ঢাকা     মঙ্গলবার   ১১ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ২৭ ১৪২৭ ||  ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

মানিকগঞ্জে ৫ হাজার হেক্টর ফসলি জমি নিমজ্জিত

|| রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:১৮, ১৩ জুলাই ২০২০  
মানিকগঞ্জে ৫ হাজার হেক্টর ফসলি জমি নিমজ্জিত

মানিকগঞ্জে যমুনার পানি পুনরায় বাড়তে শুরু করেছে। ফলে জেলার সাতটি উপজেলার প্রায় পাঁচ হাজার হেক্টর জমির ফসল পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে উনিশ হাজার ৯৬৩ জন কৃষক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।

মানিকগঞ্জ জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ- সহাকারি কৃষি কর্মকর্তা গনেশ চন্দ্র বলেন, ‘মানিকগঞ্জের সাত উপজেলায় চার হাজার ৪৬৭ হেক্টর জমির ফসল পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে কৃষকেরা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। মোট ফসলি জমির ৮.৮৯% জমি পানিতে তলিয়ে গেছে।’

মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার আটিগ্রাম ইউনিয়নের ফারিরচর গ্রামের কৃষক বদর উদ্দিন বলেন, ‘১৫৭ শতাংশ জমিতে রোপা আমন চাষ করেছি। কিন্তু বন্যার পানিতে সব তলিয়ে গেছে। এতে আমি ফসল ঘরে তুলতে পারব না।’

সাটুরিয়া উপজেলার বালিয়াটী গ্রামের লেবু মিয়া বলেন, ‘৫০ শতাংশ জমিতে বেগুন চাষ করেছি। ভাল ফলনের পাশাপাশি দামও ভাল পেয়েছিলাম। কিন্তু দুদিন আগে আমার বেগুন ক্ষেত বানের পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে আমার উৎপাদন খরচ উঠবে না।’

মানিকগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ- পরিচালক মো. শাজাহান আলী বিশ্বাস বলেন, ‘মানিকগঞ্জে দুই দফায় পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রথম দফায় পানি কমার পর আবার দুদিন ধরে পানি বাড়ছে। প্রথম দফায় চার হাজার ৬২ হেক্টর ফসল পানিতে তলিয়ে যায়। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হন উনিশ হাজার ৯৬৩ জন কৃষক। পানিতে ধান ও সবজিসহ প্রায় ১৬ কোটি ৩৮ লাখ পঁচাশি হাজার টাকার ক্ষতি হয়েছে। গত দুই দিনে ৪০৫ হেক্টর জমির ফসল তলিয়ে গেছে। দ্বিতীয় দফায় ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা আগামী সপ্তাহে করব। প্রথম দফার ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকা ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

এদিকে সোমবার (১৩ জুলাই) নতুন করে মানিকগঞ্জে ১২ সেন্টিমিটার পানি বেড়েছে। মানিকগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের আরিচা ঘাট পয়েন্টের গেইজ রিডার মো. ফারুক আহম্মেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

ফারুক আহম্মেদ বলেন, ‘সোমবার সকালে মানিকগঞ্জে যমুনা নদীর শিবালয়ের আরিচা পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ৩২ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।’


হাসান ফয়জী/সনি

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়