ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ মাঘ ১৪২৬, ২১ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

ফ্যান কারখানার আগুনে নিহতদের লাশ হস্তান্তর

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০১৯-১২-১৬ ৩:৩৪:৩৬ পিএম     ||     আপডেট: ২০১৯-১২-১৬ ৩:৩৪:৩৬ পিএম

গাজীপুরের কেশরীতার ফ্যান ফ্যাক্টরিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নিহত ১০ জনের লাশ ময়নাতদন্তের পর স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরের পর লাশ হস্তান্তর করা হয়। এর আগে শহীদ তাজউদ্দিন আহমেদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) প্রণয় ভূষণ দাস লাশ হস্তান্তরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গাজীপুর সিটি করপোরেশন নোয়াগাঁও এলাকার লাল মিয়ার ছেলে পারভেজ, ময়মনসিংহের কোতোয়ালি থানার রাঘবপুর এলাকার সেলিম মিয়ার ছেলে মো. তরিকুল ইসলাম, দিনাজপুরের কাহারোল থানার বারপটিকা এলাকার হামিদ মিয়ার ছেলে মো. লিমন ইসলাম, গাজীপুর সদর উপজেলার কালনী গ্রামের সাইফুল ইসলাম খানের ছেলে মোহাম্মদ ফয়সাল খান, একই উপজেলার কেশরিতা গ্রামের শ্রী বীরবল চন্দ্র দাসের ছেলে উত্তম চন্দ্র দাস, গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার মারতা গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে শামীম, একই গ্রামের কামাল হোসেনের ছেলে রাশেদ, রংপুরের মহানগরের হারাগাছ থানা কাচুবকুলতলা এলাকার তাজুল ইসলামের ছেলে ফরিদুল ইসলাম, নরসিংদীর বেলাব থানার চরকাশিনগর এলাকার মাজু মিয়ার ছেলে সজল মিয়া এবং ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর এলাকার মোর্শেদ মিয়ার ছেলে ইউসুফ মিয়ার লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।

এদিকে নিহতদের লাশ দাফন ও সৎকার করার জন্য কারখানার পক্ষ থেকে ২০ হাজার টাকা করে এবং জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ২৫ হাজার টাকা করে নিহতের স্বজনদের দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, রোববার (১৫ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে গাজীপুরের সদর উপজেলার কেশোরিতা গ্রামে লাক্সারি ফ্যানের কারখানায় আগুন লাগে। জয়দেবপুর ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের তিনটি ইউনিট চেষ্টা চালিয়ে পৌনে ৭টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে দগ্ধ হয়ে ১০ জন নিহত হন এবং দুই জন আহত হন।

 

গাজীপুর/হাসমত আলী/সনি

     
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : গাজীপুর, ঢাকা বিভাগ