ঢাকা     মঙ্গলবার   ১১ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২৭ ১৪২৭ ||  ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

চুয়াডাঙ্গায় কাঁঠালের ভালো ফলন, দাম নিয়ে হতাশ

এম এ মামুন || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০২:৩৯, ১১ জুলাই ২০২০  
চুয়াডাঙ্গায় কাঁঠালের ভালো ফলন, দাম নিয়ে হতাশ

চুয়াডাঙ্গায় এবার কাঁঠালের বাম্পার ফলন হয়েছে। তবে করোনার কারণে জেলার কাঁঠালের বাজারগুলো ক্রেতা শূন্য। ফলে এ বছর ১০০ টাকার কাঁঠাল বিক্রি হচ্ছে মাত্র ২০ টাকায়।

ভালাইপু কাঁঠালের হাট থেকে আলমডাঙ্গা উপজেলার রুইতনপুর গ্রামের তৌহিদ হোসেন নামে এক কাঁঠাল চাষি বলেন, ‘করোনার কারণে হাটে কাঁঠালের ব্যাপারী আসছে না। যে কাঁঠাল গত বছর ১০০ টাকায় বিক্রি করেছি এ বছর ২০ টাকাতেও কিনতে চাই না কেউ।’

দামুড়হুদা উপজেলার রামনগর গ্রামের কাঁঠাল চাষি হারেজ আলী বলেন, ‘হাটে কাঁঠালের ক্রেতা না থাকায় গাছের কাঁঠাল গাছেই পচে যাচ্ছে। এবার ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে আমের ক্ষতি হয়েছিল। মনে করেছিলাম, কাঁঠাল বিক্রি করে আমের লোকসান কাটিয়ে উঠবো। কিন্তু করোনার কারণে কাঁঠালেও লোকসান গুণতে হচ্ছে।’

কাঁঠালের পাইকারি ব্যবসায়ী আক্তার আলী ও জিল্লুর রহমান জানান, এ বছর কাঁঠালের প্রচুর ফলন হয়েছে। কিন্তু করোনার কারণে হাটে ব্যাপারী আসছে না। যারা আসে তারাও পরিবহন সমস্যাসহ করোনার দোহায় দিয়ে ১০০ টাকার কাঁঠাল ১৫ থেকে ২০ টাকা দিয়ে কিনছে। কাঁঠাল তো দ্রুত পচে যায়। তাই চাষিরা কম দামে বিক্রি করে দিচ্ছে।’

হাটে বরিশাল জেলা থেকে আসা রমিজ ব্যাপারী জানান, চুয়াডাঙ্গা জেলার কাঁঠালের স্বাদ ভালো। প্রতিবছর তিনি এই অঞ্চলের বিভিন্ন হাট থেকে কাঁঠাল কিনে ট্রাকে করে নিয়ে যান। এবার কাঁঠালের দাম কম হলেও করোনার কারণে পরিবহন সমস্যা রয়েছে। ভাড়াও বেশি।

চুয়াডাঙ্গা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক জানান, গত মৌসুমে ২৭৫ হেক্টর জমিতে কাঁঠালের আবাদ হলেও চলতি মৌসুমে ২৮৫ হেক্টর জমিতে কাঁঠাল হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘গত বছরের তুলনায় চলতি বছর কাঁঠালের উৎপাদন ভালো হয়েছে। চুয়াডাঙ্গা থেকে দেশের দক্ষিণ অঞ্চলসহ বিভিন্ন অঞ্চলে কাঁঠাল নিয়ে বিক্রি করা হয়। কিন্তু এ বছর করোনার কারণে একদিকে যেমন পরিবহন সমস্যা অপরদিকে কাঁঠালের চাহিদাও কম। সব মিলিয়ে কাঁঠাল চাষিরা ক্ষতির মুখে পড়বে। জেলার চাহিদা মিটিয়েও প্রতিবছর কয়েক’শ কোটি টাকার কাঁঠাল বিক্রি হয় দেশের বিভিন্ন জেলায়। কিন্তু এ বছর করোনার কারণে তা হচ্ছে না।’

 

চুয়াডাঙ্গা/মামুন/ইভা

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়