তন করা যায়? এটাকে কীভাবে আরো ভালো করা যায়? সব মিলিয়ে তার বেস্টটুকু তিনি দেন। আমি আমার ডায়ালগগুলো মুখস্থ করে নিজের মতো করে ডেলিভারি দিই। যখন শাকিব ভাইয়ের সঙ্গে ক্যামেরার সামনে দাঁড়াই, তখন তিনি আমাকে শিখিয়ে দেন এটা এভাবে করো। আর যখন এমনিতেই ভালো হয়, তখন খুবই অ্যাপ্রিশিয়েট করেন।

 

আমার অভিনয়ে আসার কথা ছিল তার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে। সর্বশেষ বসগিরিতে তার সঙ্গে প্রথম কাজ করছি। এটা তার কারণেই সম্ভব হয়েছে। আসলে তিনি অনেক হেল্পফুল। হি ইজ ভেরি জেন্টলম্যান। অল্প দিনে আরো কিছু ব্যাপার চোখে পড়েছে। তাহলো তিনি কিন্তু খুব ধার্মিক। এ জন্য শুক্রবার কোনো শুটিং করেন না। শুধু জুমার নামাজের জন্য শুটিং বন্ধ রাখেন। কিছুদিন আগে শবে বরাত গেল- ওই দিনও বিকেলের মধ্যে শুটিং ক্লোজ করেন। তা ছাড়া শুটিং সেটে বসে গল্প করার সময় খুব কম পাই। তবে যতটুকু কথা হয়েছে- উনি পরিবারের প্রতি অনেক অনুগত। কারণ মাঝে মাঝে আন্টির (শাকিবের মা) কথা বলতেন। আরেকটি বিষয় লক্ষ্য করেছি, তিনি খুব পূর্ব পরিকল্পনামাফিক চলেন। যেমন শুটিং শুরুর আগে উনি বলেছিলেন, আমাদের টেবিল ওয়ার্ক দরকার। একটা পরিকল্পনা দরকার। না হলে সেটে গিয়ে দেখা যাবে- এটা নাই, ওটা নাই। এমনটা যাতে সেটে না ঘটে। ইনফ্যাক্ট তিনি যা বলেন তাই করেন। ভালো-মন্দ মিলিয়েই তো মানুষ। কিন্তু এটাই সত্যি যে, এই অল্প সময়ের মধ্যে তার নেতিবাচক কিছু আমার চোখে পড়েনি।

 

 

 

রাইজিংবিডি/ঢাকা/২৬ জুন ২০১৬/এএন/তারা

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন