ঢাকা, রবিবার, ১৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৩১ মে ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

নওগাঁয় করোনার উপসর্গ নিয়ে ঢাকাফেরত ব্যক্তির মৃত্যু

নওগাঁ সংবাদদাতা : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৩-২৯ ১০:৪০:৫৮ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৩-২৯ ১১:২৪:০১ এএম

নওগাঁর রাণীনগরে করোনার উপসর্গ নিয়ে ঢাকা থেকে আসা আল-আমিন (২২) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার (২৮ মার্চ) রাতে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

বিষয়টা নিশ্চিত করেছেন নওগাঁ সদর হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. মুমিনুল হক।

আল-আমিন রাণীনগর উপজেলার কালীগ্রাম ইউনিয়নের অলঙ্কার দীঘি গ্রামের মকলেছুর রহমানের ছেলে। তিনি ঢাকায় একটি কাপড়ের দোকানে কর্মচারী হিসেবে কাজ করতেন।

আল-আমিনের বাবা মকলেছুর রহমান জানান, শুক্রবার রাতে আল আমিন গায়ে জ্বর-কাশি নিয়ে খুব অসুস্থ অবস্থায় ঢাকা থেকে নওগাঁতে এসে পৌঁছে। এরপর শনিবার সকালে তাকে বাড়িতে উঠতে দেয়নি গ্রামবাসী। ফলে বাধ্য হয়ে সকালেই এলাকার ভেটিস্ট্যান্ড থেকে চিকিৎসার জন্য আদমদীঘি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তার কোন চিকিৎসা না করেই ফেরত দেন ডাক্তাররা। এরপর ছেলেকে ভেটি কমিউনিটি ক্লিনিকে নেওয়া হয়। সেখানে তাকে বারান্দায় মুর্মূষু অবস্থায় ফেলে রাখেন ডাক্তাররা।

পরে স্থানীয় চেয়ারম্যান জানতে পেরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সহযোগিতায় ছেলেকে চিকিৎসার জন্য রাণীনগর হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করেন। সেখানেও ডাক্তাররা রোগী দেখেই হাতে কাগজ ধরিয়ে নওগাঁ হাসপাতালে পাঠান। নওগাঁ হাসপাতালে পৌঁছার পর সেখানেও কোন চিকিৎসা না দিয়ে চিকিৎসকরা রাজশাহী নিয়ে যান বলে হাতে একটি কাগজ ধরিয়ে দেন। রাজশাহী হাসপাতালে গত রাতে সে মারা যায়।

মকলেছুর রহমান অভিযোগ করে জানান, করোনার উপসর্গ থাকায় আক্রান্ত সন্দেহে বাড়িতে উঠতে দেননি গ্রামবাসী। ছেলেকে নিয়ে তিনটি হাসপাতালে নিয়ে গেলেও কেউ চিকিৎসা করেননি। চিকিৎসা না পেয়ে তার ছেলের মৃত্যু হয়েছে।

এ বিষয়ে নওগাঁ সদর হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. মুমিনুল হক জানান, জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে আসায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিক্যালে পাঠানো হয়। কারণ তাকে আইসিইউতে নেয়া প্রয়োজন ছিল। তবে, তিনি করোনায় আক্রান্ত কী-না সে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

 

সাজু/বুলাকী