ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ চৈত্র ১৪২৬, ০৩ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

বাসুয়ারি ইউপি চেয়ারম্যান জেল হাজতে

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-০৩ ১০:০৪:২০ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-০৩ ১০:০৪:২০ পিএম

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের (সাইবার ট্রাইব্যুনাল) একটি মামলায় যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার ৮ নং বাসুয়ারি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু সাঈদ সরদারকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পরিষদের কয়েকজন সদস্য (মেম্বর)।

বাসুয়ারি ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বর সাদেকুর রহমান ও শহিদুল ইসলাম জানান, সাইবার ট্রাইব্যুনালের একটি মামলায় চেয়ারম্যান আবু সাঈদ সরদার হাইকোর্ট থেকে গত বছরের ১২ নভেম্বর  চার সপ্তাহের আগাম জামিন নেন। জামিনের মেয়াদ শেষ হয় গত ১৮ ডিসেম্বর। কিন্তু হাইকোর্ট বিভাগের নির্দেশনা মতে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তিনি ট্রাইব্যুনালে আত্মসমর্পণ করেননি। গত ২৯ জানুয়ারি চেয়ারম্যান আবু সাঈদ পুনরায় আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে বিজ্ঞ আদালত জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। বর্তমানে তিনি জেলহাজতে রয়েছেন বলে নিশ্চিত করেন তারা (ইউপি সদস্য)।

বাঘারপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসিম উদ্দিন বলেন, ‘চেয়ারম্যান আবু সাঈদ সরদার জেল হাজতে আছে বলে লোকমুখে শুনছি। তবে, কোনো তথ্য প্রমাণ আমার কাছে নেই’।

তিনি আরো বলেন, ‘গেল বছর বাঘারপাড়া থানায় চেয়ারম্যান আবু সাঈদ সরদারের বিরুদ্ধে একটি প্রতারণা মামলা হয়েছিল। দু’মাস আগে সেই মামলার চার্জশিট হয়েছে। চার্জশিটে এই চেয়ারম্যানের নাম আছে।’

নড়াইল সদর থানার এএসআই কামাল হোসেন জানান, গত বছরের ১৯ অক্টোবর নড়াইল সদর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা ও টেলিযোগাযোগ আইনে তিনি নিজে বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আটককৃত দু’জন আসামী বাঘারপাড়া উপজেলার ৮ নং বাসুয়ারি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু সাঈদের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেন। পরে একই মামলায় চেয়ারম্যান সাঈদ সরদারকে ৭ নং আসামী করা হয়। মামলায় উল্লেখ করা হয় চেয়ারম্যান আবু সাঈদ দীর্ঘদিন যাবত শ্রমজীবি অশিক্ষিত, অর্ধ শিক্ষিত সহজ সরল মানুষকে বিভিন্ন লোভ-লালসা ও প্রলোভন দেখিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে তাদের নামে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিমকার্ড রেজিস্ট্রেশন করে নেন এবং উক্ত সিমকার্ড দেশের বিভিন্ন স্থানে অপরাধজনক কার্যক্রমে ব্যবহার করেন।


যশোর/রিটন/মাহি

     
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : যশোর, খুলনা বিভাগ