RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ২১ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ৬ ১৪২৭ ||  ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণের সুদ পরিশোধে অর্থ ছাড়

বিশেষ প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:০৮, ১০ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণের সুদ পরিশোধে অর্থ ছাড়

করোনাভাইরাসের প্রভাব মোকাবিলায় দেশি শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য সরকার ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণের সুদের অর্থ ছাড় করেছে সরকার। রাষ্ট্রীয় ও বেসরকারি যেসব ব্যাংক প্রণোদনা প্যাকেজের ঋণ দিয়েছে ওইসব ব্যাংকের ঋণের সুদের অর্ধেক সরকার ভর্তুকি দিচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ এপ্রিল, মে এবং জুনের জন্য কার্যনির্বাহী ঋণের সুদ হিসেবে আটটি রাষ্ট্রায়ত্ত ও বেসরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে বিতরণ করা ঋণের সুদের ভর্তুকি হিসেবে দিচ্ছে।

সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক মোহাম্মদ ফোরকান হোসেন মোট ৮টি ব্যাংককে প্রণোদনা ঋণের সুদ ভর্তুকি পরিশোধ করা সংক্রান্ত একটি চিঠি দেয় অর্থ বিভাগে। ওই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে অর্থছাড় করা হয়েছে বলে অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।

এ আটটি ব্যাংক হলো- রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সোনালী ব্যাংক ও অগ্রণী ব্যাংক এবং বেসরকারি খাতের প্রাইম ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক এবং ট্রাস্ট ব্যাংক।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে অর্থ বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, মোট ঋণের সুদের ভর্তুকি ৩ হাজার কোটি টাকা থেকে বাড়াতে হবে।  কারণ মোট প্রণোদনা প্যাকেজ ১ লাখ ৩ হাজার কোটি টাকা থেকে বেড়ে ১ হাজার ৬ হাজার কোটি টাকা করা হয়েছে। প্রণোদনা প্যাকেজের আকার বেড়ে যাওয়ায় ঋণের সুদের ভর্তুকিও বাড়বে।

প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় চলতি মূলধন জন্য বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে। যা ৩০ হাজার কোটি টাকা ছিল তা বাড়িয়ে ৩৩ হাজার কোটি টাকা করা হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক বিভিন্ন ব্যাংকের মাধ্যমে করোনাভাইরাসে  ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী ৮৫ হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা ঋণ বিতরণ করছে বলে তিনি জানান।

ওই কর্মকর্তা বলেন, রফতানিমুখী শিল্পের বেতন ও ভাতা পরিশোধের জন্য কর্মক্ষম শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলোকে মূলধন প্যাকেজ থেকে অতিরিক্ত সাড়ে সাত হাজার কোটি টাকা বিতরণ করা হচ্ছে।

প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় ওয়ার্কিং ক্যাপিটাল হিসেবে ঋণ গ্রহীতারা প্রণোদনা তহবিল থেকে ৪ দশমিক ৫০ শতাংশ সুদে ঋণ পাচ্ছেন, কিন্তু ব্যাংকগুলোকে ৯ শতাংশ সুদ দিতে হবে। অর্থাৎ ঋণের সুদের বাকিটা  সরকার ভর্তুকি হিসেবে দিচ্ছে।

হাসনাত/এসএম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়