ঢাকা, রবিবার, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

পাঁচ বছর নিষিদ্ধ শাহাদাত

ক্রীড়া প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-১৯ ১:৪৩:৫১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-২০ ৮:১৪:০৭ এএম

জাতীয় লিগের ম্যাচে সতীর্থকে মারধরের ঘটনায় পেসার শাহাদাত হোসেনকে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এর মধ্যে দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা স্থগিত থাকবে। নিষেধাজ্ঞার পাশাপাশি তাকে তিন লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পক্ষ থেকে শাহাদাতের শাস্তির বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। আগামী ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত তিনি এই শাস্তির বিরুদ্ধে আপিল করার সুযোগ পাবেন।

ঘটনাটা জাতীয় লিগের শেষ রাউন্ডের দ্বিতীয় দিনের। খুলনার বিপক্ষে ঢাকা বিভাগের হয়ে খেলা শাহাদাত একই দলের ক্রিকেটার আরাফাত সানী জুনিয়রকে মাঠের মধ্যেই মারধর করেন।

রোববার ম্যাচের দ্বিতীয় দিন মিড অফে ফিল্ডিং করছিলেন শাহাদাত। মিড অনে ছিলেন আরাফাত। বোলিং করছিলেন মোহাম্মদ শহীদ। এসময় শাহাদাত বল ঘষে উজ্জ্বল করার জন্য আরাফাতকে বলেন। আরাফাত সেটি পারবেন না বা পারছেন না বলে জানান। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন শাহাদাত। মাঠের মধ্যেই আরাফাতের দিকে তেড়ে আসেন। তাকে ধরে ধাক্কা দেন। এক পর্যায়ে লাথিও মারেন। পরে অন্য ক্রিকেটাররা এসে শাহাদাতকে সরিয়ে নেন।

ঘটনার পরপরই শাহাদাতকে মাঠ থেকে বের করে দেওয়া হয়। ম্যাচ রেফারি আখতার আহমেদ ম্যাচের শেষ দুই দিনের জন্য বহিষ্কার করেন তাকে। ১০ জন নিয়ে খেলতে হয় ঢাকাকে।

খেলা চলাকালীন সতীর্থ বা অন্য কারও গায়ে হাত তোলা আচরণবিধির লেভেল ৪ ভঙ্গ করার অপরাধ। এই ধারা ভঙ্গ করার শাস্তি সর্বনিম্ন এক বছর থেকে পাঁচ বছরের নিষেধাজ্ঞা।

মঙ্গলবার টেকনিক্যাল কমিটির সভায় শাহাদাতকে দুই বছরের স্থগিত নিষেধাজ্ঞাসহ পাঁচ বছরের জন্য নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয় বোর্ড। সভা শেষে কমিটির প্রধান মিনহাজুল আবেদীন শাহাদাতের শাস্তির কথা জানান।

জাতীয় দলের হয়ে ৩৮ টেস্ট, ৫১ ওয়ানডে ও ৬টি টি-টোয়েন্টি খেলা শাহাদাত এর আগে গৃহকর্মী পেটানোর জন্য কয়েক মাস জেলও খেটেছেন। ২০১৫ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে মিরপুর টেস্টে সর্বশেষ জাতীয় দলের হয়ে নেমেছিলেন তিনি।



ঢাকা/পরাগ

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন