ঢাকা     সোমবার   ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||  আশ্বিন ৬ ১৪২৭ ||  ০৩ সফর ১৪৪২

যশোরে ৩ কিশোর হত্যায় অভিযুক্ত কর্মকর্তারাই  

সাকিরুল কবীর রিটন || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৭:২২, ১৪ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
যশোরে ৩ কিশোর হত্যায় অভিযুক্ত কর্মকর্তারাই  

যশোরের পুলেরহাট শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে তিন কিশোরকে কর্মকর্তারাই পিটিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে । 

এ সময় আহত করা হয়েছে কমপক্ষে আরো ২৫/৩০জনকে। তাদেরকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ডাক্তার সোহানুর রহমান জানান, আহতদের মধ্যে ৪জনের অবস্থা গুরুতর। 

এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি একেএম নাহিদুল ইসলাম জানান, একপক্ষের হামলায় এই হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনা পুলিশি তদন্তের পাশাপাশি জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠনের কথা জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান।

যশোর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কিশোররা জানান, গত ৩ আগস্ট ঈদের ছুটি চলাকালীন সময়ে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রর প্রধান নিরাপত্তা রক্ষী নুরুল ইসলামের সাথে কয়েকজন কিশোরের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এমনকি নুরুল ইসলামকে কয়েকজন মারপিটও করে। এরজন্য কয়েকজন কর্তৃপক্ষের কাছে ক্ষমাও চায়। কিন্তু তাদের এই ক্ষমা চাওয়ায় কোন কাজ হয়নি।

আহত কিশোর পাভেল, হৃদয়, সাব্বির, নাঈম, ইশান জানায় বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রের সহকারি তত্বাবধায়ক মাসুম বিল্লাহর নেতৃত্বে ১০/১২ জন কিশোরদেরকে ডরমেটরি থেকে একে একে ডেকে নিয়ে মুখ, হাত পা কাপড় দিয়ে বেঁধে পৈশাচিকভাবে পেটাতে থাকে। যতক্ষণ না জ্ঞান হারিয়েছে ততক্ষণ পেটানো হয়েছে। জ্ঞান ফিরলে আবার দ্বিতীয় দফায়ও কয়েকজনকে পেটানো হয়। এই সময়েই প্রথমে নাঈম শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের ভেতরে মারা যায়। এরপর অচেতন অবস্থায় পারভেজ ও রাসেলকে হাসপাতালে আনার পথে তারাও মারা যায়। 

খুলনা রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি একেএম নাহিদুল ইসলাম জানান,  নাঈম মারা যাওয়ার পরই  শিশু উন্নয়ন কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ বিষয়টি পুলিশকে জানায়। এরপর পুলিশ দ্রুত পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। পারভেজ ও রাসেলকে পুলিশই উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। এরপর রাত সাড়ে ৯ টার দিকে বাকি ১৪ জনকে হাসপাতালে আনে পুলিশ। 

যশোর/টিপু

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়