RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ২৫ নভেম্বর ২০২০ ||  অগ্রাহায়ণ ১১ ১৪২৭ ||  ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২

নরসিংদীতে ৯৯৯-এ ফোন, অপহৃত দুই কলেজ ছাত্রী উদ্ধার

নরসিংদী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৭:১৯, ২১ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১২:৪০, ২১ অক্টোবর ২০২০
নরসিংদীতে ৯৯৯-এ ফোন, অপহৃত দুই কলেজ ছাত্রী উদ্ধার

নরসিংদীতে ৯৯৯-এ ফোন করে কিশোর গ্যাং অপহরণকারীদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে দুই কলেজ ছাত্রীকে।

রবিবার (১৯ অক্টোবর) জেলা গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) ও রায়পুরা থানা পুলিশ যৌথ অভিযানে রাতে তাদের উদ্ধার করেন। পরে মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) সকালে ওই কিশোর গ্যাং অপহরণকারীর ৩ সদস্যকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- রায়পুরা উপজেলার হাসনাবাদ স্কুল পাড়ার বাবুল মিয়ার ছেলে শাহাদৎ (১৮), করিমগঞ্জ গ্রামের আমির হোসেন ভূইয়ার ছেলে মৃদুল ভূইয়া (১৮) ও শহিদ কাজী ছেলে মোঃ মুন্না কাজী (১৮)।

জেলা গোয়েন্দা শাখার পরিদর্শক ও পুলিশের মিডিয়া সমন্বয়ক রূপন কুমার সরকার জানান, রবিবার (১৯ অক্টোবর) সুহাদা ও লামিয়া নামে দুইজন কলেজ ছাত্রী রায়পুরা উপজেলার আমিরগঞ্জ ইউনিয়নের হাসনাবাদ পশ্চিম বাজার নার্সারীতে চারা কিনতে যায়। এ সময় কথিত কিশোর গ্যাং লিডার শাহাদৎ ও রাতুলের নেতৃত্বে নাসির, তানিম, আইমিন, রোহান মোজাম্মেলরা বিকাল অনুমান ৫ টার দিকে হাসনাবাদ থেকে ওই কলেজ ছাত্রীকে অপহরন করে নিয়ে যায়।

পরে মোবাইলের মাধ্যমে কলেজ ছাত্রীর স্বজনদের কাছে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপন দাবি করেন। যদি টাকা না দেয়া হয় তাদের জীবন নষ্ট করে দিবে মর্মে হুমকি দেয়। কলেজ ছাত্রী ভাই বিকাশের মাধ্যমে ২১ হাজার টাকা মুক্তিপন দেয়। আরও টাকার জন্য চাপ দিতে থাকলে তারা ৯৯৯-এ কল করে এবং পুলিশ সুপারের নিকট অভিযোগ করেন। পুলিশ সুপার তাৎক্ষণিক জেলা গোয়েন্দা শাখা ও রায়পুরা থানা পুলিশকে নির্দেশনা প্রদান করেন।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এস আই জাকারিয়ার নেতৃত্বে একটি টিম ও রায়পুরা থানা পুলিশ যৌথ অভিযান পরিচালনা করে রাতই কলেজে ছাত্রীদের উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। এ সময় অপহরণকারীরা পালিয়ে যায়।

পরবর্তীতে মঙ্গলবার (২০ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ৯টায় মুন্না ও মৃদুল নামে দুই ব্যক্তি মুক্তিপনের টাকা নিতে হাসনাবাদ বাজারে বিকাশের দোকানে আসলে পুলিশ তাদের আটক করে। তাদের দেওয়া তথ্যের ভিওিতে অপর অপহরণকারী শাহাদৎ কে আটক এবং অপহরণের কাজে ব্যবহৃত একটি অটোরিকশা ও মুক্তিপনের ২০ হাজার ৮শ’ টাকা উদ্ধার করা করা হয়।

এইচ মাহমুদ/নাসিম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়