Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ০৪ আগস্ট ২০২১ ||  শ্রাবণ ২০ ১৪২৮ ||  ২৩ জিলহজ ১৪৪২

রাস্তা ভাঙা, বাঁশের ভেলায় ভাসিয়ে লাশ কবরস্থানে

কক্সবাজার সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:১১, ২১ জুলাই ২০২১   আপডেট: ২২:১২, ২১ জুলাই ২০২১
রাস্তা ভাঙা, বাঁশের ভেলায় ভাসিয়ে লাশ কবরস্থানে

কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলার উপকূলীয় উজানটিয়া ইউনিয়নের পেকুয়ারচর এলাকায় রাস্তা না থাকায় চিংড়ি ঘেরের পানিতে বাঁশের ভেলা ভাসিয়ে এক বৃদ্ধার লাশ নেওয়া হলো কবরস্থানে।

বুধবার (২১ জুলাই) বিকালে লাশ ভাসিয়ে নেওয়ার ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হলে তুমুল সমালোচনা শুরু হয়।

এলাকাবাসী জানায়, ২০ জুলাই রাতে ওই গ্রামের গোলাম শরীফের স্ত্রী দিলোয়ারা বেগম (৭০) বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান। তার লাশটি বাঁশের ভেলায় করে কবরস্থানে নেয়া হয়।

২১ জুলাই ঈদুল আযহার দিন সকাল ৭ টার দিকে গোলাম শরীফের বাড়ি থেকে একটি চিংড়ি ঘেরের পানিতে বাঁশের ভেলায় ভাসিয়ে মরদেহ দাফনের জন্য ওই ইউনিয়নের নতুন ঘোনা গ্রামের আজিজিয়া জামে মসজিদের মাঠে নেওয়া হয়। ওই দৃশ্যের ছবি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এরপরে ওই ইউনিয়নের স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনা শুরু হয়।

পরিবারের লোকজন জানায়, মৃতদেহটি কবরস্থান পর্যন্ত নিয়ে যাওয়ার জন্য যে সড়কটি রয়েছে তা খুবই খারাপ। মৃতদেহ বহনের খাটিয়া নিয়ে ওই সড়ক দিয়ে যাওয়া দুস্কর। তাই অনেকটা বাধ্য হয়েই একটি বাঁশের ভেলায় মৃতদেহ খাটিয়ায় রেখে ভেলায় ভাসিয়ে কবরস্থানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, শুধু লাশ দাফন নয়, গ্রামের লোকজনের যাতায়াতেও চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। মাত্র আধা কিলোমিটারের সড়কটি গত ২০ বছরেও সংস্কার করা হয়নি।

উজানটিয়া ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ড়ের ইউপি সদস্য মো. শাহা জামাল বলেন, সড়কটি সংস্কার করলেও এক বছরও টিকে না। দুই পাশের চিংড়ি ঘেরের কারণে প্রতি বছরই বর্ষা মৌসুমে সড়ক ভেঙ্গে যায়।

তিনি বলেন, ওই সড়কটি সংস্কারের জন্য ৪০ দিনের কর্মসংস্থান কর্মসূচীর আওতায় প্রকল্পভূক্ত করা হয়েছে। 

উজানটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম চৌধুরী জানান, সড়কটি সংস্কার করার জন্য দুই পাশের জমির মালিকরা মাটি দিতে চায় না। প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে অপরিকল্পিত বাড়িঘর ও চিংড়ি ঘেরের কারণে সড়কটি পানিতে তলিয়ে যায়। তিনি এ জন্য চিংড়ি ঘেরের মালিকদের দায়ী করেছেন এবং সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেন।

কক্সবাজার/তারেকুর রহমান/এমএম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়