ঢাকা     শুক্রবার   ১২ আগস্ট ২০২২ ||  শ্রাবণ ২৮ ১৪২৯ ||  ১৩ মহরম ১৪৪৪

‘কোনো না কোনো দিন ক্যাচ মিস হারের কারণ হতোই’

ক্রীড়া প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০০:৩৭, ৬ আগস্ট ২০২২   আপডেট: ০৮:৩২, ৬ আগস্ট ২০২২
‘কোনো না কোনো দিন ক্যাচ মিস হারের কারণ হতোই’

প্রশ্ন শুনে ঝটপট উত্তর দিতে তামিম ইকবাল বেশ পছন্দ করেন। প্রশ্নের পিঠে পাল্টা প্রশ্নও করতে পছন্দ করেন। তবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে হেরে তামিম ইকবালকে বেশ বিমর্ষই মনে হলো। উত্তর দিচ্ছেন যেন কথায় প্রাণ নেই। স্রেফ অধিনায়ক হয়েছেন বলেই সংবাদ সম্মেলনে আসা, নয়তো এড়িয়েও যেতেন! 

৮ বছর, ১৯ ম্যাচ পর ওয়ানডেতে জিম্বাবুয়ে হারাল বাংলাদেশকে। বাংলাদেশ কি এই হারের জন্য প্রস্তুত ছিল? উত্তরটা না! নাহ, অধিনায়ক সরাসরি বলেননি। তবে বুঝিয়ে দিয়েছেন, এমন দিনটি দেখতেই হতো। হারের পেছনে তামিম দুটি কারণ বলেছেন। প্রথম, ব্যাটিংয়ে আরো কিছু রান কম হওয়া। দুই, ক্যাচ মিস। 

হারারেতে আগে ব্যাটিং করে বাংলাদেশ ৩০৩ রান করে। একাদশে ৮ ব্যাটসম্যান নিয়েও ব্যাটিং বান্ধব উইকেটে ৩০৩ রান যে কম তা বোঝা গেল ম্যাচের পর। বিশেষ করে উইকেটে শুরুর আর্দ্রতা কাটিয়ে উঠার পর ২২ গজ যে রানের ফোয়ারা তা বোঝা গেল দ্বিতীয় ইনিংসে। কিন্তু বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা আশানুরুপ ঝড় তুলতে পারেননি। 

তামিম সেই কথাই বলেছেন,‘আমাদের আরও ১৫-২০ রান বেশি করা উচিত ছিল। আমরা ১ উইকেটে ২৫০ রানের মতো অবস্থায় ছিলাম। এ অবস্থায় থাকলে একটু দ্রুত রান তোলা দরকার ছিল, যেন আমরা ওই অতিরিক্ত ১৫-২০ রান করতে পারি।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে জিতলেও দলের গ্রাউন্ড ফিল্ডিং নিয়ে চরম বিরক্ত ছিলেন তামিম। কেউ না কেউ ক্যাচ ছাড়ছেন-ই। মিস ফিল্ডিংয়ে রানও বেড়িয়ে যাচ্ছে। তামিমের ভয় ছিল, ক্যাচ মিস করে যেকোনো দিন বাংলাদেশ ম্যাচ হারবে। শুক্রবার হারারেতে সেরকম কিছু হয়েছে। দুই সেঞ্চুরিয়ান কাইয়া ও রাজা ফিল্ডারদের হাতে জীবন পেয়েছেন। এনামুল মিস করেছেন স্টাম্পিং। 

আক্ষেপ করে তামিম বলেছেন,‘প্রতিদিন আমি ক্যাচিংয়ের কথা বলি। কোনো না কোনো দিন তো এটা আমাদের হারের কারণ হতো। এটাই হয়তো সেই দিন ছিল। কারণ, টি-টোয়েন্টিতে আমরা অনেকবার ক্যাচ ফেলেছি। কিন্তু ম্যাচ জিতে গিয়েছি। কিন্তু যখন এমন ভালো উইকেটে আপনি ৪টা ক্যাচ ফেলবেন, তাহলে আপনি বেশি ম্যাচ জিতবেন না। এখন মনে হচ্ছে। এটা নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে পরের ম্যাচের আগে।’

ফিল্ডিং নিয়েও তার কণ্ঠে ছিল একই সুর,‘অনেক সহজ রান দিয়েছি। এই মাঠে ২ রান হবে। কারণ, এক পাশটা বিশাল। এটা নিয়ে আমি ভাবছি না। কিন্তু সহজগুলো, যেগুলো সহজেই ডট বল হতে পারত, সেগুলো থামাতে পারলে আমরা আরও চাপ সৃষ্টি করতে পারতাম। এগুলো অবশ্যই কষ্ট দেয়।’

ঢাকা/ইয়াসিন

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়