ঢাকা     রোববার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ১২ ১৪২৭ ||  ০৯ সফর ১৪৪২

নারী উদ্যোক্তাদের ‘ওয়ার্কাহোলিক ফরিদপুরিয়ান’

মাহমুদুল হাসান কবীর || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:৪৪, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১২:০৭, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০
নারী উদ্যোক্তাদের ‘ওয়ার্কাহোলিক ফরিদপুরিয়ান’

ফরিদপুর জেলার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তাদের পণ্যসেবা দেশব্যাপী ছড়িয়ে দিতে গঠন করা হয়েছে ‘ওয়ার্কাহোলিক ফরিদপুরিয়ান’ অনলাইন প্ল্যাটফর্ম। 

করোনায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দীর্ঘ দিন বন্ধ থাকায় অনেক শিক্ষার্থী এ প্ল্যাটফর্মে যুক্ত হয়েছেন। এখানে বিভিন্ন কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছাত্রীরা কাজ করছেন। 

নারী উদ্যোক্তারা দেশীয় পণ্য, হাতের কাজের পণ্য, হারিয়ে যাওয়া শিল্পকে বাঁচিয়ে রাখা, ভেজাল মুক্ত খাদ্য-বস্ত্র সারা দেশে পৌঁছানো থেকে শুরু করে নারীদের নিজের পরিচয় বলার মতো গল্প তৈরি করার কাজ করে যাচ্ছেন। 

এ সংগঠনের উদ্দেশ্য হলো কে কি নিয়ে কাজ করছে, কাজের ধরন, কোয়ালিটি, তার পণ্য মানুষ কেন নেবে এসব নিয়ে পরিচিতি বাড়ানো, যাতে ব্যবসার প্রসার ঘটে। 

শাড়ি, পোশাক, খাবার, কসমেটিকস, প্রসাধনী, জুয়েলারি, হাতের কাজ, ক্রাফট, নকশী এসব পণ্য নিয়ে কাজ করছেন তারা। 

এ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও উদ্যোক্তা সুলতানা আঞ্জুমান অনু। তিনি বলেন, মহামারি করোনা একদিকে যেমন কেড়ে নিয়েছে অনেক, আরেক দিকে দিয়েছেও অনেক। আমাদের শিখিয়েছে কীভাবে প্রতিকূল অবস্থাতেও জীবিকা নির্বাহ করা যায়, শিখিয়েছে হাতের মুঠোফোন দিয়ে ঘরবন্দি অবস্থায় উপার্জন করা যায়। 

‘তরুণ প্রজন্ম অলস’ বাক্যটা আমাকে বরাবরই কষ্ট দিতো। কারণ, আমার আশেপাশের অনেক বন্ধুকে আমি জানতাম, যারা অনেক ভালো ভালো কাজ করছে, কিন্তু তাদের প্রচারণা না থাকার কারণে সবাই তাকে চিনি না। কেউ হাতের কাজের সুন্দর ড্রেস বানাচ্ছে, কেউ ফুল, কাঠ, ক্লে ইত্যাদি দিয়ে গয়না বানাচ্ছে, কেউ অনেক মজার মজার খাবার বানাচ্ছে, কেউ হ্যান্ড পেইন্টের কাজ করছে। এদেরকে যদি কাজের সুযোগ ও পরিবেশ দেওয়া যায় এবং কিছুটা প্রশিক্ষণ দেওয়া যায়, তাহলে তো এরা অনেকদূর এগিয়ে যেতে পারবে। করোনাকালীন সময়ে অনেক মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়ায় জীবিকা নির্বাহের মাধ্যম হিসেবে অনলাইন বিজনেসকে বেছে নিলাম।

তিনি আরও বলেন, ফরিদপুরের জন্য একটা ফেসবুক গ্রুপ খুলে উদ্যোক্তাদের প্ল্যাটফর্ম তৈরি করি। গ্রুপ অ্যাডমিন প্যানেলে কাজ করছেন মুসফিকুর রহমান তনু, ফাহাদ বিন হাসানসহ কয়েকজন তরুণ। এখানে উদ্যোক্তারা তার বিজনেসের প্রচার ও প্রসার ঘটাচ্ছে বিনামূল্যে। এ ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে নারী উদ্যোক্তাদের সাথে জেলা প্রশাসক অতুল সরকার ২৪ আগস্ট মতবিনিময় সভা করেছেন। উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন সমস্যা ও তার সমাধান নিয়ে আলোচনা করেছেন। এছাড়াও করোনার কারনে অনলাইনে আলোচনা ও বেসিক নলেজ ফর বিজনেস শীর্ষক কর্মশালা করা হচ্ছে।      

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ও উদ্যোক্তা ফেরদৌসী বিনতে আব্দুল মান্নান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়-কলেজের শিক্ষার্থীরা বা কম শিক্ষিত লোক উদ্যোগ নিতে যেন লজ্জা না পায়, বেকারকে যেন অবহেলা না করে, সেই চিন্তা ধারা থেকেই আমার উদ্যোগ। আমি ব্যক্তিগতভাবে কোনো কাজকে ছোট মনে করি না, দেশীয় পণ্যকে ভালোবেসে কাজ করে যাচ্ছি। আমি চাই মাঠ পর্যায়ে কৃষককে ন্যায্য মূল্য দিতে, আর ভোক্তাকে সম্পূর্ণ অর্গানিক সেবা দিতে। 

করোনাকালীন সময়ে যখন চারিদিকে আতঙ্ক ও ভয় বিরাজমান, ঠিক সেই সময়ে আমি চিন্তা করলাম ঘরে বসে কীভাবে সেবার মাধ্যমে এক সাথে একাধিক মানুষের সাহায্য করতে পারি। তখন আমি ফরিদপুরের কালোজিরা মধু, তেল, সরিষার তেল, নারিকেল তেল, ঘি, আম ও লিচু নিয়ে কাজ করি। যাত্রা শুরু করি আমার পেজ ‘খাটিবিতান’-এর। আমার এ উদ্যোগ প্রথম ১৫ দিনেই বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করে। আমি টিম ওয়ার্ক করে লাভবান হই ও ক্রেতার সন্তুষ্টি অর্জন করি। শূন্য থেকে ১০ হাজার প্রফিট হয় কোনো পুঁজি ছাড়া।

ঈদ উপলক্ষ্যে বাবার দেওয়া ৫ হাজার টাকা যোগ করে শুরু করি সরাসরি তাতীদের থেকে কাপড় কিনে আমার দ্বিতীয় পেজ ‘এম এফ কালেকশন বিডি’। আমার কাজ আরও জোড়ালো ও দেশব্যাপী ছড়িয়ে দিতে আমার ফরিদপুর জেলার অনলাইন প্ল্যাটফর্ম ‘ওয়ার্কাহোলিক ফরিদপুরিয়ান’-এ যোগদান করি। আমি চাকরি করি আর না করি, ঘরে বসে যে আয় করতে পারবো, তা অন্য সব কাজের উর্ধ্বে। এর কোনো প্রতিবন্ধকতা নেই। 

যে-কেউ চাইলেই নিজের মাঝে থাকা ঐশ্বরিক গুণকে কাজে লাগিয়ে শৈল্পিক বিকাশ ঘটাতে পারে। শুধু চাকরির পেছনে নয়, যেন ৫ জন অসহায় নারীর চাকরির ব্যবস্থা করতে পারি, সেই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে এগিয়ে যেতে সবার কাছে দোয়া চাই।

লেখক: শিক্ষার্থী, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়। 

ইবি/মাহি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়