ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২১ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

ভিপি নুরের ওপর হামলা

বিলাস দাস : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-০৮-১৪ ৭:২৬:১৩ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-০৮-১৫ ৯:৪৭:১৩ এএম

পটুয়াখালী প্রতিনিধি : ঈদ উপলক্ষে নিজ বাড়ীতে এসে হামলার শিকার হয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু)-এর ভিপি নুরুল হক নুর।

বুধবার দুপুরে তার নিজ বাড়ী গলাচিপা উপজেলার চরবিশ্বাস থেকে দশমিনা উপজেলায় ছোট বোন জেসমিন আক্তারের বাড়ীতে যাওয়ার পথে উলানিয়া বাজারে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

এসময় নুরের সঙ্গে থাকা আরও ২০ থেকে ২৫ জন হামলার শিকার হয়। ভাংচুর করা হয় অন্তত ১০টি মোটরসাইকেল। খবর পেয়ে গলাচিপা থানা পুলিশ অবরুদ্ধ এবং অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে নুরকে গলাচিপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। গলাচিপা উপজেলা চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে জানান আহত নুর ও তার সঙ্গীরা। এদিকে হামলার ঘটনায় বক্তব্য নিতে গেলে এ প্রতিনিধির বিরুদ্ধে মামলা এবং তাকে দেখে নেয়ার হুমকি দিয়েছেন গলাচিপা উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিন শাহ।

নুরুল হক নুরের খালাতো ভাই মোহাম্মদ উল্লাহ মধু মুঠোফোনে জানান, ‘গলাচিপা থেকে মোটরসাইকেলযোগে দশমিনায় তাদের বাড়ি যাবার পথে উলানিয়া ব্রীজের কাছে একদল সন্ত্রাসী অতর্কিত হামলা চালায়। এতে নুরুল হক নুর গুরুতর আহত হয়ে অজ্ঞান হয়ে যান। এসময় নুরের মোটরসাইকেল বহরে থাকা ১০টি মোটরসাইকেল ভাংচুর করা হয়।

নুরের সাথে থাকা বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহবায়ক হাসান আল মামুন জানান, উলনিয়া ব্রীজ অতিক্রমকালে উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা মাইনুল ইসলাম রনো এবং ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক আসিফ এবং সাবেক ছাত্রলীগ নেতা কচিনসহ ৪০ থেকে ৫০ জনের একটি বাহিনী তাদের গতিরোধ করে কিছু বুঝে ওঠার আগেই মারধোর শুরু করে। খবর পেয়ে গলাচিপা থানা পুলিশের একটি দল নুরসহ আহতদের উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদানের ব্যবস্থা করেন।

এ প্রসঙ্গে গলাচিপা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মো. মনির ও আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. ইমাম জানান, অচেতন অবস্থায় নুরকে গলাচিপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়েছিল। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

এদিকে গলাচিপা উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিন শাহ মুঠোফোনে এ প্রতিনিধিকে বলেন, আমি লোকমাধ্যমে শুনেছি, নুর আগামী ১৫ আগস্ট উপলক্ষে এলাকায় লাগানো বঙ্গবন্ধুর পোস্টার নিয়ে উল্টা-পাল্টা মন্তব্য করে। এসময় স্থানীয়রা তাকে ব্যাপক মারধোর করে। পরে নুর ও তার সঙ্গীরা পালিয়ে একটি বাড়ীতে আশ্রয় নেয়।

আপনার নেতৃত্বে হামলা হয়েছে এমন প্রশ্নে উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিন শাহ তেলে বেগুনে জলে উঠে এ প্রতিনিধিকে বলেন, ‘তোমাকে এ তথ্য কে দিয়েছে। আমি এখন এমপির বাড়ীতে দাওয়াত খাচ্ছি। এ ঘটনায় আমারে যদি পেঁচাও তা হলে আমি তোমার বিরুদ্ধে মামলা করুম।’

এসময় প্রতিনিধির সাথে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিন। যা উল্লেখ করা সম্ভব নয়, তবে সংরক্ষিত আছে।

গলাচিপা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আক্তার মোর্শেদ জানান, নুর তার খালার বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছিল, অপরদিকে স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতা কর্মীদের একটি দল ঈদের দাওয়াত খেতে স্থানীয় সংসদ সদস্যের বাড়ি যাচ্ছিল। পথে মোটরসাইকেলের বিশাল বহর দেখে ভয় পেয়ে স্থানীয় একটি বাড়িতে আশ্রয় নেয় নূর ও তার সঙ্গীরা। তাড়াহুড়োতে মোটরসাইকেল থেকে পড়ে গিয়ে নূরের কয়েকজন সঙ্গী আহত হয়েছে। তবে সবাই বর্তমানে সুস্থ্য রয়েছে।


রাইজিংবিডি/পটুয়াখালী/১৪ আগস্ট ২০১৯/বিলাস দাস/নবীন হোসেন

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন