Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ১৪ জুন ২০২১ ||  জ্যৈষ্ঠ ৩১ ১৪২৮ ||  ০১ জিলক্বদ ১৪৪২

যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশিরা আজও ভোলেনি ভয়াবহ সেই ‘ঈদ প্রতারণার’ কথা

ছাবেদ সাথী, নিজস্ব প্রতিবেদক, যুক্তরাষ্ট্র || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৬:৫৩, ১৩ মে ২০২১   আপডেট: ০৮:৩৭, ১৩ মে ২০২১
যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশিরা আজও ভোলেনি ভয়াবহ সেই ‘ঈদ প্রতারণার’ কথা

গত চার বছরেও সেই ভয়াবহ ঈদ প্রতারণার কথা আজও ভুলতে পারেননি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশিরা। ২০১৭ সালের ২৫ জুন অনুষ্ঠিত ঈদুল ফিতরের কয়েকমাস আগে নিউ ইয়র্কসহ ১০ অঙ্গরাজ্যের দুই সহস্রাধিক প্রবাসী বাংলাদেশির ঈদের আনন্দ কেড়ে নিয়েছিলো নিউ ইয়র্কের ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেল সার্ভিস। ভয়াবহ সেই ঈদ প্রতারণার কথা স্মরণ হলে এখনও অনেক পরিবারেই হাহাকার ও আর্তনাদ ফুটে উঠে। হা হুতাশ করেন তারা।

২০১৭ সালের ২৫ জুন অনুষ্ঠিত ঈদুল ফিতরে বাংলাদেশে গিয়ে পরিজনদের নিয়ে ঈদ উদযাপন ও গ্রীষ্মকালিন অবকাশে যেতে ইচ্ছুক দুই সহস্রাধিক প্রবাসী বাংলাদেশি প্রবাসীরা ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেল সার্ভিস নামক সংস্থা থেকে বিমানের টিকেট কিনে প্রতারিত হন। বিমানের টিকেট বাবদ প্রায় ২৪ লাখ ডলার বা ১৯ কোটি ২০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে গা ঢাকা দেন এজেন্সির মালিক নাজমুল হুদা।

নিউ ইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেল সার্ভিস নামক এ সংস্থাটি দীর্ঘদিন ধরে প্রবাসীদের কাছে বিভিন্ন এয়ারলাইন্সের টিকেট বিক্রি করে আসছিল। গত ২০১৭ সালের ঈদুল ফিতরের কয়েকমাস আগে থেকেই মূল্য হ্রাসের বিজ্ঞাপন দিয়ে সস্তায় টিকেট বিক্রির ঘোষণা দেয়। ফলে নিউ ইয়র্ক, নিউ জার্সি, পেনসিলভানিয়া, ম্যারিল্যান্ড, জর্জিয়া, কানেকটিকাট, ভার্জিনিয়া, ওয়াশিংটন ডিসি, ম্যাসাচুসেটস ও টেক্সাসের প্রবাসীরা টিকেট কিনতে হুমড়ি খেয়ে পড়ে। আর সেই সুবর্ণ সুযোগকে কাজে লাগিয়েছিলেন জ্যাকসন হাইটসের ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেল সার্ভিসের মালিক নাজমুল হুদা।

তিনি নিউ ইয়র্কের বাইরের অঙ্গরাজ্যগুলির যাত্রীদেরকে টিকেটের মূল্য তার ব্যাংক হিসাব নম্বরে জমা দিতে বলেন। যাত্রীদের অনুরোধে সংশ্লিষ্ট বিমানে টিকেট বুকিং না দিয়ে তিনি ২৪ লাখ ডলার বা ১৯ কোটি ২০ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলে অভিযোগ উঠে। বিমানে টিকেট বুকিং না থাকায় ঈদের দু'সপ্তাহ আগে থেকেই বিভিন্ন বিমানন্দর থেকে শতশত প্রবাসী বাংলাদেশিরা ঘরে ফিরে যান। দেশে অবস্থানরত পরিবার পরিজনদের সাথে ঈদ উৎসব থেকে বঞ্চিত হন সকলেই। কোন উপায় না পেয়ে এসব যাত্রীরা ট্রাভেল সার্ভিসের মালিক নাজমুল হুদাকে খুঁজতে থাকেন। ওই সময় ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেল সার্ভিসের মালিক-কর্মচারি কাউকেই আর খুঁজে পাননি যাত্রীরা।

হাজার হাজার যাত্রী ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেল সার্ভিসের মালিকের আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধুদের মাধ্যমে টিকেটের অর্থ ফেরতের জন্য প্রচণ্ড চাপ সৃষ্টি করলে তারা একটি নির্দিষ্ট তারিখ নির্ধারণ করে প্রায় অর্ধেকের অর্থ ফেরত দিতে বাধ্য হন। কিন্তু এখনো অর্ধেক যাত্রীই তাদের টিকেটের অর্থ ফেরত পাননি বলে জানা গেছে।

নাজমুল হুদার গ্রামের বাড়ি চাঁদপুর জেলার মতলব উপজেলায়। তিনি বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক সংস্থাপন প্রতিমন্ত্রী প্রয়াত নূরুল হুদার আপন ভাই। আর্থিক লোকসান দেখিয়ে বাংলাদেশ বিমানের ঢাকা-নিউ ইয়র্ক রুট বন্ধ হয়ে যাওয়ার জন্য বিমানের একমাত্র ট্রাভেল এজেন্ট ওয়ার্ল্ড ওয়াইড সার্ভিসের মালিক এই নাজমুল হুদাই দায়ী বলে সচেতন প্রবাসীরা দাবি করছেন।

জ্যাকসন হাইটসের ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ট্রাভেল সার্ভিসের মালিক নিউ ইয়র্ক ছেড়ে অন্যত্র পালিয়ে যাবার গুজব উঠলেও তিনি এখনও নিউ ইয়র্কের স্ট্যাটান আইল্যান্ডে বসবাস করছেন। কিন্তু গত চার বছরেও সেই মহাপ্রতারক নাজমুল হুদাকে কেউ আর জনসম্মুখে দেখেননি।বিমানের টিকেট কিনতে গিয়ে প্রতারিক হওয়া প্রায় দুই সহস্রাধিক বাংলাদেশির অর্ধেকেই এখনও তাদের টিকেটের মূল্য ফেরত পাননি। সেই ভয়াবহ ঈদ প্রতারণার কথা আজও ভুলতে পারেননি যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

ঢাকা/আমিনুল

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়