ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ মাঘ ১৪২৬, ২১ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

রুম্পা হত্যা : সৈকতকে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১২-০৮ ১২:৩২:২১ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১২-০৮ ৩:১৫:৪৮ পিএম

রাজধানীর স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রুবাইয়াত শারমিন রুম্পার মৃত্যুর ঘটনায় কথিত প্রেমিক সৈকতকে মিন্টু রোডের গোয়েন্দা কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ অব্যাহত রয়েছে।

এর আগে রোববার সকালে তাকে গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) উপকমিশনারের কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। 

ডিএমপির গণমাধ্যম শাখার অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার ওবায়দুর রহমান রাইজিংবিডিকে জানান, ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে সৈকতকে গোয়েন্দা হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। রুম্পার সঙ্গে তার কী সম্পর্ক এবং তা কতদিনের, তাদের বিচ্ছেদ, রুম্পার মৃত্যুর ঘটনায় আর কেউ জড়িত থাকলে তাদের নাম জানে কি না ইত্যাদি বিষয়ে সৈকতকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

গোয়েন্দা সূত্র জানায়, সৈকত স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএর সাবেক ছাত্র। সে রুম্পার সাবেক প্রেমিক। মোবাইলের কললিস্টের সূত্র ধরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গোয়েন্দা কার্যালয়ে নেয়া হয়েছে।

রুম্পাকে সবশেষ ফোন করেছিল সৈকত। শনিবার রাতে তাকে গোয়েন্দা হেফাজতে নেয়ার কথা জানা যায়। তবে তাকে কোথা থেকে আটক করা হয়েছে হয়েছে তা দায়িত্বশীল কেউ নিশ্চিত করেনি। 

রুম্পার বাবা পুলিশের ইন্সপেক্টর রোকন উদ্দিন রাইজিংবিডিকে বলেন, তার মেয়ে আত্মহত্যা করতে পারে না। তাকে হত্যা করে কেউ ফেলে দিয়েছে। ঘটনার সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত করলেই বেরিয়ে আসবে। মোবাইলের কল লিস্ট দেখলে সবকিছু পরিষ্কার হয়ে যাবে।

রুম্পার স্বজনরা জানান, ঘটনার দিন রুম্পা দুটি টিউশনি করে সন্ধ্যায় বাসায় ফেরেন। পরে কাজ আছে বলে বাসা থেকে বের হন। বাসা থেকে নিচে নেমে তার ব্যবহৃত মুঠোফোন ও স্যান্ডেল বাসায় পাঠিয়ে দিয়ে এক জোড়া পুরোনো স্যান্ডেল পায়ে দিয়ে বেরিয়ে যান।

উল্লেখ্য, বুধবার দিবাগত রাতে সিদ্ধেশ্বরীর দুই ভবনের মাঝে রুম্পার রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। রুম্পার বাবা পুলিশের ইন্সপেক্টর হিসেবে সিলেটে কমর্রত আছেন। এ ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে হত্যা মামলা করেছে।



ঢাকা/মাকসুদ/জেনিস