ঢাকা     শনিবার   ০৮ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২৪ ১৪২৭ ||  ১৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

বড়াইগ্রামে পাখি খেকোদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে প্রশাসন

|| রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৩:২৯, ২৩ মে ২০২০  

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায় ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের কবলেপড়া শামুকখোল পাখি ধরে রান্না করে খাওয়ার সংবাদে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যান।

অনলাইন নিউজপোর্টাল রাইজিংবিডিডটকমে এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হলে বিষয়টি প্রশাসনের কর্মকর্তাদের নজরে আসে।

শুক্রবার (২২ মে) বিকেলে তারা উপজেলার বাজিতপুর গ্রামে গিয়ে পাখির আবাসস্থল দেখেন এবং স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলেন।

এ সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আনোয়ার পারভেজ, রাজশাহী বিভাগীয় বন্যপ্রাণী পরিদর্শক জাহাঙ্গীর কবীর, ফরেস্টার আশরাফুল ইসলাম, উপজেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগের ভেটেরেনারি সার্জন ডা. উজ্জ্বল কুমার কুন্ডু, বড়াইগ্রাম থানার উপপরিদর্শক আনোয়ার হোসেন, বড়াইগ্রাম উপজেলা প্রেসক্লাব সভাপতি অহিদুল হক, স্থানীয় পাখিপ্রেমী আব্দুল কাদের সজল ও প্রভাষক মহসিন আলীসহ আনসার ভিডিপির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

যারা ঘূর্ণিঝড়ে মাটিতে আছড়েপড়া পাখি ধরে রান্না করে খেয়েছেন, তাদের বাড়িতে যান কর্মকর্তারা এবং পাখি জবাই করার প্রমাণও পান। তবে খবর পেয়ে অভিযুক্তরা আগেই বাড়ি থেকে সরে পড়েন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান, অভিযুক্তরা আগেই পালিয়ে গেছেন। তবে ভবিষ্যতে পাখির কেউ ক্ষতি করবে না মর্মে স্থানীয়রা প্রতিশ্রুতি দিয়েছ্নে।

বন্যপ্রাণী পরিদর্শক জাহাঙ্গীর কবীর জানান, তারা গর্হিত কাজ করেছেন। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে।

অল্প দিনের মধ্যে এই স্থান পাখির নিরাপদ আবাস্থল ঘোষণা করে সাইনবোর্ড টাঙিয়ে দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।  

** গ্রামবাসীর খাবার হলো ঝড়ে পড়া শামুকখোল পাখিগুলো

 

আরিফুল/বকুল

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়