Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১১ মে ২০২১ ||  বৈশাখ ২৮ ১৪২৮ ||  ২৭ রমজান ১৪৪২

‘মুন্সীগঞ্জে গ্যাস লিকেজ থেকেই বিস্ফোরণ’

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:৪১, ৭ এপ্রিল ২০২১  
‘মুন্সীগঞ্জে গ্যাস লিকেজ থেকেই বিস্ফোরণ’

মুন্সীগঞ্জের মিরকাদিম পৌরসভার মেয়র আব্দুস সালামের বাড়িতে বিস্ফোরণের ঘটনাটি গ্যাস লিকেজ থেকেই হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট। 

বুধবার (৭ এপ্রিল) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেন সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বকর সিদ্দিক। 

তিনি জানান, ঘটনার পর রাতভর বোম্ব ডিসপোসাল ইউনিউট, পুলিশ ও সিআইডি ঘটনাস্থলে কাজ করেছেন। এছাড়া সিআইডি, জেলা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলের আলামত পরীক্ষা করে বোমার কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। পর্যবেক্ষণ শেষে বিস্ফোরণটি গ্যাস লিকেজ থেকেই হয়েছে বলে জানিয়েছেন বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের সদস্যরা।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) রাত নয়টার দিকে পৌরসভার রামগোপালপুর এলাকায় এ বিষ্ফোরণের ঘটনা ঘটে। 

এতে পৌর মেয়র আব্দুস সালামের স্ত্রী, পৌরসভার প্যানেল মেয়রসহ ১৩ জন দগ্ধ হয়েছে। আহতরা হলেন- মিরকাদিম পৌরসভার প্যানেল মেয়র রহিম বাদশা (৫৫), আওলাদ হোসেন (৪০), কাউন্সিলর দ্বীন ইসলাম (৪০), মো. সোহেল (৫২), মেয়র আব্দুস সালামের স্ত্রী কানন বালা (৪০), যুবলীগ কর্মী তাইজুল (২০), মো. মোশারফ (৬২), মনির হোসেন (৫০), শ্যামল দাশ (৪৫), পান্না (৫০), কালু (৪০), ইদ্রিস আলী (৫০) ও মহিউদ্দিন (৫২)। 

এদের মধ্যে রহিম বাদশাকে মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে দুপুরে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। বাকি ১২ জনকে গুরুতর অবস্থায় ঢাকা মেডিক‌্যাল কলেজ হাসপাতালের শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়েছে। 

গুরুত্বর আহতদের মধ্যে মেয়রের স্ত্রীর কানন বালা বেগমকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আইসিউতে ভর্তি করা হয়েছে। তার দেহের ৬০ ভাগ পুড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক শৈবাল বসাক।

সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়দের কাছ থেকে জানা যায়, পৌরসভার গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্র নিয়ে মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে চার তলা বাসভবনের তৃতীয়তলার একটি কক্ষে মেয়রের সঙ্গে আলাপচারিতা করছিলেন পৌর কাউন্সিলরসহ অন্যান্যরা। হঠাৎ করেই বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। মুহূর্তে কক্ষের ভেতর আগুনের শিখা দেখা যায়। বিস্ফোরণে কক্ষের আসবাবপত্র, জানালার কাচ ফেটে চুরমার হয়ে গেছে। এসময় বিস্ফোরণের শব্দ পেয়ে আশপাশের লোকজন ছুটে এসে মেয়র স্ত্রীর ও প্যানেল মেয়রসহ ১৩ জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

মুন্সীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র ষ্টেশন অফিসার আবু ইউসুফ জানান, গ্যাসের লাইনের লিকেজ থেকে ঘরে গ্যাস ছড়িয়ে থাকায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে। সেসময় মেয়র স্ত্রী রান্নার জন্য গ্যাসের চুলা ধরাতে গেলে এমন বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটতে পারে।

প্যানেল মেয়র রহিম বাদশা বলেন, ‘পৌরসভার একটি কাজের ব্যাপারে চারজন কাউন্সিলরসহ আমরা কয়েকজন মেয়রের বাসায় আলোচনা করছিলাম। হঠাৎ কিছু একটা বিস্ফোরণ ঘটে। কিসের থেকে এমন বিস্ফোরণ ঘটেছে তা এখনও বলতে পারছি না।’

এদিকে মিরকাদিম পৌরসভার মেয়র আব্দুস সালাম বলেন, ‘পরিকল্পিতভাবে আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে একটি কুচক্রি মহল বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। আমি ভাগ্যক্রমে রক্ষা পাই। এতে আমার স্ত্রীসহ ১৩ জন দগ্ধ হয়েছে। আমি এর উপযুক্ত বিচার চাই।’

পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন পিপিএম বলেন, ‘আমি এবং জেলা প্রশাসক বুধবার (৭ এপ্রিল) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। সেখানে বোমার কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। মঙ্গলবার রাতেই বোমা ডিসপোজাল ইউনিট ও ফায়ার সার্ভিস ইউনিট ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে আমাদের জানান, নবনির্বাচিত মেয়র আব্দুস সালামের বাসায় যে কোনো কারণে গ্যাস লিকেজ থাকায় পুরো বাসায় গ্যাস চেম্বর হয় এবং স্পার্কের ফলে বিস্ফোরণের ঘটনাটি ঘটেছে।’

মুন্সীগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান তালুকদার বলেন, ‘মঙ্গলবার রাতে মিরকাদিম পৌরসভার মেয়র আব্দুস সালামের বাড়িতে একটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরপরই পুলিশের টিম ও ফায়ার সার্ভিসের টিম সেখানে যায়। তারা সেখানে বেশ কিছু আলামত উদ্ধার করে। বুধবার আমি এবং জেলা পুলিশ সুপার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করি। সেখানে আমরা রান্না ঘরসহ কয়েকটি কক্ষে আগুনের চিহ্ন দেখতে পাই। তবে বিস্ফোরক দ্রব্যের আলামত দেখতে পাইনি। আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি গ্যাসের চুলা থেকে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারে। সেখানে পুলিশের টিম, সিআইডি’র টিম ও বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের সদস্যরা কাজ করছে।’

রতন/সনি

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়