ঢাকা     রোববার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ১২ ১৪২৭ ||  ০৯ সফর ১৪৪২

কুষ্টিয়ায় জামায়াতের ৫০ নেতাকর্মীর জাসদে যোগদান!

কাঞ্চন কুমার || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৬:০৫, ২১ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
কুষ্টিয়ায় জামায়াতের ৫০ নেতাকর্মীর জাসদে যোগদান!

কুষ্টিয়া সংবাদদাতা: কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের মাজিহাট এলাকার জামায়াতে ইসলামীর প্রায় অর্ধশত নেতাকর্মী জাসদে যোগদান করেছেন।

স্থানীয় জামায়াত নেতা নুর ইসলামের নেতৃত্বে ছের আলী, আবুছদ্দীন, রেজন আলী, রাশিদুল ইসলাম, মোহর আলী, সামছুল আলম, সোলাইমানসহ প্রায় ৫০ জন জামায়াতের নেতাকর্মী কুর্শা ইউনিয়ন জাসদের সভাপতি জামিরুল ইসলাম ও ওয়ার্ড জাসদের সভাপতি আরব আলীর হাতে হাত রেখে শনিবার বিকেলে আনুষ্ঠানিকভাবে জাসদে যোগদান করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জাসদ নেতা ইকতার আলী, সাবেক মেম্বর জাহার আলী, সামছুম আলী, তাইজাল আলী শেখ, ইদবার আলী, ওয়ারেস মল্লিক, যুব জোটের নেতা হুমায়ন কবির।

জামায়াত থেকে সদ্য যোগদানকৃতদের একজন বলেন, ‘আমরা দীর্ঘদিন ধরে জামায়াতের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলাম। এর পরিপ্রেক্ষিতে আমরা বিভিন্ন সময়ে গ্রেফতার ও মামলা আতঙ্কে ভুগেছি। আমরা আর নাশকতার মামলায় জড়াতে চাই না। আর জাসদের কর্মকান্ডের কারণে আমরা জাসদে যোগদান করেছি। যাতে ভবিষ্যতে আমাদের নামে আর মামলা না হয়।’ 

স্থানীয় জাসদ সভাপতি ও ইউপি সদস্য আরব আলী বলেন, ‘তারা আগে জামায়াত করতেন, এখন তারা জাসদে যোগদান করেছেন। জামায়াত বলে আওয়ামী লীগ তাদের সমর্থন না দেওয়ায় আমরা তাদের জাসদে এনেছি।’

কুর্শা ইউনিয়ন জাসদের সভাপতি জামিরুল ইসলাম জানান, জাসদের সভাপতি সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু মহোদয়ের উন্নয়ন, সন্ত্রাস দমন, মাদকমুক্ত সমাজ, ঘরে-ঘরে বিদ্যুৎ, কাঁদামুক্ত পাকারাস্তাসহ মিরপুর উপজেলা অভূতপূর্ব উন্নয়ন দেখে জামায়াতের ৫০ নেতাকর্মী স্ব-উদ্যোগে জাসদে যোগদান করেছে।

কুর্শা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হান্নান জানান, স্থানীয় জাসদের নেতাকর্মীরা তাদের সমর্থন দিন দিন হারিয়ে ফেলে এখন জামায়াতের সাথে যুক্ত হচ্ছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে তারা জামায়াতের নেতাকর্মীকে দলে নিচ্ছে। আর যাদের নিয়েছে তারা সকলেই একাধিক নাশকতার মামলার আসামি। এলাকায় তারা দীর্ঘদিন জামায়াতের সাথে রাজনীতি করে যারা আওয়ামী লীগের সাথে বিভিন্ন সময়ে চক্রান্তে লিপ্ত ছিলো। তারা এখন জাসদের শেল্টারে মাথা উঁচু করতে চাচ্ছে। আর জাসদের নেতাকর্মীরা তাদের পুনর্বাসন করছে।

এদিকে জেলা জাসদের সভাপতি গোলাম মহসীন বলেন, ‘জাসদ স্বাধীনতার বিপক্ষের শক্তি জামায়াত ও যুদ্ধাপরাধীদের দলে নিবে না। যদি আত্মীয়তার খাতিরে তাদের দলে নিয়ে থাকে তাহলে আমরা তার অনুমোদন দেবো না।’

মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল হালিম বলেন, ‘আমরা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ জামায়াতকে দলে নেওয়া থেকে সবসময় বিরত থাকি। জাসদ কেন তাদের নিচ্ছে সেটা তারাই বলতে পারে।’



রাইজিংবিডি/কুষ্টিয়া/২১ জানুয়ারি ২০১৯/কাঞ্চন কুমার/টিপু

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়