RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ০১ ডিসেম্বর ২০২০ ||  অগ্রাহায়ণ ১৭ ১৪২৭ ||  ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২

ছোট্ট মেয়ের জন‌্য বাঁচতে চান ক্যানসার আক্রান্ত কামরুজ্জামান 

টাঙ্গাইল সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১০:১৫, ২১ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১০:২৯, ২১ অক্টোবর ২০২০
ছোট্ট মেয়ের জন‌্য বাঁচতে চান ক্যানসার আক্রান্ত কামরুজ্জামান 

মো. কামরুজ্জামান খলিফা (৪৩) ছিলেন একজন রেমিটেন্স যোদ্ধা। ২০০৭ সালে তিনি প্রথম সিঙ্গাপুরে কাজের উদ্দ‌্যেশে যান। এরপর থেকেই তিনি প্রবাসী ছিলেন। প্রায় এক যুগ সময় প্রবাসে কাটিয়েছেন তিনি। এতে পরিবার নিয়ে ভালই চলছিলো।

কিন্তু হঠাৎ তার শরীরে দানা বাঁধে মরণব‌্যাধি ক্যানসার। মুহূর্তেই সাজানো গোছানো সংসারে নেমে আছে ভয়াল কালো অন্ধকার।

মো. কামরুজ্জামান খলিফা টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার হাবলা দক্ষিণপাড়া গ্রামের মো. ওমর খলিফার ছেলে। বিবাহিত জীবনে তার দুই মেয়ে রয়েছে। এক মেয়ে বিয়ে হয়েছে। অপর মেয়ের বয়স ৮ বছর।

মো. কামরুজ্জামান খলিফা জানান, হঠাৎ করে মুখে ঘা ওঠায় ডাক্তারের কাছে যান তিনি। পরীক্ষায় তার ক্যানসার ধরা পড়ে। ছোট্ট মেয়ের জন্য বাঁচতে চান তিনি। ক্যানসার চিকিৎসা করতে গিয়ে তিনি এখন নিঃস্ব। বন্ধুবান্ধবসহ নিকট আত্মীয় স্বজনদের কাছ থেকে আর্থিক সাহায্যে নিয়েও তার চিকিৎসা শেষ হচ্ছে না। তাই তিনি সকলের কাছে আর্থিক সহায়তা চেয়েছেন।

কামরুজ্জামান খান জানান, ২০০৭ সাল থেকে তিনি সিঙ্গাপুর যান। এর মধ্যে তিনি বেশ কয়েকবার ছুটিতে দেশেও এসেছেন। গত বছর শুরুতে তার মুখের ঘা অনুভব করায় দেশে ফিরে আসেন। এসেই ডাক্তারে সঙ্গে পরামর্শ করেন। ডাক্তারি পরীক্ষায় গত বছরের ১৩ মার্চ তার ক্যানসার ধরা পরে। ডাক্তার তাকে ঢাকা অথবা ভারতে গিয়ে উন্নত চিকিৎসা করতে বলেন। খবর শুনে তিনি আতঙ্কিত হন। এতো টাকা জোগান তিনি কীভাবে করবেন—এসব ভাবতে থাকেন।

পরে তিনি হোমিও চিকিৎসা শুরু করেন তিনি। ছয় মাস হোমিও ঔষধ খাওয়ার পর সুস্থতা অনুভব করলে ডিসেম্বরের দিকে তিনি পুনরায় সিঙ্গাপুর চলে যান। সিঙ্গাপুর যাওয়ার কয়েক মাস পর তার মুখের ঘা আরও বাড়তে থাকে। পরে সিঙ্গাপুরে পরীক্ষায় তার আবারও ক্যানসার ধরা পড়ে। পরে তাকে দেশে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। তিনি গত দুই মাস যাবৎ সিরাজগঞ্জের খাজা ইউনুস আলী মেডিক‌্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এর মধ্যে তিনি দুটি কেমোথেরাপিও দিয়েছেন। এতে তার মোটা অংকের টাকা খরচ হয়েছে। তাই তিনি সকলের কাছ থেকে আর্থিক সহযোগিতা ও দোয়া চেয়েছেন।

মো. কামরুজ্জামান খলিফাকে বিকাশ অথবা ব্যাংক একাউন্টে সাহায্যে পাঠাতে পারেন। বিকাশ নম্বর ০১৭৪৭২২৩৫২৭, রুপালী ব্যাংক টাঙ্গাইলের নাটিয়াপাড়া শাখার একাউন্ট নম্বর ১০১৬০১০০০৩৯৭১।

কাওছার/বুলাকী

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়