RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ২১ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ৬ ১৪২৭ ||  ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আউশের ভালো ফলনে কৃষকের মুখে হাসি

বরগুনা প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:১২, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১০:২৬, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০
আউশের ভালো ফলনে কৃষকের মুখে হাসি

বরগুনায় এবার আউশ ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। গত কয়েক বছরের তুলনায় এ বছর ফলন ও দাম বেশি থাকায় কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে।

জেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, জেলায় এ বছর আউশ ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৫৫ হাজার হেক্টর। সেখানে আবাদ হয়েছে ৫৫ হাজার ৫২৫ হেক্টর জমিতে। লক্ষ‌্যমাত্রার চেয়ে ৫২৫ হেক্টর বেশি জমিতে আউশ ধানের চাষ হয়েছে।

কৃষকরা জানান, প্রতি বছর বৈশাখ মাসের মাঝামাঝি থেকে শুরু করে জ্যৈষ্ঠ মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত আউশ ধান রোপণ করেন। এ বছর কৃষকরা বিরি-৪৮ ও বিরি-২৭ দুই জাতের ধান রোপন করেছেন। শুরুতে ঘূর্ণিঝড় আম্ফান আঘাত হানলেও আউশের তেমন ক্ষতি হয়নি।

শ্রাবণ মাসের শেষের দিকে ধান কাটা শুরু হয়ে চলে ভাদ্র মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত। বর্তমানে কৃষকরা ধান কাটা ও মাড়াই কাজে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন। বাজারে প্রতিমণ ধান ৯০০ থেকে সাড়ে ৯০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

সদর উপজেলা, পাথরঘাটা, আমতলী উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে কোথাও কোথাও ধান পাকতে শুরু করেছে, আবার কোথাও ধান কাটা হচ্ছে, কোথাও বা ধান মাড়াই করা হচ্ছে।

সদর উপজেলার খাজুরতলা গ্রামের কৃষক খলিল এ বছর ৮০ শতাংশ জমিতে আউশ ধান আবাদ করেছেন।

তিনি বলেন, ‘গত কয়েক বছরের তুলনায় এ বছর ধানের ফলন ভালো হয়েছে।’ 

বেতাগীর চান্দখালি এলাকার বটতলা গ্রামের কৃষক মুসলিম আলী বলেন, ‘আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার আউশ ধানের আবাদ ভালো হয়েছে।’

পশ্চিম সোনাখালী গ্রামের কৃষক ফজলুর রহমান বলেন, ‘আমি ৬ একর জমিতে আউশ ধান চাষ করেছি। এ বছর ফলন ভালো, ধানের দাম বেশি।’

চাওড়া কাউনিয়া গ্রামের কৃষক নজরুল ইসলাম বলেন, ‘২০ কড়া জমিতে আউশ ধানের চাষ করেছি। গত কয়েক বছরের তুলনায় এ বছর ফলন ভালো হয়েছে। বাজারে ধানের দামও ভালো।’

আমতলী ধান আড়ৎ সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন বলেন, ‘বাজারে আউশ ধানের চাহিদা থাকায় দাম ভালো। প্রতিমণ ধান ৯০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এভাবে দাম থাকলে কৃষক লাভবান হবেন।’

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর বরগুনা কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. ওয়াদুদ বলেন, এ বছর লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে প্রায় ২ হাজার হেক্টর বেশি জমিতে আউশ আবাদ হয়েছে । গত আমন মৌসুম এবং বোরো মৌসুমে বাজারে ধানের দাম বেশি থাকায় কৃষকরা আউশ ধান আবাদ ঝুঁকেছেন।’ 

বরগুনা/রুদ্র রুহান/ইভা 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়