RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৫ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১০ ১৪২৭ ||  ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

মানিকগঞ্জে দেশি মাছের আকাল

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:২৩, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৪:১০, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০
মানিকগঞ্জে দেশি মাছের আকাল

মানিকগঞ্জ জেলার তরা পাইকারি মৎস্য আড়তে দেশীয় মাছ হিসাবে পরিচিত টেংরা, শিং, কৈ, পুটি, টাকি, বাইম, শোল, বোয়াল এসব মাছের দেখা মিলছে না।  তবে আড়তে ইলিশ, পাঙ্গাশ, রুইসহ বড় ধরনের মাছের সরবরাহ রয়েছে।

মানিকগঞ্জে অন্যতম এই মৎস্য আড়তে এ অঞ্চলের সব মাছেরই সমারোহ থাকে এবং জমজমাট বেচাকেনাও চলে।  এসময়ে দেশীয় ছোট মাছের চাহিদা বেশি থাকলেও আমদানি একেবারেই কম বলে জানান ক্রেতারা।

চলতি বছরের বন্যায় মানিকগঞ্জ জেলার বিভিন্ন এলাকা প্লাবিত হয়।  বন্যার পানিতে কয়েক হাজার মৎস্য খামারিদের ঘের ও পুকুর তলিয়ে যায়।  পানি নেমে গেলেও কোথাও মিলছে না সে সব ঘের ও পুকুরের মাছ।  

শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকালে তরা পাইকারি মাছের আড়তে ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

মানিকগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলা ছাড়াও ঢাকা, সাভার, ধামরাই, আশুলিয়া এবং টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলাসহ আশেপাশের বিভিন্ন উপজেলা থেকে প্রায় হাজার খানেক মাছ ব্যবসায়ীর আগমন ঘটে তরা মাছের আড়তে।  ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের তরা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় কালিগঙ্গা নদীর পাশেই মাছের এই আড়তটি ভোর ৫ থেকে ৮ টা পর্যন্ত ক্রেতা-বিক্রেতার হাক ডাকে সরগরম থাকে।

রায়হানুল নামের দেশীয় মাছ কিনতে আসা এক ব্যক্তি জানান, বাজারের চেয়ে তরা পাইকারি আড়তে কম দামে দেশি মাছ পাওয়া যায়।  বিভিন্ন এলাকা ও জেলার বাইরে থেকেও এ আড়তে দেশি মাছের বেশ সরবরাহ থাকতো।  তবে সম্প্রতি এ আড়তে দেশীয় মাছের সরবরাহ কমে গেছে।

বাহার নামের এক ক্রেতা জানান, তিনি সদর উপজেলার কাঁচা বাজারে খুচরা বিক্রির জন্য দেশীয় মাছ কেনার জন্য এসেছেন।  খুচরা বাজারে বড় মাছের চেয়ে দেশীয় মাছের চাহিদা বেশি।  তবে চাহিদা থাকলেও দেশি প্রজাতির মাছের আমদানি খুব কম।  আবার অল্প কিছু মাছের আমদানি থাকলেও তার অতিরিক্ত দাম বলে জানান তিনি।

মো. লাবলু মিয়া নামের মাছের আড়তদার জানান, দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে এ আড়তে তাজা মাছ সরবরাহ করা হয়।  তাই এ আড়তের বেশ সুনাম রয়েছে।  তবে এ আড়তে এখন দেশি মাছের সংকট চলছে।  তবে আড়তে বরিশাল-কুয়াকাটার ইলিশ, পাঙ্গাশ, রুই  মাছের সরবরাহ রয়েছে।

তরা পাইকারি মৎস্য আড়তের সভাপতি ভোলানাথ হালদার বলেন, জেলেদের জালে দেশীয় প্রজাতির মাছ শিকার কমে যাওয়ায় আমদানি কম।  তবে বড় মাছের বাজারদর ও আমদানি স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানান তিনি।

চন্দন/টিপু

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়