ঢাকা, রবিবার, ১১ মাঘ ১৪২৬, ২৬ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

কাঁঠাল-রুটি খেয়ে যুদ্ধে যান মাহতাব

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১২-১৩ ৮:২১:৫৩ এএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১২-১৩ ৩:১৭:৩৪ পিএম

কাঁঠাল ও রুটি খেয়ে মুক্তিযুদ্ধে যোগ দেয়ার উদ্দেশে রওনা দেন মো. হামিদুল হক চৌধুরী মাহতাব। 

হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার উবাহাটা গ্রামের বাসিন্দা মাহতাব বলেন, ‘‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ভাষণের পর আর ঘরে মনে বসছিল না। এ সময় শাকির মোহাম্মদ স্কুলে ১০ম শ্রেণির টেস্ট পরীক্ষা দিয়েছি মাত্র। জুন মাসে গোড়ামী তালুকদার বাড়ির এবাদ আলী তালুকদার মামাকে সঙ্গে নিয়ে পাহাড়ি পথে পায়ে হেঁটে ভারতে যাই। সেখানে ত্রিপুরার অমপিনগর ট্রেনিং সেন্টারে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করি।’’ 

তিনি বলেন, ‘‘পরে মেজর শফি উল্লাহর নেতৃত্বাধীন ৩নং সেক্টরের অধীনে গ্রুপ কমান্ডার তজিমুল হক তরফদারের গ্রুপের হয়ে কালেঙ্গা, দেউন্দি, লালচান্দ, শাকির মোহাম্মদসহ বিভিন্ন স্থানে গেলিরা যুদ্ধে অংশ গ্রহণ করেছি।’’ 

তিনি বলেন, এই গ্রুপে তার সঙ্গে ছিলেন এবাদ আলী তালুকদার, জামাল তালুকদার, সৈয়দ মোস্তুফা, মর্তুজ তরফদারসহ ১৪ জন।

‘‘আমরা এক সঙ্গে গেরিলাযুদ্ধে রাজাকার ও পাকসেনাদের অনেক ক্যাম্পে হামলা করেছি এবং জ্বালিয়ে দিয়েছি।’’ 

হামিদুল হক চৌধুরী মাহতাব বলেন, ‘‘৬ ডিসেম্বর বিজয় নিয়ে বাড়ি ফিরে আসি। চারদিকে শুরু হয় বিজয়ের জয়ধ্বনি। পরে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ভালো ফলাফল অর্জন করি। সেই থেকে আজ পর্যন্ত দেশের কল্যাণ কামনা করে আসছি।’’

তিনি বলেন, কিছু পাওয়ার আশায় যুদ্ধে যাননি। তবে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাদের অনেক কিছু দিচ্ছেন। তিনি দেশ এগিয়ে নিচ্ছেন; মুক্তিযোদ্ধারা তার সঙ্গে আছে।



হবিগঞ্জ/মামুন চৌধুরী/বকুল