ঢাকা, শনিবার, ২৭ চৈত্র ১৪২৬, ১১ এপ্রিল ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ২৫

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০২-২৭ ৯:৪৪:৫৩ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০২-২৭ ৯:৪৪:৫৩ এএম

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ২৫ জন আহত হয়েছেন।  সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ২০-২৫ বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয়েছে।

বুধবার উপজেলার সোনারামপুর ইউনিয়নের শান্তিপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শান্তিপুর গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ফরিদ মিয়ার সঙ্গে সোনারামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মতি মিয়ার দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এতে বিভিন্ন সময় উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে কথা কাটাকাটি থেকে ফরিদ মিয়ার লোকজন মতি মিয়ার বাড়িতে হামলা চালায়। ওই হামলাকে কেন্দ্র করে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ১৪ জন টেঁটাবিদ্ধসহ ২৫ জন আহত হন। সংর্ঘষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমান ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

সংঘর্ষে টেকাবিদ্ধরা হলেন- সাব মিয়া (৪০), নুরুল ইসলাম (৭০), শাহিন মিয়া (২৫), আলমগীর হোসেন (২৫), মমিন মিয়া (২৬), মো. মহারাজ (৪৫), শাহিন মিয়া (৩২), শওকত মিয়া (৩৫), সাব মিয়া (৫৫), আছিয়া (৪৫), খলিল মিয়া (৩০), বাচ্চু মিয়া (৩২), সোহেল মিয়া (২০), সৈকত মিয়া (২৫)।

অন্য আহতরা হলেন- মো. সোহেল (১৯), সালেহ আহমেদ (৩০), জেসমিন আক্তার (২৫), মো. তৈয়ব (২২), আফিয়া বেগম (৪৫), নাহিদ হাসানসহ (২০) মোট ২৫ জন আহত হয়েছেন। আহতদের বাঞ্ছারামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও নরসিংদী সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

শান্তিপুর গ্রামের মতি মিয়ার ছেলে আলেফ মিয়া জানান, সকালে ফরিদ মিয়ার লোকজন অতর্কিতভাবে কয়েকটি বাড়িতে হামলা চালায়। হামলায় আমাদের ৩০/৩৫ জন আহত হয়েছেন। এসময় ২০/২৫ ঘরে ব্যাপক ভাঙচুর ও লুটপাট চালায় তারা। তাদের হামলার সময় এলাকায় পুলিশ ছিল না।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ফরিদ মিয়া জানান, মঙ্গলবার রাতে ওসি স্যার আমাকে ডেকে থানায় নিয়ে যায়। আর সকালে ঘটনার সময় আমি থানায় ছিলাম। এবিষয়ে আমি কিছু বলতে পারব না।

সোনারামপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শাহিন আহমেদ জানান, দীর্ঘদিন ধরে দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। পূর্ববিরোধের জের ধরেই দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

বাঞ্ছারামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাহ উদ্দিন চৌধুরী জানান, উভয়পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরেই বিরোধ চলছিল। সকালে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়লে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে অবস্থা স্বাভাবিক রয়েছে।  তাই আর কোনো পক্ষকে থানায় ডাকা হয়নি।

 

রুবেল/বুলাকী

     
 

আরো খবর জানতে ক্লিক করুন : ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চট্টগ্রাম বিভাগ
ট্যাগ :