ঢাকা, শুক্রবার, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৫ নভেম্বর ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

লক্ষাধিক মানুষের পানিবন্দী হবার আশঙ্কা

সাতক্ষীরা সংবাদদাতা : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১১-০৯ ২:০১:৩৭ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১১-০৯ ২:০১:৩৭ পিএম

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আতঙ্কে রয়েছেন সাতক্ষীরার লক্ষাধিক মানুষ। উপকূল জুড়ে প্রায় ২৫০ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ থাকায় তাদের মধ্যে এ আতঙ্ক আরো তীব্র হয়েছে।

সিডর ও আইলায় ক্ষতিগ্রস্থ এসব বেড়িবাঁধে ব্যাপক ভাঙন ও ফাঁটল থাকার পরও গত কয়েক বছরে তা সংস্কার হয়নি। এছাড়া নদী ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করায় সিডর ও আইলা বিধ্বস্ত সাতক্ষীরার শ্যামনগর, আশাশুনি, কালিগঞ্জ ও দেবহাটা উপজেলার ভাঙন কবলিত এলাকার লক্ষাধিক মানুষ চরম আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছেন।

এসব এলাকার ক্ষতিগ্রস্থ বেড়িবাঁধ সংস্কার না হওয়ায় ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে যেকোন সময় আশাশুনি, শ্যামনগর, কালিগঞ্জ ও দেবহাটা উপজেলার কপোতাক্ষ নদ, খোলপেটুয়া, ইছামতি ও বেতনা নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, সাতক্ষীরা পাউবো বিভাগ-১ ও ২ এর অধীনে ১১ পোল্ডারে ৮০০ কিলোমিটার বেড়িবাঁধের মধ্যে প্রায় ৭০ পয়েন্টে ২৫০ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। এর মধ্যে ২০ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ অধিক ঝুঁকিপূর্ণ।

সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ড বিভাগ- ১ ও ২ এর আওতাধীন আশাশুনি উপজেলার জেলেখালী, দয়ারঘাট, কেয়ারগাতি, চাকলা, বিছট, কাকবসিয়া, কোলা, হাজারাখালী, ঘোলা ত্রিমোহনী, হিজলিয়া, চন্ডিতলা ও বুধহাটার তেতুলতলা, দেবহাটা উপজেলার সুশীলগাতী, চরকোমরপুর, খারাট, টাউনশ্রীপুর ও ভাতশালা এবং শ্যামনগর উপজেলার পদ্মপুকুর, গাবুরা, কাশিমাড়ি, বুড়িগোয়ালিনী, মুন্সিগঞ্জ ও রমজাননগর ইউনিয়নের বেশ কয়েকটি পয়েন্টে পাউবোর বেড়িবাঁধে মারাত্মক ভাঙন আছে।

ঘুর্ণিঝড় বুলবুল আঘাত হানলে যে কোন মূহুর্তে বেড়িবাঁধ ভেঙে এই তিন উপজেলার বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়ে লক্ষাধিক লোক পানিবন্দী হয়ে পড়বে। পানিতে তলিয়ে যাবে হাজার হাজার বিঘা চিংড়ি ও কাকঁড়া ঘের এবং ফসলের ক্ষেত।

একইভাবে মারাত্বক আতঙ্কে আছে সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার সীমান্ত নদী ইছামতি। সম্প্রতি উপজেলার সুশীলগাতী, চরকোমরপুর, টাউনশ্রীপুর ও ভাতশালা এলাকায় ইছামতি নদীর বেড়িবাঁধে ভয়াবহ ভাঙন দেখা দিয়েছে। ফলে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের আগমনে ওই এলাকায় বসবাসরত মানুষজন ভয়ে দিন কাঠাচ্ছেন।

সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ড বিভাগ-১এর নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবুল খায়ের রাইজিংবিডিকে জানান, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল নিয়ে বেশ আতঙ্কিত। যেকোন পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য তারা প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এ বিভাগের অধীনে ৩৮০ কিলোমিটর বেড়িবাঁধ রয়েছে। এর মধ্যে কমপক্ষে ১০ পয়েন্টে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ বেড়িবাঁধের পরিমাণ প্রায় ৮ কিলোমিটার এবং ঝুঁকিপূর্ণ বেড়িবাঁধ ৩০ কিলোটারের মত।

সাতক্ষীরা পাউবো বিভাগ-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফ উজ্জামান খান জানান, বুলবুল মোকাবেলায় তার বিভাগে সকল প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। এ বিভাগের আওতাধীন ৪২০ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ রয়েছে। এর মধ্যে ৬০ পয়েন্টে ১২ কিলোমিটার বাঁধ অধিক ঝুঁকিপূর্ণ এবং প্রায় ২০০ কিলোমিটার বাঁধ ঝুঁকিপূর্ণ রয়েছে।

 

সাতক্ষীরা/শাহীন/বুলাকী

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন