ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ৯ ১৪২৭ ||  ০৬ সফর ১৪৪২

গাইবান্ধায় মার্কিন মানবিক সহায়তা কর্মসূচির উদ্বোধন 

গাইবান্ধা সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:১৬, ৮ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
গাইবান্ধায় মার্কিন মানবিক সহায়তা কর্মসূচির উদ্বোধন 

গাইবান্ধায় বন‌্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের যুক্তরাষ্ট্রের মানবিক সহায়তা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার।

আজ শনিবার মার্কিন রাষ্ট্রদূত গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার ফজলুপুর ইউনিয়নে এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

এর আগে ব্রহ্মপুত্র নদী তীরবর্তী এলাকায় সি প্লেন যোগে আসেন রবার্ট মিলার। তিনি প্রত্যন্ত চরের উজালেরডাঙ্গা গ্রামের বন্যা কবলিত পরিবারের সাথে কথা বলেন। 

এসময় রাষ্টদুত মিলার বন্যার সময়ে চর এলাকার অসহায় দরিদ্র নারীদের বিভিন্ন অসুবিধার কথা শোনেন এবং এই পরিস্থিতিতে আগামী দিনে আরও কী কী ধরনের উন্নয়ন কর্মসূচি নেওয়া প্রয়োজন, তা জানতে চান।

পরিদর্শনকালে দেশটির বেসরকারি সাহায‌্য সংস্থা কেয়ার বাংলাদেশ কর্তৃক বাস্তবায়িত সৌহার্দ‌্য কর্মসূচির আওতায় ৩টি ভূমি উন্নয়ন প্রকল্প ঘুরে দেখেন মিলার। তিনি ২০ জনের হাতে সহায়তা তুলে দিয়ে মানবিক সহায়তা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন গাইবান্ধার জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ রাহাত গাওহারী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু রায়হান দোলন, ইউএসএইডের পরিচালক মিস্টার থোমাস পপি, কেয়ার বাংলাদেশের চিফ অব পার্টি ওয়ালটার মাওসা, এবং অন্যান্য সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার কর্মকর্তারা।

স্থানীয় সহযোগী সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক রাসেল আহম্মেদ লিটন জানান, বাংলাদেশ দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এবং জাতিসংঘের চলমান সহযোগিতার অংশ হিসেবে উত্তরবঙ্গের বন্যাকবলিত অঞ্চলে ঘর-বাড়ি বা জীবিকা হারানো নাজুক পরিবারগুলোকে আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থার (ইউএসএআইডি) এর মাধ্যমে জরুরি মানবিক সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

এরই ধারাবাহিকতায় গাইবান্ধা জেলার ফুলছড়ি উপজেলার ফজলুপুর ইউনিয়নের সাতটি গ্রামের ৫৮০টি পরিবারকে মানবিক সহায়তা দেওয়া হবে। যারা সবচেয়ে বেশি বিপদাপন্ন, ঘর-বাড়িহারা, ক্ষুধার্ত, আশ্রয়হীন এবং অন্য কোন সহায়তা পায়নি, তাদেরকে চিহ্নিত করে পর্যায়ক্রমে সহায়তা দেওয়া হবে। মানবিক সহায়তা হিসেবে প্রত্যেকটি পরিবারকে নগদ সাড়ে চার হাজার টাকা ছাড়াও সাবান, ডিটারজেন্ট, স্যানিটারি ন্যাপকিন,প্লাস্টিক মগ, প্লাস্টিক বালতি এবং মাস্ক দেওয়া হবে জানানো হয়েছে। 

দয়াল/সাজেদ 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়