ঢাকা     শুক্রবার   ১৪ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ৩০ ১৪২৭ ||  ২৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

সুনামগঞ্জে বন্যায় ভেসে গেছে ৩০ কোটি টাকার মাছ

|| রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৫:৪৭, ২ জুলাই ২০২০  
সুনামগঞ্জে বন্যায় ভেসে গেছে ৩০ কোটি টাকার মাছ

সুনামগঞ্জে বন্যায় ভেসে গেছে ৩ হাজারেরও বেশি পুকুরের ৩০ কোটি টাকার মাছ। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন জেলার মাছ চাষিরা। 

মহামারি করোনার এ দুর্যোগ কাটিয়ে ওঠার আগেই বানের জলে এমন ক্ষতিতে দিশেহারা খামারিরা। ক্ষতি পূরণে সরকারের কাছে সাহায্যের দাবি জানিয়েছেন তারা।

জেলা মৎস্য অফিস  ‍সূত্রে জানা যায়, ভারি বর্ষণ আর পাহাড়ি ঢলে সুনামগঞ্জে কয়েক’শ গ্রাম প্লাবিত হয়। জেলার সদর উপজেলার ১২১৮, ছাতকের ২১০, ধর্মপাশায় ৩৪২, তাহিরপুরে ৭০, বিশ্বম্ভরপুরে ৪৫০, দোয়ারাবাজারে ২৯৩, দক্ষিণ সুনামগঞ্জের ৯০ ও জামালগঞ্জের ১১১, দিরাইয়ে ২৬টিসহ প্রায় ৩ হাজার ৮১টি পুকুর ও দিঘীর খামারের মাছ বন‌্যার পানিতে ভেসে গেছে। এতে ক্ষতি হয়েছে প্রায় ৩০ কোটি টাকা। হাওরাঞ্চলে মৌসুমের ৬ মাস ধান আর বাকি ৬ মাস মাছ চাষ করে জীবীকা নির্বাহ করেন এ অঞ্চলের লোকজন। ব্যাংক থেকে ঋণ আর ধার দেনা করে পুকুরে মাছ চাষ করেন তারা। কিন্তু বন্যার পানিতে মাছ ভেসে যাওয়ায় দিশেহারা মাছ চাষিরা।

সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে জেলা সদর উপজেলার খামারিরা।

ইব্রাহিমপুর গ্রামে শিহাব মিয়া নামে এক চাষি বলেন, ‘ভারি বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে পুকুরের পানি উপচে মাছ বেরিয়ে গেছে। এতে আমার প্রায় ১ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।’ একই গ্রামের মিজান মিয়া নামে একজনের প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

ইব্রাহিমপুর মর্ডান এগ্রো কমপ্লেক্সে লিমিটেডের  পরিচালক ইসলাম উদ্দিন বলেন, ‘ব্যাংক থেকে এক কোটি ১৩ লাখ টাকা ঋণ নিয়ে ৯টি পুকুরে মাছ চাষ শুরু করা হয়। ৩০ থেকে ৩৫ লাখ টাকা মাছ চাষে খরচ হয়।  হঠাৎ বন্যার পানিতে সবগুলো পুকুরের মাছ ভেসে গেল।  এখন কীভাবে ঋণ শোধ করব আর কীভাবে বাচ্চাদের মুখে খাবার তুলে দেব।’

মৎস্য কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘জেলায় প্রায় ৩ হাজারেরও বেশি খামারির মাছ বন্যার পানিতে ভেসে গেছে। ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বিভিন্ন উপজেলার খামারিরা। আমরা তাদের তালিকা তৈরি করছি। এ পর্যন্ত ৩ হাজার ৮১টি পুকুরের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। ক্ষতির হিসাব আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠিয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘মাছ চাষিরা যাতে নতুন উদ্যেমে কাজ করতে পারে সেজন্য তাদেরকে পরামর্শ ও প্রযুক্তিগত সহায়তা করা হবে। যেহেতু তারা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের জন্য সরকার পাঁচ হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা দিয়েছে তাই তারা ৪ শতাংশ সুদে  ঋণ নিতে পারবে।’

 

সুনামগঞ্জ/ইভা

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়