ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ২৯ মে ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

আওয়ামী লীগের ২ গ্রুপের সংঘর্ষে স্কুলছাত্রী নিহত

নরসিংদী প্রতিনিধি : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-২৯ ১২:২২:৫১ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-২৯ ১২:২২:৫১ এএম

নরসিংদীর রায়পুরার চাঁনপুর ইউনিয়নের দুর্গম চরাঞ্চলে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে এক স্কুলছাত্রী নিহত হয়েছে। এতে আহত হয়েছেন আরো ১১ জন।

শনিবার (২৮ মার্চ) রাত সাড়ে ৮টায় ঢাকা মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই ছাত্রীর মৃত্যু হয়।

রায়পুরা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) দেব দুলাল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সোনিয়া কালিকাপুর গ্রামের জালাল মিয়ার মেয়ে ও সদাগরকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী।

এ ঘটনায় পুলিশ কালিকাপুর গ্রামের অহিদ মিয়ার ছেলে আব্দুস সাত্তার (৩২) ও আবু সামাদের ছেলে সবুজকে (২৪) আটক করেছে।

সংঘর্ষে আহতরা হলেন— কালিকাপুর গ্রামের মৃত আব্দুল হাসিমের ছেলে শবুর মিয়া (৫০), সৈয়দ জামানের ছেলে জাকির মিয়া (৩৮), জিতু মোল্লার ছেলে ফরিদ মিয়া (৬০), জালাল মিয়া (৪০), মৃত তাহের মিয়ার স্ত্রী রুবিনা খাতুন (৬০), ছেলে হেলাল মিয়া (৩২), অন্তঃস্বত্তা পুত্রবধূ মুক্ত আক্তার ও শান্ত মিয়ার স্ত্রী আনু (৩৩), হযরত আলীর ছেলে মগল হোসেন (৩৮), ইনু মিয়ার ছেলে মাছুম (২৫) ও বাছেদ (৩২)।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে এসআই দেব দুলাল জানান, চাঁনপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদ বাবুল মিয়া ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাসির মিয়ার মধ্যে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে ওই এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছিল। এজন্য শুক্রবার রাতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

শনিবার সকালে হঠাৎ দুই পক্ষের লোকজন টেঁটা-বল্লমসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। ঘণ্টাব্যাপী চলা সংঘর্ষে স্কুলছাত্রী সোনিয়াসহ দুই পক্ষের ১১ জন আহত হন। এসময় উভয়পক্ষের ছয় ঘরে ভাঙচুর হয়। পরে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং আওয়ামী লীগ নেতা বাবুলের দুই সমর্থক সাত্তার ও সবুজকে আটক করে।

পরে টেঁটাবিদ্ধ সোনিয়াকে স্বজনরা প্রথমে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিয়ে যান ও পরে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতে তার মৃত্যু হয়।

আহতদের নরসিংদী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর ও কিশোরগঞ্জের ভৈরবে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

রায়পুরা থানার এই কর্মকর্তা আরো জানান, চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই ছাত্রী মারা গেছে। পরবর্তী সংঘর্ষ এড়াতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। অভিযুক্তদের ধরতে অভিযান অব্যাহত আছে।


হানিফ/বুলাকী